বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

প্রার্থী বাছাইয়ে তৃণমূলে অগ্রাধিকার দিচ্ছে দুই দল

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

প্রার্থী বাছাইয়ে তৃণমূলে অগ্রাধিকার দিচ্ছে দুই দল

বিশেষ প্রতিনিধি

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ও দেশের প্রধান বিরোধী রাজনৈতিক বিএনপি আসন্ন ইউপি নির্বাচনের প্রার্থী বাছাই একই পথে হাঁটছে। উভয় দলই প্রার্থী বাছাই নিজ নিজ দলের মাঠপর্যায়ের নেতাদের কাছে প্রার্থীর নাম পাঠাতে বলেছে। মেয়র পদে প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে দু’দলই তৃণমূলকে অগ্রাধিকার দিচ্ছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাই করবে জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়নের নেতারা। আর বিএনপির প্রার্থীর নাম পাঠাবে উপজেলা ও ইউনিয়নের নেতারা। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, আগামী ২২ মার্চ সারাদেশে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন শুরু হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে ৪ জুন পর্যন্ত মোট ৬ ধাপে ৪ হাজার ২৭৫টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হবে। ২২ মার্চ প্রথম ধাপে ভোট গ্রহণ হবে ৭৫২টি ইউপিতে। তফসিল অনুযায়ী প্রথম ধাপের ৭৫২টি ইউপিতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ২২ ফেব্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র বাছাই হবে ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ২ মার্চ এবং প্রতীক বরাদ্দ হবে ৩ মার্চ। আর আগামী ৩১ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে ৭১০টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হবে। ওসব ইউপিতে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষদিন ২ মার্চ। তৃতীয় ধাপে ৭১১টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হবে ২৩ এপ্রিল, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ২৭ মার্চ। চতুর্থ ধাপে ৭ মে ভোট গ্রহণ করা হবে ৭২৮টি ইউপিতে। ওসব ইউপিতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ৭ এপ্রিল। পঞ্চম ধাপে ৭১৪টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হবে ২৮ মে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ২ মে। সবশেষে ষষ্ঠ ধাপে ৬৬০টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ করা হবে ৪ জুন আর মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ৯ মে।

এদিকে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠিত নির্বাচনী বোর্ডকে প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করে ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে দলীয় সভানেত্রীর ধানম-ির রাজনৈতিক কার্যালয়ে পাঠাতে হবে। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, মনোনীত প্রার্থীর নাম (ভোটার নাম্বার ১২ ডিজিট) এবং নির্বাচনী আইন, নীতিমালা ও বিধিমালা অনুযায়ী সব তথ্য প্রার্থীর নামের সাথে পাঠাতে হবে। প্রার্থীর ভোটার আইডির ফটোকপি অবশ্যই পাঠাতে হবে, যা বাধ্যতামূলক। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের মনোনয়নের ক্ষেত্রে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) মনোনয়ন বোর্ড চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম ও প্রতীক বরাদ্দ করবে।

অন্যদিকে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন, ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য চেয়ারম্যান পদে প্রতি ইউপি থেকে একজন করে প্রার্থীর নাম সুপারিশ আকারে কেন্দ্রে পাঠাতে হবে। সংশ্লিষ্ট উপজেলার বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এবং ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক এই পাঁচজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম অনুমোদন করে কেন্দ্রে পাঠাবেন। তবে নাম পাঠানোর জন্য কোনো দিনক্ষণ বেঁধে দেয়নি বিএনপি।

সোনালীনিউজ/এমএইউ

add-sm
Sonali Tissue
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩