রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৭, ৯ মাঘ ১৪২৩

গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে বিটিআরসির অভিযোগ

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৮ পিএম

গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে বিটিআরসির অভিযোগ

সোনালীনিউজ ডেস্ক

গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে ইনফ্রাস্ট্রাকচার শেয়ারিং গাইডলাইন অমান্য করার অভিযোগ তুলেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। গ্রামীণফোন এবং তাদের পার্টনার প্রতিষ্ঠান এডিএন টেলিকম ও অগ্নি সিস্টেমসের কাছে পাঁচটি অনিয়ম করে ‘গো ব্রডব্যান্ড’ সেবা বাজারে চালিয়ে নেওয়ার অভিযোগের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। সম্প্রতি এক চিঠিতে বিটিআরসি এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছে।

বিটিআরসি’র ইনজিনিয়ারিং অ্যান্ড অপারেশন্স বিভাগের সিনিয়র সহকারি পরিচালক মো. নাহিদুল হাসান স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, ৬টি বিষয়ে তথ্য উপস্থাপন করতে হবে গ্রামীণফোন, এডিএন এবং অগ্নি সিস্টেসকে। এর মধ্যে  রয়েছে, গো ব্রডব্যান্ড কি ধরনের সেবা দেয়া প্রতিষ্ঠান, এটি বিটিআরসির লাইসেন্স প্রাপ্ত কি না বা কোন ব্র্যান্ড হলে তা কমিশনকে অবহিত করা হয়েছে কি না।

বিটিআরসি বলছে, মূলত ৫টি বড় ধরনের অনিয়ম করেছে গ্রামীণফোন। প্রথমত গ্রামীণফোন ইনফ্রাস্ট্রাকচার শেয়ারিং গাইডলাইন অমান্য করেছে। গাইডলাইন অনুসারে তারা অনুমতি ছাড়া ইনফ্রাস্টকচার শেয়ার বা লিজ দিতে পারে না। দ্বিতীয়ত গ্রামীণফোন অন্য সব মোবাইলফোন অপারেটরের মতই কোন ওয়্যার কানেটিভিটি দিতে পারে না। তৃতীয়ত, তারা ফাইবার কানেকটিভিটি দিচ্ছে, সেটি তারা করতে পারে না, কারণ ফাইবার কানেকটিভিটি দেয়ার একমাত্র অধিকার রয়েছে এনটিটিএন অপারেটরদের!

জানা গেছে, গ্রামীণফোনের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ এনে গত ২৮ ফেব্রুয়ারি বিটিআরসির কাছে নালিশ করেছিল দেশীয় উদ্যোক্তাদের প্রতিষ্ঠান ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (আইএসপিএবি)। এরপর বিটিআরসি মাস খানেক নিরীক্ষার পর ব্যাখ্যা তলব করলো।

উল্লেখ্য, টেলিকম অ্যাক্ট ২০০১ (২০১০ সালে সংশোধীত) অনুসারে লাইসেন্সের শর্ত ভেঙ্গ করার জন্য অপারেটরটি আর্থিক জরিমানা এমনকি লাইসেন্স স্থগিত বা বাতিল করতে পারে কমিশন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

Sonali Bazar
add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ২২ জানুয়ারি, ২০১৭, ৯ মাঘ ১৪২৩