বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

ইউপি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী চূড়ান্ত

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৩৪ পিএম

ইউপি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী চূড়ান্ত

বিশেষ প্রতিনিধি

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ (ইপি) নির্বাচনে ৭১৮ জন প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে বিএনপি। এরমধ্যে জোট শরিকদের ১৫টিতে ছাড় দেয়া হয়েছে। এছাড়া ২০টিতে প্রার্থী পাওয়া যায়নি বলে বিএনপি সূত্রে জানা গেছে।

রবিবার রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত দলীয় প্রার্থীদের মধ্যে বিতরণ করা হয় প্রায় ৬৯২টি মনোনয়ন ফরম। রাতের মধ্যেই বাকি ইউপিতে মনোনয়ন ফরম বিতরণ শেষ হয়ে যাবে বলে গেছে। তবে ২০টি ইউপিতে বিএনপির মনোনয়ন ফরম নিতে আগ্রহ দেখাননি দলের কোনো নেতা এগুলোতে স্থানীয়ভাবে সমন্বয় করে জোট থেকে প্রার্থী দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়ে।

এদিকে দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০ দলীয় জোটের শরিক দলগুলোকে ১৫টি ইউপিতে ছাড় দেবে বিএনপি। মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার পর স্থানীয়ভাবে ওইসব ইউপিতে শরিক দলগুলোর সঙ্গে সমঝোতা করা হবে। এছাড়া যে ২০টিতে দলীয় প্রার্থী পাওয়া যায়নি সেগুলোতেও জোটের সঙ্গে সমন্বয় করা হবে। গত কয়েকদিন ধরেই ইউপি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী চূড়ান্ত করার কাজটি তত্ত্বাবধান করছেন দলের যুগ্ম মহাসচিব মো. শাহাজাহান। রবিবারও সারাদিন তার নেতৃত্বে দলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-প্রচার সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ও সহদপ্তর সম্পাদক শামিমুর রহমান শামীমের সহায়তায় প্রার্থী মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হয়।

এ বিষয়ে সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স রবিবার রাত সাড়ে ১১টায় সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা প্রথম ধাপের ইউপি ৭১৮ জন প্রার্থী চূড়ান্ত করেছি। রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ৬৯২ জন প্রার্থীকে দলের মনোনয়ন ফরম বিতরণ করেছি। আশা করছি রাতের মধ্যেই বাকিগুলোর শেষ হয়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘১৫-২০টি ইউপিতে দলের কোন প্রার্থী আগ্রহ দেখাননি। ওইসব এলাকায় যারা চেয়ারম্যান প্রার্থী হবেন ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের নির্যাতনের ভয়ে তারা কেউই এলাকায় ভিড়তে পারছেন না। সবাই এলাকার বাইরে নিরাপদ জায়গায় অবস্থান করছেন। তাদের প্রাণনাশের হুমকি রয়েছে বলে আমাদের কাছে জানিয়েছেন তারা।

তিনি আরও বলেন, ‘জোটের শরিকদলগুলোকে ১৫টি ইউপিতে ছাড় দেয়া হবে। স্থানীয়ভাবে ওইসব ইউপিতে সমন্বয় করা হবে।’

এদিকে গত শুক্রবার থেকে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে মনোনীত প্রার্থীদের কাছে প্রতীক বরাদ্দের প্রত্যয়নপত্র দেয়ার কাজ শুরু করে বিএনপি। দলের পক্ষে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর দলীয় প্রতীক ধানের শীষ প্রদানের জন্য প্রত্যয়নপত্রে স্বাক্ষর করেন। ওই রাতেই ২০ দলীয় জোটের বৈঠকের পর মির্জা আলমগীর বগুড়ার দুপচাঁচিয়ার তালোরা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে মোজাফফর হোসেন খন্দকারের হাতে ধানে শীষের প্রতীক বরাদ্দে প্রত্যয়নপত্র তুলে দেন।

জানা গেছে, গতকাল ঢাকা বিভাগের মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে ১০টি ইউনিয়ন, টাঙ্গাইলের নাগরপুরে ১২টি, কিশোরগঞ্জ সদরে ১টি, নেত্রকোনার খালিয়াজুড়িতে ৬টি, ঢাকার দোহারে ৫টি, নরসিংদীর পলাশে ২টি, শেরপুরের নালিতাবাড়িতে ১২টি, গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ৫টি ময়মনসিংহের ফুলপুরে ১০টি এবং মাদারীপুরের শিবচরে ১৬টি সহ সারা দেশে প্রথম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৭১৮টি ইউনিয়নে বিএনপির প্রার্থী চূড়ান্ত করা হয়েছে।

এরআগে গত শুক্রবার ইউপি নির্বাচন প্রসঙ্গে ২০ দলীয় জোটের মহাসচিবদের নিয়ে বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে বৈঠক হয়। ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত তুলে ধরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, বৈঠকে ইউপি নির্বাচনে ২০দলীয় জোট ঐক্যবদ্ধভাবে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কারণ জোট মনে করে, সরকার একতরফাভাবে দলীয় প্রতীকে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (ঢাকা বিভাগ) অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ বলেন, রবিবার ঢাকা বিভাগের জেলাগুলোর বিভিন্ন ইউনিয়নে প্রার্থী চূড়ান্ত মনোনয়ন দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী প্রথম ধাপে আগামী ২২শে মার্চ ৭১৮টি ইউনিয়নে ভোট হওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া ৬ ধাপে ৪ হাজার ২৭৯ ইউপিতে নির্বাচন শেষ করবে নির্বাচন কমিশন।

সোনালীনিউজ/এমএইউ

add-sm
Sonali Tissue
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩