বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

জ্যামাইকায় ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন সাকিব-তামিমরা?

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১২ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার ০১:০২ এএম

জ্যামাইকায় ঘুরে দাঁড়াতে পারবেন সাকিব-তামিমরা?

ফাইল ছবি

ঢাকা: রাশিয়ায় বিশ্বকাপ চলছে বলে বাংলাদেশের ক্রিকেটের খোঁজখবর অনেকেই ঠিকঠাক নিচ্ছেন না। বিশ্বকাপ তো বাংলাদেশের কাছে আবেগের নাম। চার বছর পর পর যে আবেগের বেশিরভাগ জুড়েই রয়েছে ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনা। নকআউট পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছে মেসির আর্জেন্টিনা। নেইমারের ব্রাজিলকে কোয়ার্টারে বাড়ির পথ দেখিয়ে দিয়েছে বেলজিয়াম। তাই বাংলাদেশেরও বিশ্বকাপ শেষ।

এখন নিশ্চয় এদেশের মানুষ বাংলাদেশের ক্রিকেটের দিকেই মন দেবে। প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৪৩ রানে অলআউট হয়ে লজ্জায় অধোবদন হয়েছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। বৃহস্পতিবার থেকে জ্যামাইকার স্যাবাইনা পার্কে শুরু হতে চলেছে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। দেখার বিষয় এই টেস্টে সাকিব-তামিমরা কতটুকু লড়াই করতে পারে।

তামিম ইকবাল ও নুরুল হাসান সোহান জানিয়েছেন, অ্যান্টিগার দুঃস্বপ্ন দ্রুতই ভুলতে চান তাঁরা। এবার বাংলাদেশ দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশও জানালেন একই আশাবাদের কথা। বাংলাদেশের ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াইটা হবে ওয়ালসের ঘরের মাঠে। জ্যামাইকা তো ওয়ালসের বাড়ি-ই। এখানকার পানি-আবহাওয়া তাঁর সবই পরিচিত। বাংলাদেশ নিশ্চয় বাড়তি কিছু সুবিধা পাবে।

এখানে বাংলাদেশের ভালো করা ছাড়া বিকল্প কিছু নেই। আগের টেস্টে এক ইনিংস ও ১২৯ রানে হেরেছে সাকিবের দল। জ্যামাইকার স্থানীয় এক টিভি চ্যানেলকে ওয়ালশ বলেছেন, ‘প্রথম টেস্ট খারাপ হয়েছে। আমরা ভালো করতে পারিনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ভালো খেলছে। তবে দ্বিতীয় টেস্টে আমরা ভালো খেলার ব্যাপারে আশাবাদী।’

এই স্যাবাইনা পার্কেই ২০০১ সালে ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলেছিলেন ওয়ালশ। এটি তাঁর নিজের জন্মভূমিও। ৫১৯ উইকেটের পাহাড়ে উঠে নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের ইতি টেনেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এ কিংবদন্তি। স্যাবাইনা পার্ক তাই ওয়ালশের ক্যারিয়ারের জন্য বিশেষ স্মৃতি। সেই স্মৃতি দলের পেসারদের সঙ্গে ভাগ করে নিয়ে তাঁদের উদ্দীপ্ত করেছেন কি না—এই প্রশ্নের জবাবে ওয়ালশ বলেন, ‘হ্যাঁ, ওঁদের এই টেস্ট উপভোগ করতে বলেছি। বলেছি এটা পেসারদের জন্য বড় সুযোগ। নিজেদের প্রমাণ করো। আমি এই টেস্টের দিকে তাকিয়ে আছি।’

অ্যান্টিগার মতো স্যাবাইনা পার্কেও পেসবান্ধব উইকেটের প্রত্যাশা করছেন ওয়ালশ, ‘অবশ্যই অ্যান্টিগার মতো উইকেট প্রত্যাশা করছি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ তাঁদের সুবিধামতোই উইকেট বানাবে। এখানেও সিমিং উইকেটের প্রত্যাশা করছি।’

সোনালীনিউজ/আরআইবি/জেডআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue