রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

নিজামীকে রায় পড়ে শোনানো হয়েছে

সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

নিজামীকে রায় পড়ে শোনানো হয়েছে

একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজের রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশের পর তা কেন্দ্রীয় কারাগারে তাকে পড়ে শোনানো হয়েছে।

সোমবার (০৯ মে) রাত সাড়ে ৮টায় কেন্দ্রীয় কারাগারের কনডেম সেলে নিজামীকে রায়ের কপি পড়ে শোনান কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির। এসময় পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি গোলাম হায়দার, জেল সুপার নেসার আলম এবং দুইজন ডেপুটি জেল সুপার উপস্থিত ছিলেন। তবে রায়ের কপি শোনার পর নিজামীর প্রতিক্রিয়া স্বাভাবিক ছিল বলে জানা গেছে।

এদিকে রায় পড়ার সময় নিজামী নির্বাক এবং স্বাভাবিক ছিলেন। তিনি তার পরিবার বা আইনজীবীর সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনার বিষয়ে কর্তৃপক্ষকে এখনো কিছু জানায়নি বলেও জানা যায়।  

এর আগে কারা চিকিৎসক ডা. বিপ্লব কান্তি বিশ্বাস ও ডা. আহসান হাবিব নিজামীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে তিনি সুস্থ আছেন বলে জানান।

কেন্দ্রীয় কারা কর্তৃপক্ষের বিশেষ সূত্র বিষয়গুলো নিশ্চিত করেছেন।

রায় পড়ে শোনানো শেষে সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির ও পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি গোলাম হায়দার অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবালের সঙ্গে দেখা করতে কারাগার থেকে বের হন বলেও সূত্র জানায়।

সোমবার (০৯ মে) সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিটে ঢাকা মেট্রো-চ ৫৩-৮১২১ নম্বরের একটি গাড়িতে করে রায়ের অনুলিপি নিয়ে কারাগারে প্রবেশ করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ডেপুটি রেজিস্ট্রার কেশব রায়ের নেতৃত্বে ৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল। পরে তাদের কাছ থেকে এ রায়ের কপি গ্রহণ করেন সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গির কবীর।

এর আগে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার কিছু আগে ট্রাইব্যুনাল থেকে রায়ের অনুলিপি নিয়ে কারাগারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন প্রতিনিধিদল।

উল্লেখ্য, নিয়ম অনুযায়ী রায় পড়ে শোনানোর পরবর্তী ৭ দিনের মধ্যে রাষ্ট্রপতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করতে হয়। নিজামী ক্ষমা না চাইলে ফাঁসি কার্যকরের প্রক্রিয়া শুরু হবে।

এদিকে সোমবার (০৯ মে) একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজের রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশ করে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সুপ্রিম কোর্ট রেজিস্ট্রারের দপ্তর থেকে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। রায় প্রকাশের পর সেটি ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। সেখান থেকে রায়ের কপি এখন কেন্দ্রীয় কারাগারে।

তবে নিজামীর দল জামায়াতের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, নিজামী তার স্বজনদের জানিয়েছেন, তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাইবেন না। আল্লাহ ছাড়া আর কারও কাছে ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই আসে না। রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন না করলে নিজামীকে ফাঁসির রশিতে ঝুলাতে আইনগত আর কোনো বাধা থাকবে না।

গত বৃহস্পতিবার (০৫ মে) মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজ করে দেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এক শব্দের এই রায় ঘোষণা করেন। বেলা সাড়ে ১১টায় এজলাসে এসে প্রধান বিচারপতি শুধু বলেন, ‘ডিসমিসড’।

বেঞ্চের অপর তিন সদস্য হলেন : বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী। এদিকে রিভিউ আবেদন খারিজের পর পুরোজাতি এখন নিজামীর ফাঁসির অপেক্ষায় আছে।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩