মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫

পৃথ্বী-ঋষভ-রাহানের ব্যাটে ম্যাচে রইল ভারত

ক্রীড়া ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার ০৭:৪২ পিএম

পৃথ্বী-ঋষভ-রাহানের ব্যাটে ম্যাচে রইল ভারত

ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: রাজকোটের পারফরম্যান্সটাই হায়দরাবাদে টেনে এনেছেন পৃথ্বী শ। দুরন্ত এক ইনিংস খেললেন তিনি। মনে হচ্ছিল, আরও একটি সেঞ্চুরি পেয়ে যাবেন। কিন্তু আচমকাই আউট হয়ে সেটি আর হলো না। পৃথ্বী ফিরে গেছেন ৭০ রান করে। তাঁর ফিরে যাওয়ার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলাররা একটু জেঁকেই বসেছিল ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের ওপর।

তবে ভারতকে ম্যাচে ফিরিয়েছে ঋষভ পন্থ আর আজিঙ্কা রাহানের ব্যাট। দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় দিন শেষে ৪ উইকেটে ৩০৮ রান তুলেছে ভারত৷ পন্থ ৮৫ এবং রাহানে ৭৫ রানে ক্রিজে রয়েছেন৷ ১৬২ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর পঞ্চম উইকেটে ১৪৬ রান যোগ করে ভারতের ইনিংসকে তিনশোর গণ্ডি পার করান পন্থ ও রাহানে৷

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৩১১ রানে বেঁধে রাখার পর ভারতের শুরুটা ভালো হয়নি৷ আগের ম্যাচে অভিষেক হওয়া পৃথ্বী শ এদিনও দারুণ ব্যাটিং করলেও মাত্র ৪ রানে ড্রেসিংরুমে ফেরেন পৃথ্বীর ওপেনিং সঙ্গী লোকেশ রাহুল৷ চেতেশ্বর পূজারাও ব্যর্থ৷ মাত্র ১০ রান করেন তিনি।অধিনায়ক বিরাট কোহলি ব্যক্তিগত ৪৫ রানে জেসন হোল্ডারের শিকার হয়ে৷ এরপর দলকে টানেন পন্থ ও রাহানে।

প্রথম ইনিংসে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে লাঞ্চের আগে ৩১১ রানে অল-আউট করার পর ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিনের লাঞ্চে ভারত ১ উইকেট হারিয়ে ৮০ রান তুলেছিল৷ কিন্তু দ্বিতীয় সেশনে আরও ৯৩ রান যোগ করলেও মূল্যবান তিনটি উইকেট হারায় টিম ইন্ডিয়া৷ চা-বিরতিতে ভারত তাদের প্রথম ইনিংসে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৭৩ রান তোলে৷ কিন্তু শেষ সেশনে কোনও উইকেট না-হারিয়ে ১৩৫ রান যোগ করে পন্থ-রাহানে জুটি৷

এর আগে ৭ উইকেটে ২৯৫ রানে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ এদিন সকালে মাত্র ১৬ রান যোগ করতে সক্ষম হয় ক্যারিবিয়ানরা৷ উমেশ যাদবের আগুনে স্পেলে ঝলসে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের লোয়ার অর্ডার৷ দেবেন্দ্র বিশু প্রথম দিনের শেষবেলায় রোস্টন চেসকে যথাযথ সঙ্গ দিলেও দ্বিতীয় দিনে মুহূর্তের জন্যও স্বাচ্ছন্দ্যে ছিলেন না৷ উমেশ যাদব রণমূর্তী ধারণ করায় অসহায় আত্মসমর্পণ ছাড়া উপায় ছিল না বিশুর কাছে৷ ব্যক্তিগত ২ রানে যাদবের বলে বোল্ড হন তিনি৷

রোস্টন চেজ এরই মধ্যে টেস্ট ক্যারিয়ারে চতুর্থ ও ভারতের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন৷ তিন অঙ্কে পৌঁছানোর পর চেজের মনোসংযোগে চিড় ধরে৷ সেই সুযোগে ব্যাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে নিখুঁত ইনস্যুইঙ্গারে চেজের স্ট্যাম্প উড়িয়ে দেন উমেশ এবং ইনিংসে পাঁচ উইকেটের বৃত্ত পূর্ণ করেন৷ চেজ ১০৬ রান করে ড্রেসিংরুমে ফেরেন৷ ১৮৯ বলের ইনিংসে তিনি ৮টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন৷

সোনালীনিউজ/আরআইবি/জেডআই