শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭, ৬ কার্তিক ১৪২৪

কমিটি ঘোষণার পরপরই বিভক্ত নেতৃত্ব

ছাত্রদলের সম্মেলন হয় না যে কারণে

সোনালী বিশেষ | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ০৫ অক্টোবর ২০১৭, বৃহস্পতিবার ১২:৪৫ পিএম

ছাত্রদলের সম্মেলন হয় না যে কারণে

ঢাকা: সরকারবিরোধী আন্দোলন চাঙা করার লক্ষ্যে ২০১৪ সালের অক্টোবরে রাজীব আহসানকে সভাপতি ও আকরামুল হাসানকে সাধারণ সম্পাদক করে ছাত্রদলের বর্তমান কমিটি ঘোষণা করেছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। কিন্তু কমিটি ঘোষণার পরদিন থেকে বিভক্ত হয়ে যায় সংগঠনটির নেতৃত্ব।

ঘোষিত কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করে মিছিলও করেছিল একটি অংশ। একপক্ষ আরেক পক্ষের ওপর হামলা, এমনকি নেতাদের অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনাও ঘটেছিল। এসব কারণে ছাত্রদলের রেওয়াজ থাকা সত্তে¡ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধাও জানাতে পারেনি সংগঠনটির এই কমিটির নেতারা।

সর্বশেষ নতুন কমিটির দাবিতে চলতি বছরের ১২ জুলাই রাতে খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ মিছিল করে পদ-প্রত্যাশী ছাত্রদল নেতারা। ওই দিন তারা সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করে।

ছাত্রদলের সম্মেলনের নতুন তারিখ ঘোষনা না হওয়া প্রসঙ্গে ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকও ছাত্রলীগ নেতৃত্বে মতো একই কথা বলছেন। তারা বলছেন, খালেদা জিয়া বা তারেক রহমানের নির্দেশ পেলেই সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হবে।

তবে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়া সংগঠনের অন্য নেতাকর্মীদের অভিযোগ, কমিটির মেয়াদ শেষে সম্মেলন করা দরকার-এটা দলীয় প্রধানের কাছে তুলে ধরছেন না সংগঠনের শীর্ষ দুই নেতা। বিষয়টি তারা বিভিন্নভাবে পাশ কাটিয়ে যাচ্ছেন।

ছাত্রদলের সম্মেলন না হওয়া প্রসঙ্গে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান বলেন, খালেদা জিয়া বললে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হবে। এ বিষয়ে ওনার সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তিনি অনুমতি দিলে সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হবে।

ছাত্রদলের সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট বলেন, কমিটির মেয়াদ শেষ, আমরা অবশ্যই সম্মেলন চাই। সম্মেলন হলে সংগঠন আরো নতুন নতুন নেতাকর্মী আসবে। সংগঠন আরও গতিশীল হবে বলে আমি মনে করি। একই কথা বললেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিয়া মো. রাসেল এবং সাহিত্য ও প্রকাশনা সম্পাদক মিনহাজুল ইসলাম ভ‚ইয়া।

কেন ছাত্রদলের সম্মেলন হচ্ছে না, এই প্রসঙ্গে সংগঠনটির কয়েকজন নেতা বলেন, ছাত্রদলের কমিটির দেখভাল করেন বিএনপির ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক। বর্তমানে দলটির এ পদে কোনও নেতা নেই। ফলে ছাত্রদলের বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ, নতুন করে সম্মেলন করা দরকার এ বার্তাটি নিয়ে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কিংবা সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের কাছে কেউ তুলে ধরতে পারছেন না।

এর বাইরে ছাত্রদলের কমিটি দেখভাল করতেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাবেক ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, সহ-ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব আমানউল্লাহ আমান, সাবেক যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ বেশ কয়েকজন নেতা।

বর্তমান ছাত্রদলের কমিটিতে এই নেতাদের কাছের ‘লোক’ থাকায় তারাও সম্মেলন নিয়ে তেমন একটা ভাবছেন না। এর বাইরে এই নেতারা বিএনপির নির্বাহী কমিটির বিভিন্ন পদে থাকায় সরাসরি কমিটি নিয়ে খালেদা জিয়া কিংবা তারেক রহমানকে কিছু বলতে পারেন না।

ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক না থাকায় আসলে কোন নেতার কাছে যাবেন, এ নিয়ে একটা দ্বিধাদ্বন্ধে আছেন আগামী কমিটিতে পদপ্রত্যাশীরা। এছাড়া, দল ক্ষমতায় না থাকায় পদপ্রত্যাশীরা হামলা-মামলার ভয়ে কোনও রকম শোডাউনে যেতেও ভয়ে পাচ্ছেন। এই দুর্বলতার সুযোগে বর্তমান কমিটির নেতারা সম্মেলন দিতে গড়িমসি করছেন বলে অভিযোগ পদপ্রত্যাশীদের।

আগে ছাত্রদলের কমিটির দেখভাল করতে এমন একজন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ছাত্রদলের সম্মেলন হওয়া না হওয়ার বিষয়টি নির্ভর করে তারেক রহমানের ওপর। তিনি চাইলে যেকোনও সময় সম্মেলন হতে পারে।

খালেদা জিয়া লন্ডন থেকে দেশে ফিরলে হয়তো ১ জানুয়ারি ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আগে সম্মেলন হতে পারে। না হলে আগামী নির্বাচনের আগে সম্মেলনের কোনও সম্ভাবনা নেই।

সোনালীনিউজ/জেডআরসি/এমটিআই

Sonali Bazar

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue