রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

গিড়া ব্যাথার সাধারণ চিকিৎসা

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৬ পিএম

গিড়া ব্যাথার সাধারণ চিকিৎসা

সোনালীনিউজ ডেস্ক

শরীরের যে কোনও জয়েন্টে বা আশেপাশে যন্ত্রণা হলে তাকে জয়েন্ট ব্যাথা বলে। সাধারণত হাতের কব্জি, হাটু, কনুই, হাত এবং পায়ের আঙ্গুল, গলা,কাধ, গোড়ালি, মেরুদন্ড জয়েন্টে এই সমস্যা দেখা দেয়। জয়েন্ট ব্যাথার কোনও কারণ নেই। নানা কারণেই এই ব্যথা হতে পারে।

সাধারণত আঘাত বা অস্টিও আর্থ্রাইটিসের মতো রোগ হলে এই ব্যথা হতে দেখা যায়। বয়স্কদের অনেকেই এ রোগের শিকার হন। কষ্টকর ও অসহনীয় এর ব্যথা। ব্যথা অনুযায়ী নানারকম সিম্পটম দেখা যায়।

জয়েন্টের কোন কোন জায়গায় অসহ্য ব্যথা হয়, ফুলে যায়, স্টিফ হয়ে যায়। কখনও কখনও জায়গাটা লাল হয়ে যায়। ব্যথার সোর্সকে চিহ্নিত করা যায় না সহজে। তিনদিনের বেশি ব্যথা, ব্যথা ক্রমশ বাড়লে এবং অন্য জয়েন্টে ছড়ালে, জ্বর আসলে ও ওজন কমলে ডাক্তার দেখানো জরুরি।

জয়েন্ট পেইনের সাধারণ চিকিৎসাগুলো হল বিশ্রাম নেয়া, গরম পানির সেক, ব্যায়াম ও ম্যাসাজ। প্রয়োজনে ফিজিও থেরাপিস্টের কাছেও যেতে হতে পারে। আর এর শেষ চিকিৎসা সার্জারি।

ব্যথা কমাতে প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে রসুন। রসুনের কোয়া কুচি করে কেটে নিয়ে অল্প গরম তেলে মিশিয়ে জয়েন্টে ম্যাসেজ করলে বেশ আরাম পাওয়া যায়। আদাও ব্যথানাশক ভেষজ। প্রতিদিন অল্প পরিমাণ আদা চিবিয়ে খাওয়ার অভ্যাস করুন এতে শুধু আর্থ্রাইটিস নয়, শরীরের সব ধরনের ব্যথা থেকেও মুক্তি পাওয়া সম্ভব। আর্থ্রাইটিস, পোড়া বা আঘাতজনিত ব্যথা কমাতে হলুদের ব্যবহার অপরিসীম। ব্যথার স্থানে হলুদের মিশ্রণ লাগিয়ে রাখতে পারেন।

শরীরের ভিটামিন-ডি এর মাত্রা কমে গেলে শরীরে ব্যথা অনুভব হয়। ভিটামিন-ডি রয়েছে এমন খাবার খান আর গায়ে রৌদ পোহান ভিটামিন ডি এর ঘাটতি কমিয়ে ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে।

মাছের তেলের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড মাথা, পিঠ, স্নায়ু ও রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিসের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

ব্যথা কমাতে ফলের ব্যবহারও অপরিসীম। আঙ্গুর ফলের রস শরীরের রক্তের সঞ্চালন বাড়াতে সাহায্য করে। তাই জয়েন্টের ব্যথা সারাতে প্রতিদিন পান করতে পারেন এক কাপ আঙ্গুরের রস। আনারসে রয়েছে প্রচুর ব্রোমেলেইন, যা পেশিতে টান ধরা এবং প্রদাহ কমানোর পাশাপাশি রক্ত সঞ্চালনও বাড়িয়ে থাকে। চেরিতে রয়েছে অ্যানথোসায়ানিন উপাদান যা ব্যথা কমাতে সহায়তা করে। তাই ব্যথা থাকাকালীন কিছুদিন নিয়মিত চেরি ফল খেতে পারেন।

সোনালীনিউজ/এন

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩