মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

ঝিনাইদহে জমে উঠেছে ফুলের বাজার

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

ঝিনাইদহে জমে উঠেছে ফুলের বাজার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

বিশ্ব ভালবাসা দিবস উপলক্ষে ঝিনাইদহে জমে উঠেছে ফুলের বাজার। ফুল চাষিরা আশা করছেন, এ বছর ফুল উৎপাদন, চাহিদা ও দাম সবই বেশি হবে।

তাদের প্রত্যাশা, গতবারের তুলনায় এবার তারা দ্বিগুণ ফুল বিক্রি করতে পারবেন। এবার শুধু ঝিনাইদহ জেলা থেকে চলতি মাসেই ৫ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হবে। আর এজন্য গত কয়েক মাস ধরে দেশি বিদেশি নানা ফুলের চাষ করেছেন এ অঞ্চলের চাষিরা।

বিশাল এলাকায় চোখ ধাঁধানো ফুল ফুটে যেন জানান দিচ্ছে প্রকৃতিজুড়ে এসে গেছে ঋতুরাজ বসন্ত। জেলার কালীগঞ্জ, কোটচাঁদপুর, মহেশপুরসহ বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ৬শ একর জমিতে এবার চাষ হয়েছে গোলাপ, রজনীগন্ধা, গাঁদাসহ নানা প্রজাতির ফুল। এক বিঘা জমিতে ফুল চাষে প্রায় ১০ হাজার টাকা খরচ হয়। আর ৩ মাসে খরচ বাদে লাভ হয় ৩০ থেকে ৪০ হাজার টাকা। ২০টি মালার এক ঝোপা ফুল বিক্রি হয় ১৫০ থেকে ২০০শ টাকায়।

পহেলা ফাল্গুন, ভালোবাসা দিবস, ভাষার মাসের কারণে চাহিদাও বেশি। তা সামলাতে বেড়েছে চাষি এবং শ্রমিকদের ব্যস্ততা। বিভিন্ন অনুষ্ঠান, বিয়ে-জন্মদিনসহ নানা উৎসবে তরুণ-তরুণী ও অভিভাবকরা এসব ফুল ক্রয় করে থাকে। প্রতিদিন জেলা থেকে ৫/৬ ট্রাক ফুল ঢাকার শাহবাগ ও চট্টগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যায়।

ফুলচাষি ও ব্যবসায়ীরা জানান, সারাদেশে ভ্যালেন্টাইন্স ডে উপলক্ষে যে ফুল বেচা-কেনা হয় তার প্রায় এক তৃতীয়াংশ ঝিনাইদহে উৎপাদিত ফুল। শুধু বিভিন্ন দিবসই নয়, পূজা পার্বণ বিয়েসহ যে কোনো উপলক্ষে ফুলের ব্যবহার বাড়ছে। তার তাই কালীগঞ্জের এই বাজারে দূর দূরান্ত থেকে প্রতিদিনই ছুটে আসেন পাইকার ও খুচরা ব্যবসায়ীরা।

কালীগঞ্জ উপ-সহকারী কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম বলেন, বছরে জেলায় ৯ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হয়। তবে শুধু চলতি মাসেই জেলায় ৫ কোটি টাকার ফুল বিক্রি হবে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

কৃষকদের এই ফুল চাষে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা ও সরকারিভাবে ফুলের বাজার সৃষ্টি করতে পারলে আগামীতে এই ফুল চাষ আরও দ্বিগুণ হারে বৃদ্ধি পাবে এবং কৃষকরাও লাভবান হবেন বলে আশা করছেন এ অঞ্চলের ফুল চাষিরা।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

add-sm
Sonali Tissue
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩