রবিবার, ২৪ জুন, ২০১৮, ১১ আষাঢ় ১৪২৫

আলোচনার সময় শেষ, ফয়সালা রাজপথে

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার ১১:৪৫ পিএম

আলোচনার সময় শেষ, ফয়সালা রাজপথে

ঢাকা : বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বিএনপিকে ভাঙতে সরকার নানা কৌশল চালাচ্ছে। চতুর্দিক থেকে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। পত্র-পত্রিকায় লেখালেখি করানো হচ্ছে।  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকও ব্যবহার করা হচ্ছে।  সরকারের এই অপপ্রচারে কোনো লাভ হবে না। শকুনের দোয়ায় গরু মরে না।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, এ সরকার জনগণের সরকার নয়, নির্বাচিতও নয়।  এরা জোর করে জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে ক্ষমতায় আছে। নিজেদের মতো করে সংবিধান সংশোধন করে এখন বলছে সংবিধানের বাইরে যাওয়া যাবে না, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে।  তাদের এ কথা শুনলে মনে হয়, এটা যেন তাদের পৈতৃক সম্পত্তি।

মঙ্গলবার (১৩ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য কল্যাণ ফ্রন্টের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের মুক্তির দাবিতে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আলোচনার সময় শেষ।  এবার রাজপথেই দেখা হবে।  জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমেই এই সরকারকে বিদায় জানানো হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, এখন জেগে ওঠার সময়। সবাইকে উঠে দাঁড়াতে হবে।  দলমতনির্বিশেষে ‘অবৈধ ক্ষমতাসীনদের’ বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে রাজপথে নেমে আসতে হবে।  শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমেই সরকারকে বিদায় করা হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার নানা ছলচাতুরীর আশ্রয়ে খালেদা জিয়াকে কারাগারে আটকে রাখতে চাচ্ছে।  আসলে সরকার তাকে ভয় পাচ্ছে।  খালেদা জিয়া মুক্তি পেলে সরকারের মসনদ জনস্রোতে ভেসে যাবে।  খালেদা জিয়াকে বেশি দিন জেলে রাখা যাবে না।  বিএনপি শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমে তাকে মুক্ত করবে।

বিরোধী দল নির্মূল করতে সরকার বিরোধী নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা-মোকদ্দমা ও অত্যাচার-নির্যাতন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব।  তিনি বলেন, ছাত্রদলের তেজগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মিজানুর রহমান মিলনকে পুলিশি নির্যাতনে হত্যা করা হয়েছে।  গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে জীবন দিতে হলো মিলনকে।  এ রকম বহু মিলন জীবন দিয়েছেন এবং নিখোঁজ রয়েছেন।

দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ নেতাকর্মীরা আইনি প্রক্রিয়ায় কারামুক্ত হবেন এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন মির্জা ফখরুল।  ২০-দলীয় জোটের অন্যতম শরিক জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমানসহ ১০ নেতার গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে তাদের মুক্তির দাবি জানান বিএনপি মহাসচিব।

সংগঠনের আহ্বায়ক গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও অমলেশ দাস অপুর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় নেতা জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, জন গোমেজ, অর্পণা রায়, নিপুণ রায় চৌধুরী, সুশীল বড়ুয়া, দেবাশীষ রায় মধু, জয়দেব জয় প্রমুখ।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue