শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

পিবিআইর হাতে যাচ্ছে ডিএমপির মামলার তদন্ত ভার

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

পিবিআইর হাতে যাচ্ছে ডিএমপির মামলার তদন্ত ভার

বিশেষ প্রতিনিধি

দিন দিন মামলার চাপে হিমশিম খাচ্ছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) থানাগুলো। মাত্রাতিরিক্ত মামলার কারণে ডিএমপির থানাগুলোতে মাসের পর মাস, কখনো বছরের পর বছর ধরে ওসব মামলার তদন্ত চলছে। এর ফলে দীর্ঘায়িত হচ্ছে বিচারপ্রক্রিয়া। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে এবং বিচার প্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে মামলাজট কমাতে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। আর সরকারের নির্দেশনা পেয়ে ইতিমধ্যে পুলিশ সদর দফতর নড়েচড়ে বসেছে। তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিএমপির থানাগুলোতে যেসব মামলা রয়েছে এখন সেগুলোর তদন্ত করবে পুলিশের নতুন ইউনিট পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পুলিশ সদর দফতর সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বর্তমানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের থানার সংখ্যা ৪৯। আর একেকটি থানার একজন সাব-ইন্সপেক্টরকে গড়ে ১২ থেকে ১৫টি মামলার তদন্ত করতে হয়। ফলে তৈরি হচ্ছে তদন্তে দীর্ঘসূত্রতা। এমনকি মামলার অতিরিক্ত চাপের কারণে অনেক সময়ই ঠিকমতো তদন্ত হচ্ছে না। এ পরিস্থিতিতে আগামী মাস থেকে ডিএমপি থানার মামলাগুলোর তদন্ত কাজ শুরু করতে যাচ্ছে পিবিআই। এ ব্যাপারে ইতিমধ্যে ডিএমপির কমিশনারকে পুলিশ সদর দফতর থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, ডিএমপির থানাগুলোতে দায়ের হওয়া হত্যা, ডাকাতি, অপহরণ, চাঁদাবাজিসহ ১৫ ধরনের মামলার তদন্ত করবে পিবিআই। তবে সাধারণ ডায়েরির বিষয়ে তদন্ত থানার পুলিশই করবে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকাসহ সারাদেশের থানাগুলোতে দায়ের হওয়া মামলার তদন্তও করবে পিবিআই। মূলত থানাগুলোতে জমে থাকা মামলার তদন্তে গতি সঞ্চার করতেই সরকারের নির্দেশে পুলিশ সদর বিশেষ এই পদক্ষেপ নিয়েছে। মামলার তদন্তের বিষয়ে ঢাকার সব থানায় যে চিঠি পাঠানো হয়েছে তাতে বলা হয়েছে- প্রতিটি থানায় মামলার স্তূপ। মাসের পর মাস ধরে তদন্ত চলছে। তাতে বাদীরা হতাশ হয়ে পড়ছেন। বিচারপ্রক্রিয়া ত্বরান্বিত করতে আগামী মার্চ থেকে থানার মামলাগুলোর তদন্ত করবে পিবিআই। তবে সাধারণ ডায়েরির বিষয়ে থানার পুলিশই তদন্ত করবে।

সূত্র আরো জানায়, মামলাজট কমাতেই আপাতত ডিএমপির থানাগুলোর মামলার তদন্ত করবে পিবিআই। তবে যেসব মামলার তদন্ত শেষ পর্যায়ে সেগুলোর বিষয়ে থানার পুলিশই অভিযোগপত্র দেবে। আর জমে থাকা মামলাগুলো পিবিআইয়ের কাছে যাবে। পিবিআই মামলার তদন্ত কাজ শুরু করলে থানার পুলিশ একটু ফুরসত পাবে। তখন থানার পুলিশ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় আরো মনোযোগ দিতে পারবে। পর্যায়ক্রমে অন্যান্য মেট্রোপলিটন এলাকাসহ সারাদেশের থানার মামলারই তদন্ত করবে পিবিআই।

এদিকে পিবিআইর তদন্ত প্রসঙ্গে পুলিশের মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক বলেন, একজন সাব-ইন্সপেক্টরকে অনেক মামলার তদন্ত করতে হয়। ফলে তদন্ত শেষ করতে অনেক সময় লেগে যায়। ডিএমপির যেসব মামলার তদন্ত এখনো শেষ হয়নি সেগুলো পিবিআইকে দেয়া হবে। ফলে থানার পুলিশ জনসেবায় বেশি মনোযোগ দিতে পারবে।

অন্যদিকে পিবিআইয়ের প্রধান পুলিশের উপ-মহাপরিদর্শক মাহাবুবুর রহমান বলেন, খুব শিগগির কাজ শুরু হবে। ডিএমপির যেমব মামলার তদন্ত এখনো শেষ হয়নি সেগুলোর তদন্ত দ্রুত শেষ করা হবে।

এ প্রসঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, মামলার তদন্ত দ্রুত শেষ করতে নানা উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। পিবিআইকে দিয়ে তদন্ত করানোর জন্য পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ঢাকার বাইরের বেশ কিছু মামলার তদন্তে সফলতা দেখিয়েছে পিবিআই। পিবিআইকে নিয়ে আমরা বেশ আশাবাদী।

সোনালীনিউজ/এমএইউ

add-sm
Sonali Tissue
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩