মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ, ২০১৭, ১৩ চৈত্র ১৪২৩

ওবামার কান্না নিয়ে উল্টো প্রশ্ন

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৪৩ পিএম

ওবামার কান্না নিয়ে উল্টো প্রশ্ন

সোনালীনিউজ ডেস্ক
এই তো ক’দিন আগের কথা। আমেরিকায় বন্দুকধারীর উপদ্রব নিয়ে হোয়াইট হাউসে এক জমায়েতের সামনে কেঁদে ভাসিয়েছিলেন বারাক ওবামা। আবেগপ্রবণ হলেও, এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে এভাবে প্রকাশ্যে ভেঙে ‍‍পড়তে দেখেননি কেউ। মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই ‘মানবিক মুখ’ নিয়ে যখন মার্কিন মুলুকে এখনও আলোচনা চলছে, ঠিক সেই সময়ে প্রশ্ন উঠল, সেদিন কী আদৌ কেঁদেছিলেন ওবামা? নাকি সবটাই ভান? প্রেসিডেন্টের অশ্রু বর্ষণের মূলে এক টুকরো কাঁচা পেঁয়াজ নয় তো? তাবৎ মার্কিনির মনে এই সন্দেহ ঢুকিয়েছেন যিনি, তিনি ‘ফক্স টিভি’–র এক সঞ্চালক। অান্দ্রেয়া তান্তারস নামের ওই মহিলা সঞ্চালক ‘ফক্স টিভি’–র এক লাইভ শো–তে রাখঢাক না করে বলেছেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্টের আচরণ একেবারেই বিশ্বাসযোগ্য নয়! উনি যেই মঞ্চে দাঁড়িয়ে শোক প্রকাশ করছিলেন, পারলে সেখানে দেখতাম পেঁয়াজের টুকরো পড়ে আছে কিনা! অান্দ্রেয়ার সঙ্গে তাল মিলিয়ে সহসঞ্চালক মেলিসা ফ্রান্সিসও ওবামার মুণ্ডপাত করেন। বলেন, প্রেসিডে‍ন্টের আবেগতাড়িত হওয়া অত্যন্ত খারাপ অভিনয় ছাড়া কিছুই নয়! ৫ জানুয়ারি হোয়াইট হাউসের ইস্ট রুমে সেদিন ২০১২–য় কানেটিকাটের একটি স্কুলে বন্দুকবাজদের হামলায় ২০টি শিশুর মৃত্যুর প্রসঙ্গ তুলে চোখের জল ফেলেছিলেন ওবামা। সেই ঘটনার প্রেক্ষিতে মেলিসা ফ্রান্সিস যোগ করেন, ‘বাচ্চাদের জন্য খুবই খারাপ লাগছে। কিন্তু প্রেসিডেন্টকে দেখেছি, শুধু এই বিষয়টিই বিচলিত করে। সন্ত্রাসের ব্যাপারে উনি চুপচাপ!’ অান্দ্রেয়া বা মেলিসা শুধু নন। এর আগে ওবামার প্রকাশ্যে ভেঙে পড়ার ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন আমেরিকার প্রতিরক্ষা গবেষক লেফটান্যান্ট কর্নেল রাল্ফ পিটার্স। এ–ও বলেন যে, ওবামা নাকি আই এস–কে ভয় পান। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে তুলোধোনা করেন স্টেসি ড্যাশ। দুজনকেই দু’সপ্তাহের জন্য সাসপেন্ড করে ‘ফক্স টিভি’। এবার মুখ খুলেছেন তাদেরই দুই সঞ্চালক। এবার ওঁদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেন কর্তৃপক্ষ, সেটাই দেখার। সূ্ত্র: আজকাল

Sonali Bazar

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
add-sm
Sonali Tissue
মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ, ২০১৭, ১৩ চৈত্র ১৪২৩