রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

চলে গেলেন ই-মেইলের জনক

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৬ পিএম

চলে গেলেন ই-মেইলের জনক

সোনালীনিউজ ডেস্ক

যারা চিঠি লিখে তথ্য আদান-প্রদান করেছেন তারা জানেন একটি চিঠি প্রিয়জনের কাছে পৌঁছতে কত দেরি হতো। আর চিঠি পাওয়ার অপেক্ষাও ছিলো অনেক কষ্টের। কিন্তু ইন্টারেনেটের প্রসার এবং ‘ই-মেইলের’ আবিস্কারের পর যে কাজ অনেকটা সহজ হয়ে গেছে।

দৈনন্দিন জীবনে, অফিসের কাজকর্ম থেকে শুরু করে পড়াশোনা, সব ক্ষেত্রেই হাল আমলে এই ইলেকট্রনিক মেইল তথা ‘ই-মেইল’-এর ব্যাপক ব্যবহার চলছে।

কিন্তু অনেকেই জানেন না, কে ছিলেন এর আবিষ্কর্তা। অনেকটা নিভৃতেই পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন ই-মেইলের জনক রে টমলিনসন।

গত শনিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়। রে টমলিনসনের বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে এ খবর।

রে টমলিনসন আদতে ছিলেন একজন সাধারণ কম্পিউটার প্রোগ্রামার। ১৯৭১ সালে তিনি এক নেটওয়ার্ক থেকে অন্য নেটওয়ার্কে ইলেকট্রনিক মেইল পাঠানোর পরিকল্পনা করেন।

ই-মেইল অ্যাড্রেসে আমরা যে ‘অ্যাট’ (@) চিহ্নটি ব্যবহার করি, সেটিও এই মার্কিন কম্পিউটার প্রোগ্রামারের মস্তিষ্কপ্রসূত ছিল। বলা চলে, প্রযুক্তিক্ষেত্রে রীতিমতো এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনে দিয়েছিলেন রে।

পৃথিবীর প্রথম ই-মেইলটিও পাঠিয়েছিলেন রে। যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনের ‘বোল্ট, বেরানেক অ্যান্ড নিউম্যান’ কোম্পানিতে কর্মরত থাকা অবস্থায় এই ই-মেইল পাঠান তিনি।

অবশ্য তাতে ঠিক কী লেখা ছিল, তা নিয়ে কখনই মুখ খোলেননি তিনি।

২০১২ সালে রে টমলিনসনকে তাঁর কাজের স্বীকৃতি হিসেবে ‘ইন্টারনেট হল অব ফেম’-এ অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

সোনালীনিউজ/আমা

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩