রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

কোপায় চিলিকে হারিয়ে প্রতিশোধ আর্জেন্টিনার

স্পোর্টস ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

কোপায় চিলিকে হারিয়ে প্রতিশোধ আর্জেন্টিনার

দলের সবচেয়ে বড় তারকার অনুপস্থিতি বুঝতে দিলেন না আনহেল দি মারিয়া আর এভার বানেগা। এই দুই জনের দারুণ দুটি গোলে চিলিকে হারিয়ে কোপা আমেরিকায় দুর্দান্ত শুরু করেছে আর্জেন্টিনা। বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা লড়াইয়ে নিজেদের শক্তিমত্তা জানিয়ে রাখলো ২৩ বছর ধরে অপেক্ষায় থাকা আর্জেন্টিনা।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার সকাল আটটায় শুরু হওয়ার ম্যাচের শুরুর একাদশে চোট থেকে মাত্রই সেরে ওঠা বার্সেলোনার তারকা ফরোয়ার্ড মেসি রাখার ঝুঁকি নেননি কোচ জেরার্দো মার্তিন। সাইড বেঞ্চে বসে দলের প্রথমার্ধের খেলা দেখে খানিকটা হতাশ হতেই পারেন বার্সেলোনার তারকা ফরোয়ার্ড। তবে দ্বিতীয়ার্ধে আক্রমণাত্মক খেলায় শেষ পর্যন্ত সহজ জয়ই উপহার দেয় তার সতীর্থরা।

ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা ক্লজে ম্যাচের ৩ মিনিটে এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। মার্কোস রোহোর দারুণ পাস থেকে দারুণ শট নিয়েছিলেন মেসির বদলি হিসেবে নামা নিকোলাস গাইতান। তবে তার শটটি বারে লেগে ফিরে আসে। খেলার ৯ মিনিটে গাইতান দারুণ এক পাস দেন ডি মারিয়াকে। কিন্তু বল পোস্টের বাইরে মারেন পিএসজি ফরোয়ার্ড।

আর্জেন্টাইন রক্ষণের ভুলে ২৯ মিনিটে গোলের সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিলেন অ্যালেক্সিস সানচেজ। রক্ষণভাগের খেলোয়াড় ফুনেস মোরি সানচেজকে ব্লক না করে গোলে শট নেওয়ার সুযোগ করে দেন। দুর্দান্ত শটও নিয়েছিলেন সানচেজ। তবে কোনওরকম ঝাপিয়ে আলতো করে হাত ছুঁইয়ে আর্জেন্টিনাকে সে যাত্রায় বাঁচিয়ে দেন গোলরক্ষক রোমেরো।

৩৩ মিনিটে আবারও সানচেজের একটি প্রচেষ্টা রুখে দেন রোমেরো। গোল পোস্টের ৩০ গজ বাইরে ‌‌‌থেকে ফ্রি কিক নিয়েছিলো সানচেজ। দারুণ প্লেসমেন্টও করেছিলেন। তবে বলের গতিপথ রুখে দেন রোমেরো।

৪১ মিনিটে আবারও গোলবারের ওপর দিয়ে বল মারেন গাইতান। রোহো ও গাইতান একে অন্যের সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ানে মেক্সিকোর রক্ষণে হানা দেন। শেষ পর্যন্ত তার শটটি গোলবারের ওপর দিয়ে গেছে। ফলে ০-০ স্কোর নিয়ে বিরতিতে যায় উভয় দল।

বিরতির পরই যেন অন্য আর্জেন্টিনার দেখা মেলে। ৫০ মিনিটে সমর্থকদের আনন্দে ভাসান পিএসজি ফরে‌‌‌ায়ার্ড ডি মারিয়া। মাঝমাঠে প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়ের কাছ থেকে দারুণ দক্ষতায় বল কেড়ে নেন এভার বানেগা। কিছুটা লম্বা পাস বাড়ান ডি মারিয়ার দিকে। গোলপোস্টের কাছকাছি জায়গায় বল পেয়ে যান ডি মারিয়া। সেখান থেকে নিখুঁত শটে জলে বল জড়ান তিনি।

৫৯ মিনিটে ২-০ গোলের লিড নেয় আলবেসিলেস্তরা। আবারও বানেগা-ডি মারিয়া জুটি। তবে এবার গোলদাতা বানেগা। এসিস্ট করেন ডি মারিয়া। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে একটি গোল শোধ করেন চিলির ফ্যাবিয়েন অ্যারিয়েল ফুয়েনজালিদা। ফলে ২-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে আর্জেন্টিনা।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩