সোমবার, ২১ মে, ২০১৮, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

মতবিনিময় সভায় সাঈদ খোকন

বর্ষা শেষেই রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ মে ২০১৮, বুধবার ০৩:০৮ পিএম

বর্ষা শেষেই রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি

ঢাকা : বর্ষা মৌসুম শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো সংস্থাকেই আর রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির অনুমতি দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। পাশাপাশি রমজানে যানজট সহনীয় পর্যায়ে রাখতে এবং জনদুর্ভোগ কমাতে নতুন করে রাস্তা খুঁড়তে দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।

নগর ভবনের ব্যাংক ফ্লোর সভাকক্ষে মঙ্গলবার (১৫ মে) দুপুরে বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে ‘রমজানে যানজট নিরসন’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এ ঘোষণা দেন সাঈদ খোকন।

মেয়র বলেন, জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হওয়ায় বর্ষা মৌসুম শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনো রাস্তা খোঁড়ার অনুমোদন দেওয়া হবে না। সরকারি যেসব প্রকল্পের কাজ চলমান আছে সেগুলো সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়েই শেষ করতে হবে। মেট্রোরেলসহ সরকারি প্রকল্প বাস্তবায়নে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানকে অবশ্যই নাগরিক দুর্ভোগ চিন্তা করে আইন মেনে চলতে হবে। রাস্তার ওপর কোনো কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড তৈরি করা যাবে না। এখানে কোনো নির্মাণসামগ্রী রাখা যাবে না।

তিনি বলেন, রমজান মাসে নাগরিক দুর্ভোগ লাঘব করার জন্য ট্রাক, কভার্ড ভ্যান যথাসময়ে শহরে প্রবেশ করবে এবং মালামাল আনলোড করার পর পরই ট্রাক, ভ্যানকে শহর থেকে বের হয়ে যেতে হবে। এ জন্য ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ যথাযথ ব্যবস্থা নেবে। কোনো অবস্থাতেই শহরের ভেতর দিয়ে অবাধে ট্রাক, কভার্ড ভ্যান চলাচল করতে দেওয়া যাবে না। একই সঙ্গে যত্রতত্র পার্কিং করলে ট্রাফিক বিভাগকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে।

এ ছাড়া পুরান ঢাকার চকবাজার, বকশীবাজার এলাকায় ডিএসসিসির চলমান কাজ দুই-চার দিনের মধ্যে শেষ করে চলাচল উপযোগী করার নির্দেশ দেন মেয়র। গুলিস্তান, ভিক্টোরিয়া পার্ক, সায়েন্সল্যাবসহ রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় যত্রতত্র বাসসহ অন্যান্য যানবাহন পার্কিং না করার ব্যাপারেও নির্দেশ দেন সাঈদ খোকন। যত্রতত্র পার্কিংয়ের দায়ে ট্রাফিক আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সভায় উপস্থিত ডিএমপির ট্রাফিক বিভাগকেও নির্দেশনা দেন মেয়র।

মতবিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন, বাংলাদেশ বাস ট্রাক মালিক সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল­াহ, যুগ্ম পুলিশ কমিশনার ট্রাফিক (দক্ষিণ) মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ, মেট্রোরেল প্রকল্প পরিচালক মো. আফতাবউদ্দিন তালুকদার প্রমুখ।  

সোনালীনিউজ/এমটিআই