রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

নারায়ণগঞ্জে সাত খুন : ফের পেছাল অভিযোগ গঠন

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৩ পিএম

নারায়ণগঞ্জে সাত খুন : ফের পেছাল অভিযোগ গঠন

সোনালীনিউজ ডেস্ক
নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের দুই মামলার পরবর্তী অভিযোগ গঠনের শুনানি পিছিয়ে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করেছে আদালত। নারায়ণগঞ্জের জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ এনায়েত হোসেন এই শুনানির দিন ধার্য্য করেন।
আজ বুধবার এই শুনানির দিন থাকলেও আসামিপক্ষের আইনজীবীরা অভিযোগপত্রের অনুলিপি না পাওয়ার কথা বলে সময়ের আবেদন করেন।
শুনানি শেষে বিচারক তাদের আবেদন মঞ্জুর করে নতুন তারিখ ঠিক করে দেন বলে অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর কেএম ফজলুর রহমান জানান।
মামলার প্রধান আসামি নূর হোসেনসহ ১১ জন এদিন জামিনের আবেদন করলে বিচারক তা নাকচ করে দেন।  
এর আগে গত ১১ জানুয়ারি এক আসামিকে অসুস্থতার কারণে আদালতে হাজির না করায় অভিযোগ গঠন এক দফা পিছিয়ে যায়।
সাত খুনের ঘটনায় নিহত নজরুল ইসলামের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি ও নিহত অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারের জামাতা বিজয় পাল পৃথকভাবে দুটি মামলা দায়ের করেন। ২০১৪ সালের ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম, তার বন্ধু মনিরুজ্জামান স্বপন, তাজুল ইসলাম, লিটন ও গাড়িচালক জাহাঙ্গীর আলম এবং আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও তার গাড়িচালক ইব্রাহীম অপহৃত হন। পরে ৩০ এপ্রিল শীতলক্ষ্যা নদী থেকে ছয়জনের ও ১ মে একজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
এ ঘটনায় নজরুলের স্ত্রী সেলিনা ইসলাম বিউটি ও আইনজীবী চন্দন সরকারের মেয়ের জামাই বিজয় কুমার পাল বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা মডেল থানায় দুটি মামলা করেন। এরপর ভারতে পালিয়ে যান নূর হোসেন। পরে গতবছরের ১২ নভেম্বর নূরকে দেশে আনা হয়। ১৩ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জে আদালতে উঠানোর পর আদালত কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়।
পরে নিরাপত্তার কারণে নূরকে প্রথমে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ও পরে কাশিমপুর কারাগারে পাঠানো হয়। এ মামলায় র‌্যাবের সাবেক তিন কর্মকর্তাসহ মোট ৩২ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। হত্যার দায় স্বীকার করে র‌্যাবের ১৭ জনসহ ২২ জন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন এবং ঘটনার সাক্ষী হিসেবে র‌্যাব সদস্যসহ ১৭ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেন।
সোনালীনিউজ/আমা

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ১৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩