শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

ইবোলামুক্ত হবে গিনি

আপডেট: ১৫ জুন ২০১৬, বুধবার ১২:০৯ পিএম

ইবোলামুক্ত হবে গিনি

স্বাস্থ্য রিপোর্টার
গিনিকে ইবোলামুক্ত ঘোষণা করতে যাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। দেশটিতে ইবোলা মহামারি ছড়িয়ে পড়ার দুইবছর পর এই পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে সংস্থাটি।
বিবিসি বলছে, গিনির জনগণ ডব্লিউএইচও-এর এই ঘোষণাকে কনসার্ট ও আতশবাজি পুড়িয়ে স্বাগত জানানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।
প্রাণঘাতী এই রোগে আক্রান্ত হয়ে গিনিতে অন্ততপক্ষে ২৫০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। প্রতিবেশী দেশ সিয়েরা লিওন ও লাইবেরিয়াতে মারা গেছেন অন্ততপক্ষে ৯ হাজার মানুষ।
সিয়েরা লিওনকে চলতি বছরের নভেম্বরে ইবোলামুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু এরআগে সেপ্টেম্বর মাসে লাইবেরিয়াকে ইবোলামুক্ত ঘোষণার পর আবারও ইবোলা আক্রান্ত রোগী সন্ধান পাওয়া যায়।
ইবোলা আক্রান্ত শেষ রোগীর সন্ধান পাওয়ার পর দুই দফায় ২১ ও ২১ মোট ৪২ দিনের পর্যবেক্ষণের মধ্যে আর কোনো রোগীর খোঁজ পাওয়া না গেলে সেই দেশকে মানুষ থেকে মানুষে ইবোলা সংক্রমণ মুক্ত বলে ঘোষণা করা হয়।
ইবোলার কারণে গিনির ৬,২২০ শিশু তাদের বাবা-মা’র কোনো একজন কিংবা উভয়কেই হারিয়েছে বলে জাতিসংঘ জানিয়েছে।
গিনির সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে এই রোগ বড় ধরনের প্রভাব রেখেছে।
রোগটির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে শতাধিক স্বাস্থ্যকর্মী প্রাণ হারিয়েছেন। জানা গেছে, রোগটি থেকে বেঁচে যাওয়াদের অনেকেই এখনো এই ভাইরাসের দীর্ঘমেয়াদী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার আশঙ্কায় রয়েছেন।
নভেম্বরে দেশটিতে পুনর্বার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর প্রেসিডেন্ট আলফা কন্ডে স্বাস্থ্যখাতের বাজেট দ্বিগুণ করেন।
দেশটির দরিদ্র শ্রেণীর মানুষেরা সরকারি স্বাস্থ্যসেবার প্রতি আস্থাশীল ছিলেন না। দেশটিতে ইবোলা এত ব্যাপক বিস্তার লাভ করার অন্যতম একটি কারণও এটি।
সোনালীনিউজ/ঢাকা