শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

অমর একুশে গ্রন্থমেলা, নতুন পাঠক কতটা বাড়াচ্ছে

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৩ পিএম

অমর একুশে গ্রন্থমেলা, নতুন পাঠক কতটা বাড়াচ্ছে

নিসা জান্নাত

একুশে গ্রন্থমেলার পরিসর বাড়লেও পাঠক বাড়ছে কিনা সে প্রশ্ন অনেকের।
আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে প্রতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে চলে অমর একুশে গ্রন্থমেলা। প্রতিবছরই মেলার পরিসর এবং বিক্রি বাড়ছে। মূলত লেখক-পাঠক এবং প্রকাশের মধ্যে সেতুবন্ধ তৈরি করে এই গ্রন্থমেলা। কিন্তু সামগ্রিকভাবে পাঠকের সংখ্যা বাড়াতে এই মেলার অবদান কতটা?
সবচেয়ে বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে বাংলা একাডেমি চত্বরেই এতদিন এই মেলার আয়োজন হত। তবে এখন মেলার পরিসর বাড়িয়ে নেয়া হয়েছে একাডেমি ভবনের উল্টো দিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে। মেলার আমেজ টের পাওয়া যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র বা টিএসসির মোড় থেকেই।
গ্রন্থমেলা এখন জাতীয় উৎসবে পরিণত হয়েছে। এখানে এখন মানুষ বই কিনতে আসে, বই নাড়া-চাড়া করতে আসে। কিন্তু তার চেয়েও বড় কথা হচ্ছে গ্রন্থমেলা এখন মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে।
রাস্তার দু’পাশের ফুটপাথজুড়েই নানারকম পণ্যের পসরা। বাচ্চাদের খেলনা থেকে শুরু করে ঘরের সৌন্দর্য বাড়ায়, এমনও জিনিসও মিলছে। ছোট ছোট স্টলে বিক্রি হচ্ছে কবিতার ক্যাসেটও...।
বাংলাদেশ স্বাধীন হবার পরের বছর, অর্থাৎ ১৯৭২ সালে স্বল্প পরিসরে এই বইমেলা শুরু হলেও বাংলা একাডেমি আনুষ্ঠানিকভাবে এই মেলা শুরু করে তারও এক যুগ পরে, ১৯৮৪ সালে। মানুষ কেন আসেন এই মেলায়, আর এই মেলার বৈশিষ্ট্যই বা কী?
গ্রন্থমেলাতে সবকিছু পাওয়া যায়, এজন্যেই আসি, বলছিলেন এক তরুণী।
এত বইয়ের সমাবেশ দেখতে ভালো লাগে, বলছিলেন আরেকজন।
বাংলা একাডেমির এই গ্রন্থমেলাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের তরুণ লেখকদের একটা বড় আগ্রহ থাকে, কারণ এই মেলাকে কেন্দ্র করেই তারা তাদের বই প্রকাশের সুযোগ পান।

সোনালীনিউজ/এইচএআর

add-sm
Sonali Tissue
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩