শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭, ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য জাতীয় পার্টির সৃষ্টি’

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য জাতীয় পার্টির সৃষ্টি’

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য জাতীয় পার্টির সৃষ্টি হয়েছিল বলে জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ। শনিবার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন প্রাঙ্গণে দলের অষ্টম জাতীয় কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশনে এ কথা বলেন তিনি।

এর আগে আজ শনিবার সকাল ১০টায় সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। কাউন্সিলদের ভোটে ফের জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান পুনঃনির্বাচিত হন তিনি। এছাড়া রওশন এরশাদকে সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান, জি এম কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান ও এ বি এম রুহুল আমীন হাওলাদারকে মহাসচিব পদে অনুমোদন দেওয়া হয়।

আজ রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে জাতীয় পার্টির অষ্টম কাউন্সিলে দলটির প্রধান পদে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। দুপুর ১২টার পরে সম্মেলনের কাউন্সিলের অধিবেশন শুরু হয়।

অধিবেশনে এরশাদ বলেন, ১৯৮২ সালে তার ওপর রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দেওয়া হয়েছিল। সেনাপ্রধান হিসেবেই তার ওপর দায়িত্ব এসেছিল। তখন যে কেউ সেনাপ্রধান থাকলে তার ওপর ওই দায়িত্ব আসত।

এরশাদ দাবি করেন, গণতন্ত্র ফিরিয়ে দিয়ে তিনি ব্যারাকে ফিরে যেতে চেয়েছিলেন। এজন্য ৮৪ সালে নির্বাচন দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রধান প্রধান দলগুলো সে নির্বাচনে অংশ নেয়নি বলে তিনি ব্যারাকে ফিরে যেতে পারেননি।

জাতীয় সংসদে নির্বাচন পদ্ধতির সংস্কারের দাবি জানিয়ে এরশাদ বলেন, নির্বাচন হতে পারে দলের ভিত্তিতে, অর্থাৎ ভোটাররা সরাসরি দলকে ভোট দেবে, প্রার্থীকে নয়। এ পদ্ধতিতে নির্বাচন হলে নির্বাচনকেন্দ্রিক সহিংসতা হবে না। বর্তমানে যেভাবে বাংলাদেশে সরকার গঠিত হয়, তাতে কোনো দলই ৫০ শতাংশের ওপরে ভোট পায় না। কিন্তু তারা সরকার গঠন করে।

এ সময় জাতীয় পার্টি ছেড়ে যাওয়া নেতাদের আবার দলে ফিরে আসারও আহ্বান জানান এরশাদ।

অধিবেশনে জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান রওশন এরশাদ, কো-চেয়ারম্যান জি এম কাদের, মহাসচিব রুহুল আমিন হাওলাদার প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আমা