সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

ইয়াহুদিরা চরম মিথ্যাবাদী

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৯ পিএম

ইয়াহুদিরা চরম মিথ্যাবাদী

সোনালীনিউজ ডেস্ক

আল্লাহ তাআলা পবিত্র গ্রন্থ কুরআনসহ বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে পৃথিবীতে পাঠানোর পর তৎকালীন সময়ের সকল ইয়াহুদি তাওহিদের দাওয়াত পেয়ে বলতে থাকে আমরা তাওরাতের অনুসারী। তাওরাতই আমাদের জন্য যথেষ্ট। আমাদের কুরআন এবং মুহাম্মাদের (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) প্রতি ঈমান আনার কোনো প্রয়োজন নাই। আল্লাহ বলেন, তারা তাদের এ কথায় মিথ্যাবাদী। কুরআনতো পূববর্তী সকল গ্রন্থের সত্যতা প্রতিপাদনকারী। বরং তাদের সকলের গ্রন্থে কুরআন এবং বিশ্বনবির আগমনের সুসংবাদ ছিল। যার অপেক্ষায় তারাও ছিল। তাই আল্লাহ তাআলা তাদের মিথ্যা দাবির কথা উল্লেখ করে বলেন-

যখন তাদের বলা হয়, আল্লাহ যা কিছু নাজিল করেছেন তার ওপর ঈমান আন। তারা বলে, আমরা কেবল আমাদের এখানে (বনি ইসরাইলের মধ্যে) যা কিছু নাজিল হয়েছে তার ওপর ঈমান আনি। এর বাইরে যা কিছু এসেছে তার প্রতি ঈমান আনতে তারা অস্বীকৃতি জানাচ্ছে। অথচ তা সত্য এবং তাদের কাছে পূর্ব থেকে যে শিক্ষা ছিল তার সত্যতার স্বীকৃতিও দিচ্ছে। তাদেরকে বলে দাও, যদি তোমরা তোমাদের ওখানে যে শিক্ষা নাজিল হয়েছিল তার ওপর ঈমান এনে থাকো, তাহলে ইতিপূর্বে আল্লাহর নবিদেরকে (যারা বনি ইসরাইলিদের মধ্যে জন্ম নিয়েছিল) হত্যা করেছিলে কেন?

এবং নিশ্চয় মুসা উজ্জ্বল নিদর্শনাবলীসহ তোমাদের নিকট উপস্থিত হয়েছিল, অনন্তর তোমরা তার পরে গো-বৎস গ্রহণ করেছিল, যেহেতু তোমরা অত্যাচারী। (সুরা বাক্বারা : আয়াত ৯১-৯২)

এ আয়াতে বিশ্বনবির প্রতি ঈমান আনার কথা উল্লেখ করলে তারা তাওরাতের অনুসারী বলে কুরআন এবং বিশ্বনবির প্রতি ঈমান আনতে অস্বীকার করে। অথচ তাদের গ্রন্থ তাওরাত ও ইঞ্জিলসহ পর্ববর্তী সকল আসমানি গ্রন্থে কুরআন এবং বিশ্বনবির কথা আল্লাহ তাআলা উল্লেখ করেছেন। তারা তাওরাতের বিশ্বনবির আগমনের কথাকে অস্বীকার করে আল্লাহর কাছ থেকে মিথ্যাবাদী সাব্যস্ত হয়।

অথচ কুরআনের অন্যত্র এসেছে, ‘আহলে কিতাব তাঁকে (মুহাম্মাদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এভাবেই চেনে যেমন চেনে তারা তাদের সন্তান-সন্তুতিকে।’ সুতরাং তাঁকে অস্বীকার করার ফলে তাওরাত ও ইঞ্জিলের উপরও তাদের ঈমান রইলো না।

তাঁরা যদি তাওরাত ও ইঞ্জিলের প্রতি বিশ্বাসীই হতো তবে, তারা কেন তাদের নবিকে হত্যা করে। এতেই প্রমাণিত হয়, ইয়াহুদিদের ঈমান কুরআনের ওপরতো নেই-ই বরং তাওরাত-ইঞ্জিলসহ পূর্ববর্তী কোনো আসমানি গ্রন্থের ওপরই নেই। তারা চরম মিথ্যাবাদী।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে কুরআন ও মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ওপর পরিপূর্ণ ঈমান এনে ইসলামকে পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠা করতে তাওহিদের প্রচার-প্রসারে নিজেরদের জীবনকে উৎসর্গ করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩