শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৭ আশ্বিন ১৪২৪

পেলেকে টপকে গেলেন মেসি

স্পোর্টস ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

পেলেকে টপকে গেলেন মেসি

উৎসবে ভাসছে স্পেনের বার্সালোনা শহর। রবিবার রাতে (২২ মে) মাদ্রিদের মাঠে কোপা দেল রে ফুটবলের শিরোপা জিতে নিয়েছে লুই এনরিকের দল বার্সেলোনা। ঘটনাবহুল ফাইনালে সেভিয়াকে ২-০ গোলে হারিয়ে মৌসুমের রোমাঞ্চকর সমাপ্তি টেনেছে কাতালানরা। উয়েফা চ্যামিস্পয়ন্স লিগের শিরোপা জিতা হয়নি লিওনেল মেসিদের। ওই কষ্টটুকু বাদ দিলে গতবার ট্রেবলজয়ী দলটি এবারও দুর্দান্ত এক মৌসুম শেষ করল। স্প্যানিশ লা লিগার শিরোপা জয়ের পাশাপাশি কোপা দেল রে ফুটবলের শিরোপা জিতে ‘ডাবলস’ সাফেল্য মৌসুমের ইতি টানল তারা। সোমবারও তাই উৎসবী আমেজে রয়েছে বার্সা ভক্তরা।

এদিকে, বার্সার এই শিরোপা জয়ের রাতে ব্যক্তিগত আরেকটি সাফল্য যুক্ত হয়েছে আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার লিওনেল মেসির নামের পাশে। বার্সার জয়ে পেশাদার ফুটবল ক্যারিয়ারে ৩০তম শিরোপা জিতলেন তিনি, টপকে গেলেন ব্রাজিলের কিংবদন্তি ফুটবলার পেলেকেও। এখন অব্দি ফুটবলের রাজা হিসেবেই বিবেচিত পেলে। সেই ‘রাজা’ তার দীর্ঘ ক্যারিয়ারে মোট ২৯টি শিরোপা জিতেছিলেন। রবিবার রাতে কোপা দেল রে শিরোপা জিতে তাকে টপকে গেলেন মেসি। ম্যারাডোনা-ইয়োহান ক্রুইফদের মতো কিংবদন্তি ফুটবলাররাও রয়েছেন তার পিছনে।

মাত্র ২৮ বছর বয়সেই অজস্র সাফল্য লেখা হয়েছে মেসির নামের পাশে। সামনে আরও অনেক শিরোপাই জিতবেন তিনি; এ কথা নিশ্চিতভাবেই বলা চলে। তাই ব্যক্তিগত শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে মেসির রেকর্ড বহুদিন অক্ষুন্ন থাকবে এ কথাও নিশ্চিত।

মেসির জয় করা ৩০টি শিরোপার মধ্যে রয়েছে-আর্জেন্টিনার জার্সিতে অলিম্পিক ও অনূর্ধ্ব-২০ ফুটবলের শিরোপা এবং বার্সার জার্সিতে ৪টি কোপা দেল রে শিরোপা, ৮টি স্প্যানিশ লিগ শিরোপা, ৪টি সুপারকোপা ফুটবলের শিরোপা, ৪টি উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপা, ৩টি ইউরোপিয়ান সুপারকোপা শিরোপা এবং ৩টি ক্লাব বিশ্বকাপের শিরোপা।

তবে ৫ বারের ব্যালন ডি’ওর জয়ী মেসির শিরোপা ক্যাবিনেটে একটি বড় শূন্যতা রয়ে গেছে। এখন অব্দি আর্জেন্টিনার সিনিয়র দলের জার্সিতে কোনো শিরোপা জেতা হয়নি তার। বিশ্বকাপ বা কোপা আমেরিকা; কোনো শিরোপা জিততে পারেননি তিনি। এই একটি জায়গায় পেলে-ম্যারাডোনাদের কাছে ছোট হয়ে আছেন তিনি! পেলে বিশ্বকাপ জিতেছেন ৩ বার। ম্যারাডোনা একবার। মেসির সামনে এখন তাই এমন বড় একটি শিরোপা জয়ের চ্যালেঞ্জ। যা করতে পারলে পেলে-ম্যারাডোনাকে টপকে সর্বকালের সেরা ফুটবলারের মুকুটটি হয়তো মেসির মাথাতেই শোভা পাবে। অবশ্য ২০১৪ সালে এবং ২০১৫ সালে ‘গ্রেটেস্ট’ হওয়ার দ্বারপ্রান্তেই পৌঁছে গিয়েছিলেন তিনি। বিশ্বকাপের ফাইনালে ও কোপা আমেরিকার ফাইনালে দলকে টেনে নিয়েছিলেন। ভাগ্য বিড়ম্বনায় শেষ অব্দি দুটি শিরোপাই অধরা থেকেছে তার।

শিরোপা ক্যাবিনেটের এই শূন্যতা পূরণ করার একটি সুযোগ অবশ্য পেতে যাচ্ছেন মেসি। আগামী মাসে (জুনে) যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে বসছে কোপা আমেরিকা ফুটবলের শতবর্ষীয় আসর। সেখানে আর্জেন্টিনাকে নেতৃত্ব দিবেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রবিবার মাদ্রিদের রাতে কোপা দেল রে ফুটবলের ফাইনালে মূলত মেসির জাদুকরী দুটি পাসের সুবাদেই দলকে গোল এনে দিতে পেরেছিলেন জোর্ডি আলবা ও নেইমার। অতিরিক্ত সময়ের খেলায় পাওয়া সেই ২ গোলেই শেষ অব্দি শিরোপা জিতেছে বার্সেলোনা। গোল না করলেও গোল করিয়ে মেসি তাই বার্সার জয়ের নায়কেই পরিণত হয়েছেন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই