শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

নিরাপত্তা শঙ্কায় ট্রাম্পের শিকাগো জনসভা বাতিল

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৩৪ পিএম

নিরাপত্তা শঙ্কায় ট্রাম্পের শিকাগো জনসভা বাতিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রতিবাদ থেকে সহিংস সংঘাত ছড়িয়ে পড়ায় নিরাপত্তা শঙ্কায় শিকাগোতে জনসভা বাতিল করেছেন যুক্তরা্েরর আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশের সঙ্গে বৈঠকের পর ট্রাম্প জনসভাটি বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেন বলে ট্রাম্পের প্রচারণা শিবির থেকে দেওয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়।

গত শুক্রবার রাতে ইলিনয় বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি মিলনায়তনে জনসভাটি হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ট্রাম্প উপস্থিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই জনসভাস্থলের বাইরে কয়েকশ প্রতিবাদকারী জড়ো হন। এরই মধ্যে মিলনায়তনের ভিতরে পতাকা প্রদর্শন করে স্লোগানরত সমর্থক ও প্রতিবাদকারীরা পরস্পরের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন।
ট্রাম্পের সমর্থকেরা তার পক্ষে স্লোগান দেওয়ার সময় কয়েকজন প্রতিবাদকারী ডেমোক্রেটিক পার্টির অন্যতম প্রেসিডেন্ট মনোনয়ন প্রত্যাশী বার্নি স্যান্ডার্সের পক্ষে স্লোগান তোলেন। এ সময় বেশ কয়েক দফা সহিংস মারামারির ঘটনা ঘটে। এসব মারামারির কোনো কোনোটি শুরুই করেন ট্রাম্পের সমর্থকেরা। তারা প্রতিবাদকারীদের হাত থেকে পতাকা কেড়ে নেওয়ার চো করলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

এ সময় স্টেজ থেকে একজন প্রতিবাদকারীকে সম্ভবত সিক্রেট সার্ভিসের একজন এজেন্ট সরিয়ে নিয়ে যান। মিলনায়তনের বাইরেও সহিংস সংঘাত চলতে থাকে। হেলিকপ্টার থেকে নেওয়া ফুটেজে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশকে তৎপর দেখা যায়। ট্রাম্প শিবিরের দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়, ট্রাম্প এইমাত্র শিকাগোতে এসেছেন। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে বৈঠকের পর তিনি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, জনসভাস্থলে ও আশপাশে জড়ো হওয়া হাজার হাজার মানুষের নিরাপত্তার স্বার্থে গতকাল রাতের জনসভা স্থগিত করে এটি অন্য তারিখে আয়োজন করবেন।

উপস্থিতির জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। অনুগ্রহ করে শান্তিপূর্ণভাবে ফিরে যান।- বিবৃতিতে বলেন ট্রাম্প। এই ঘটনার পর ফক্স নিউজের সঙ্গে বলা কথায় ট্রাম্প ‘হেইট স্পিচ’ ও বিভাজন তৈরির বিষয়ে ভূমিকা রাখার কথা অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, আমি জনতার বিশাল একটি অংশের প্রতিনিধিত্ব করি, তাদেরও অনেক রাগ আছে, দুপক্ষেরই বিশাল ক্ষোভ আছে। জনসভা বাতিল করার সিদ্ধান্তের বিষয়ে তিনি বলেন, আমি মনে করি আমরা যা করেছি তা খুব ভাল করেছি, একে বিচক্ষণ সিদ্ধান্ত বলে মনে করি আমি।
   
জনসভাটি বাতিল করার জন্য প্রশাসকদের কাছে আগেই পিটিশন দাখিল করেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীরা। পিটিশনে তারা বলেছিলেন জনসভাটি শিক্ষার্থীদের জন্য ‘হিংসাত্মক এবং শারীরিকভাবে বিপজ্জনক পরিবেশ’ তৈরি করতে পারে। গত শুক্রবার সকালে মিজৌরির সেন্ট লুইজে ট্রাম্পের সমাবেশে বিঘ্ন ঘটানোর জন্য ২৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

add-sm
Sonali Tissue
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩