শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

আল্লাহ বিধান অমান্যকারীরাই ক্ষতিগ্রস্ত

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

আল্লাহ বিধান অমান্যকারীরাই ক্ষতিগ্রস্ত

সোনালীনিউজ ডেস্ক


রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন ইসলামের দাওয়াত দিতে শুরু করে তখন ইয়াহুদি খ্রিস্টানসহ আরবের পৌত্তলিকরা তার উপর ঈমান না এনে, আল্লাহ অবাধ্য হয়ে বরং তাকে কষ্ট দিতে শুরু করে। তাতে বিশ্বনবী দমে যাননি। আল্লাহ তাআলা উম্মাতে মুহাম্মাদির শিক্ষার জন্য বনি ইসরাইল জাতি কর্তৃক মুসা আলাইহিস সালামের নাজেহাল হওয়ার এবং তার হুকুম অমান্য হওয়ার বিষয়াবলী তুলে ধরেন। আল্লাহ বলেন-

আর আমি তোমাদের উপর ছায়া দান করেছি মেঘমালার দ্বারা এবং তোমাদের জন্য খাবার পাঠিয়েছি ’মান্না’ ও সালওয়া’। সেসব পবিত্র বস্তু তোমরা ভক্ষন কর, যা আমি তোমাদেরকে দান করেছি। বস্তুতঃ তারা আমার কোন ক্ষতি করতে পারেনি, বরং নিজেদেরই ক্ষতি সাধন করেছে।’ (সুরা বাক্বারা : আয়াত ৫৭)

এ আয়াতে মুসা আলাইহিস সালামের কাওমের নেতৃস্থানীয় সত্তর জন ব্যক্তিই আল্লাহকে দেখার ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করার ফলে তাদের উপর আজাব আসে। যার ফলে তারা মৃত্যু বরণ করে। মুসা আলাইহিস সালাম তাদের জন্য দোয়া করলে আল্লাহ তাআলা তাদেরকে আবার জীবিত করে দেন।

বনি ইসরাইলি জাতির পূর্ববর্তী বাসস্থান সিরিয়া যখন আমালেকা জাতি কর্তৃক দখল হয়ে যায়, তখন আল্লাহ তাআলা বনি ইসরাইলকে জিহাদের নির্দেশ প্রদান করেন। তারা এ নির্দেশ পালনে অস্বীকৃতি জানালে বনি ইসরাইল আল্লাহর অসন্তুষ্টিতে পড়ে। এ ঘটনার অঞ্চলকে ময়দানে তীহ বলে। এ ময়দানে তীহে বনি ইসরাইল চল্লিশ বছর যাবত দিশেহারা অবস্থায় অতিবাহিত করে। তারা প্রতিদিন সকালে মালামাল নিয়ে এ অঞ্চল ত্যাগ করতে যাত্রা শুরু করে, কিন্তু সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসলে দেখে যেখান থেকে যাত্রা শুরু করেছে তারা সেখানেই রয়েছে। আল্লাহ তাআলার নাফরমানির কারণেই তারা এ অবস্থার সম্মুখীন হয় এবং প্রচণ্ড সূর্যতাপ এবং অনাহারে তাদের জীবন অতিষ্ঠ হয়ে ওঠে।

এ অবস্থায় হজরত মুসা আলাইহিস সালামের দোয়ার বরকতে আল্লাহ তাআলা তাদের ছায়া দান করেন। এ ছায়া ছিল তাদের প্রতি আল্লাহ তাআলা অশেষ অনুগ্রহ। তাছাড়া আল্লাহ তাআলা তাদের ক্ষুধা নিবারণের জন্য মিষ্টি জাতীয় সুস্বাদু খাদ্য এবং ভুনা গোশত অর্থাৎ মান্না ও সালওয়া দান করেন।

এ ঘটনার উল্লেখ হচ্চে উম্মাতে মুহাম্মাদির জন্য শিক্ষা। সুতরাং আল্লাহ তাআলার নাফরমানিতে থেকে বিরত থাকতে হবে। আল্লাহর বিধি-বিধান মেনে চলতে হবে। নতুবা আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে কঠিন বালা-মুসিবতের মুখোমুখি হতে হবে। আল্লাহ তাআলা উম্মতে মুসলিমাকে তাঁর বিধি-বিধান যথাযথ মেনে চলার তাওফিক দান করুন। আমিন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩