শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

‘গুপ্ত হত্যার দায়ে খালেদা জিয়ারও একদিন বিচার হবে’

সিলেট প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

‘গুপ্ত হত্যার দায়ে খালেদা জিয়ারও একদিন বিচার হবে’

তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, চল্লিশ বছর পর দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হচ্ছে। জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসি হয়েছে। তেমনি মানুষ পোড়ানো, গুপ্ত হত্যার জন্য খালেদা জিয়ারও একদিন বিচার হবে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, চক্রান্তের রাজনীতি জিইয়ে রাখতেই একটা ছকে গুপ্ত হত্যা চালানো হচ্ছে। তিনি বলেন, এই ছকেই ব্লগার, প্রকাশক, শিক্ষক, ইমাম ও পুরোহিতসহ সাধারণ মানুষ খুন হচ্ছে। তথ্যমন্ত্রী দেশে সাম্প্রতিক গুপ্ত হত্যার জন্য খালেদা জিয়াকে দায়ী করেন।

তিনি আজ বুধবার বিকেলে সিলেট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জেলা জাসদের কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

সিলেট জেলা জাসদের সভাপতি লোকমান আহমদের সভাপতিত্বে কর্মীসভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু। এছাড়া কেন্দ্রীয় নেতা বীর উত্তম সার্জেন্ট রফিকুল ইসলাম, জাসদ ঢাকা উত্তর সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নেতা সফি উদ্দিন মোল্লা, সুনামগঞ্জ জেলা জাসদ সভাপতি আ.ত.ম সালেহ ও সিলেট জেলা জাসদ নেতা, মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট রফিকুল হক বক্তব্য রাখেন।

হাসানুল হক ইনু বলেন, সরকার উৎখাতের জন্যে খালেদা জিয়া ৯৩ দিন আগুন যুদ্ধ চালিয়ে অনেক নিরীহ মানুষকে হত্যা ও রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বংস করেছেন।বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে জঙ্গিবাদের পাহারাদার এবং বিএনপিকে জঙ্গিবাদ ও আগুন সন্ত্রাসী উৎপাদনের কারখানা বলে অভিহিত করেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, শান্তি, সমৃদ্ধি এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য জাসদ কাজ করছে। জাসদ সব সময় দেশের স্বার্থে, জাতীর স্বার্থে ঐক্য করে। আমরা ঐক্যের মধ্যেই আছি।

তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যদি জঙ্গি আর আগুন সন্ত্রাসীদের নিয়ে দেশ দখল করেন; তবে দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত হবে। আবার পিছনে দিকে যাবে দেশ। আর তাই খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে রাজনীতি থেকে বর্জন করতে হবে।

ইনু আরও বলেন, আমি সত্যি কথাটাই মুখের উপর বলতে পারি। খালেদা জিয়া জঙ্গি ও আগুন সন্ত্রাসীদের পাহারাদার। আর বিএনপি হচ্ছে জঙ্গি ও আগুন সন্ত্রাসী উৎপাদনের কারখানা। ২০১৯ সালের সংসদ নির্বাচন সম্পর্কে ইনু বলেন, জাতির ভাগ্য আবার নির্ধারণ হবে ঐ নির্বাচনে। সুশাসন, শান্তি ও সমৃদ্ধির জন্য বেগম জিয়া ও বিএনপি-জামায়াতকে বর্জন করতে হবে।

এর আগে সকালে সিলেটে পৌঁছলে তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আইন নিজের হাতে তুলে নেয়ার অধিকার কারও নেই। নারায়ণগঞ্জের শিক্ষককে লাঞ্ছনার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানায়। মন্ত্রী বলেন, যারা আইন নিজের হাতে তুলে নিয়ে এই অপকর্ম করেছে তাদেরকে সরকার এক চুলও ছাড় দেবে না।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/মে

 

add-sm
Sonali Tissue
শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩