রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

নামাজ ছেড়ে চোর ধরা প্রসঙ্গে

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

নামাজ ছেড়ে চোর ধরা প্রসঙ্গে

সোনালীনিউজ ডেস্ক

অনেক সময় দেখা যায়, মসজিদে জামাতের সঙ্গে নামাজ আদায়কালে নামাজির জুতা বা অন্যান্য জিনিস চুরি হয়ে যাচ্ছে। নামাজরত অবস্থায় নিজের জিনিসি চুরি হতে দেখলে, নামাজ ছেড়ে দিয়ে তা উদ্ধার বা রক্ষা করার অনুমতি ইসলাম প্রদান করেছে। এমন আচরণে গোনাহের কারণ হবে না। এ নাজায়েজও নয়।

ইসলামি স্কলারদের অভিমত হলো, মূল্যবান ও প্রয়োজনীয় জিনিস সংরক্ষণ ও হেফাজতের জন্য নামাজ ছেড়ে দেওয়া জায়েজ। একাধিক তাবেঈ থেকে বর্ণিত আছে যে, নামাজ অবস্থায় তাদের আরোহী চলে যাচ্ছিল তখন তারা নামাজ ছেড়ে দিয়ে আরোহী হেফাজত করেছেন।

আর কোনো কোনো ইসলামি চিন্তাবিদ ও গবেষক বলেছেন, এক দিরহাম অর্থাৎ ৩.০৬১৪ গ্রাম রূপা সমপরিমাণ সম্পদ হেফাজতের জন্যও নামাজ ছেড়ে দেওয়া জায়েজ আছে। যার বর্তমান বাজারমূল্য ৩৩৫ টাকার মতো হয়।

তবে, নামাজে দাঁড়ানোর আগেই জুতা বা অন্যান্য মালপত্র হেফাজতে রাখা উচিত; যেন নামাজের সময় এসব কারণে মনোযোগে বিঘ্ন না ঘটে। -ফাতাওয়া হিন্দিয়া: ১/১০৯ ও আদ দুররুল মুখতার: ২/৫১

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩