বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৭, ৮ চৈত্র ১৪২৩

নাইক্ষ্যংছড়িতে বৌদ্ধ ভিক্ষুক হত্যা

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

নাইক্ষ্যংছড়িতে বৌদ্ধ ভিক্ষুক হত্যা

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে বৌদ্ধ ভিক্ষুকে রাতে কোন এক সময় গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। কে বা কারা এই হত্যা কান্ড ঘটালো তা কেউ বলতে পারেনা। তবে এলাকাবাসী সবার এক কথা সত্তুর বছর বয়সী ঐ ধর্মীয় নেতার কোন শত্রু ছিলনা। এখানে বলা যেতে পারে নিরাপত্তাহীন সাধারন জীবন যাপন করতেন তিনি। তাই বৃষ্টি ঝরা রাতে যেকোন সন্ত্রাসী বা তার দল এঘটনা ঘটাতেই পারে।

পত্র-পত্রিকায় খবর বের হয়েছে, গ্রাম থেকে দূরে র্জিন স্থানে ছিল ঐ বৌদ্ধ বিহার। তাই হত্যাকান্ড শেষে সন্ত্রাসী চক্র ফিরে গেছে, কেউ ধরা পরার আগেই। কেউ সন্দেহ করেনি কাউকে, তাই খুনিকে বা খুনিদের আটক করা কঠিন। গত কয়েক বছরে এভাবে অনেকের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। যারা ব্লগে লিখতেন বা লেখক, শিক্ষক ধর্মীয় গুরু এদের যারাই খুন করেছে তাদের খুব কমই ধরা পরেছে। খুনিরা অনেকটাই গেরিলা কায়দায় এসব খুন করছে। আমাদের খুনি ধরার প্রক্রিয়া অনেক উন্নত হয়েছে, তাই বলে সব খুনের পেছনে যারা তাদের তারা ধরতে পেরেছে এটা ঠিক নয়। তাদের সীমাবদ্ধতা থাকবেই। তাই অনেক সময় সন্দেহ ভাজন অনেকেই ধরা পরছে, আসল খুনিকে ধরা যাচ্ছে না।

এদিকে, ঐ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে, যাদের দুইজন মিয়ানমারের নাগরিক বলে জানিয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তার তিনজন হলেন- ছামং চাক (৩২), জিয়া (২৫) ও রহিম (২৬)। নিহত ভিক্ষুর বড় ছেলে চিংসাউ চাক নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় অজ্ঞাত পরিচয় আসামিদের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। শনিবার গভীর রাতে জেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রহিম ও জিয়া বলেছে, তারা রোহিঙ্গা। ছামং চাকের বাড়ি নাইক্ষ্যংছড়িতে বলে জানিয়েছে সে। তবে ছামং চাকও মিয়ানমারের নাগরিক বলে চাক পাড়ার কারবারি (গ্রাম প্রধান) অংঞো থোয়াই চাক ও স্থানীয়রা দাবি করেছেন। শুক্রবার রাতে মন্দিরে ধ্যানরত অবস্থায় গলাকেটে হত্যা করা হয় চাকপাড়া বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ মং শৈ উ (৭০) কে। শনিবার সকালে তার রক্তাক্ত লাশ দেখে স্থানীয়রা পুলিশে জানায়।

গতকাল রোববার সকালে বান্দরবান সদর হাসপাতালে বিহার অধ্যক্ষ্যের লাশের ময়না তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ হত্যাকান্ডকে ‘বিচ্ছিন্ন ঘটনা’ দাবি করে স্বর্রামন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের। তবে এর সঙ্গে সাম্প্রতিক ‘জঙ্গি’ হামলার মিল দেখছেন না তিনি। যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জঙ্গি হামলার সাথে মিল দেখেননি, তারপরও সাধারনের সন্দেহ জঙ্গিহামলার ঘটনারই হয়তো সর্বশেষ সংযোজন এই ভিক্ষু হত্যা।

সোনালীনিউজ/ঢাকা

Sonali Bazar

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
add-sm
Sonali Tissue
বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ, ২০১৭, ৮ চৈত্র ১৪২৩