শুক্রবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৮, ৩ কার্তিক ১৪২৫

এশিয়া কাপ শেষে সাকিবের হাতে অস্ত্রোপচার চায় বিসিবি

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৯ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার ০৯:০৭ পিএম

এশিয়া কাপ শেষে সাকিবের হাতে অস্ত্রোপচার চায় বিসিবি

ফাইল ছবি

ঢাকা: গত জানুয়ারিতে ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে ফিল্ডিং করতে গিয়ে বাঁহাতের কনিষ্ঠা আঙুলে চোট পান সাকিব আল হাসান। সেটি এখনও ভোগাচ্ছে বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ককে। এত দিন ইনজেকশন নিয়ে খেললেও পুরোপুরি চোটমুক্ত হতে অস্ত্রোপচার করাতে চান বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। কিন্তু আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে এশিয়া কাপ।

এশিয়া কাপের আগে সাকিবের হাতের আঙুলে অস্ত্রোপচার করা হলে অন্তত ছয় সপ্তাহ মাঠের বাইরে থাকতে হবে। সেক্ষেত্রে এশিয়া কাপে এই অলরাউন্ডারকে পাবে না বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। আর সে কারণে এশিয়া কাপের পরে সাকিবের অস্ত্রোপচার করাতে চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) সকালে দেশে ফিরে সাকিব আল হাসান বলেন, এশিয়া কাপের আগেই হতে পারে তার হাতের অস্ত্রোপচার। তবে বিকালে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দিয়েছেন ভিন্ন মত। ওর সার্জারি এশিয়া কাপের আগেও হতে পারে, জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময়েও হতে পারে। আজকে কোচের সঙ্গে কথা হয়েছে, ও বলেছে এশিয়া কাপের কথা। আমি বলেছি এশিয়া কাপের চেয়ে ভালো হয় আমরা জিম্বাবুয়ে সিরিজের সময় যদি করতে পারি। তাতে নতুন কিছু ক্রিকেটারও দেখতে পারবো আমরা।’

সাকিবকে এশিয়া কাপে চাওয়ার কারণটা ব্যাখ্যা করেছেন বিসিবি সভাপতি, ‘এশিয়া কাপ এমনিতেই এবার কঠিন হবে। তার ওপর সাকিবের মতো একজন ক্রিকেটার না খেললে দলের প্রেরণা আরও নেমে যেতে পারে। আজ-কালকের মধ্যে সাকিবের সঙ্গে কথা বলবো। আমার মনে হয়, অন্য সময় করাটাই ভালো হবে। সাকিবের সঙ্গে আলাপ করে বিষয়টি চূড়ান্ত করা হবে।’

সার্জারি মানেই দীর্ঘ বিরতি। এই সময়ে সাকিবের মতো একজনকে না পাওয়াটা দুশ্চিন্তার। বিসিবি সভাপতি সেই দুশ্চিন্তা গোপন করলেন না, ‘সাকিব আমাকে ফোন করেছিল। বলেছিল যে হাতে অপারেশন করাতে হবে। হেড কোচও ওখান থেকে ফোন করেছিল। কারণ ব্যাটিংয়ে যে শক্তি ওর দরকার, সেটা পাচ্ছে না। ইঞ্জেকশন নিয়ে তাকে খেলতে হচ্ছে। কিন্তু অপারেশন হলে অন্তত ছয় সপ্তাহের বিরতি দরকার। এত লম্বা বিরতি পাওয়াটা কঠিন। ওকে ছাড়া খেলা আমরা চিন্তাই করতে পারছি না।’

চলতি বছরের শুরুতে ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে শ্রীলংকার বিপক্ষে ফিল্ডিং করতে গিয়ে আঙুলে ব্যথা পান সাকিব। ফলে লংকানদের বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি মিস করেন তিনি। এরপর নিদাহাস ট্রফির শেষ দুই ম্যাচে মাঠে নামেন। পরে আফগানিস্তান সিরিজের পর ক্যারিবীয় সফরে গেলে ফের সেই ব্যথা দেখা দেয়। তাই ব্যথানাশক ইনজেকশন দিয়ে খেলেন এ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/জেডআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue