শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

বলিউড-হলিউডের সেরা ১০ প্রেমের ছবি

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

বলিউড-হলিউডের সেরা ১০ প্রেমের ছবি

সোনালীনিউজ ডেস্ক

হলিউড ও বলিউডে প্রেমের ছবির সংখ্যা আনুমানিক কত হবে, এর হিসাব করাটা অসম্ভব। এ তালিকাটা আরও ভারী হবে— যদি সেরা প্রেমের ছবির তালিকা করতে বলা হয়। কারণ ভালো লাগা প্রেমের ছবির হিসাব একেক দর্শকের কাছে একেক রকম। কিন্তু সর্বজনীন কিছু ভালো লাগা প্রেমের ছবি রয়েছে। সেসব ছবি থেকে বাছাই করা ১০টি প্রেমের ছবি নিয়ে এ আয়োজন। 

দেবদাস
শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের অমর প্রেমকাহিনি ‘দেবদাস’ অবলম্বনে বিমল রায় পরিচালিত এই ছবি হিন্দি ছবির ইতিহাসে একটি উজ্জ্বল অবস্থানে রয়েছে। ১৯৫৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই ছবিতে দিলীপ কুমার ও সুচিত্রা সেন অভিনয় করেছিলেন। পরে সঞ্জয়লীলা বনশালি আবারও নির্মাণ করেন ছবিটি। ২০০২ সালে মুক্তি পাওয়া এ ছবিতে অভিনয় করেন শাহরুখ খান, মাধুরী দীতি ও ঐশ্বরিয়া রাই।

মুঘল-ই-আজম
শুধু সেরা প্রেমের ছবি হিসেবেই নয়, বলিউড ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ছবির নাম নিলেও ‘মুঘল-ই-আজম’কে অগ্রাহ্য করা যাবে না। ১৯৬০ সালে ভারতজুড়ে মুক্তি পেয়েছিল পরিচালক কে আসিফের একমাত্র সার্থক এই সৃষ্টি। মোগল সম্রাট আকবরপুত্র সেলিমের সঙ্গে সাধারণ নর্তকী আনারকলির প্রেমকাহিনি নিয়ে নির্মিত এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন পৃথ্বিরাজ কাপুর, দিলীপ কুমার, মধুবালা প্রমুখ।

সিলসিলা
প্রেম ও পরকীয়ার গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। এটি নির্মাণ করে বলিউডে রীতিমতো আলোড়ন তুলেছিলেন প্রযোজক-পরিচালক যশ চোপড়া। অমিতাভ-রেখার প্রেমময় সম্পর্ক নিয়ে তখন বাস্তবে বেশ গুঞ্জন চলছিল। রেখার কারণে অমিতাভ-জয়ার দাম্পত্য জীবনে ঝড়োহাওয়া বইতে শুরু করেছিল। যশ চোপড়া ঠিক সেই সময়ে ত্রিভুজ সম্পর্কের অদ্ভুত এক প্রেমের গল্প নিয়ে ১৯৮১ সালে ‘সিলসিলা’ ছবিটি নির্মাণ করেন।

কেয়ামত সে কেয়ামত তক
১৯৮৮ সালে এক নতুন রেকর্ডের সূত্রপাত করে আমির খান ও জুহি চাওলা অভিনীত ‘কেয়ামত সে কেয়ামত তক’। মনসুর খান পরিচালিত এ ছবিতে আমির খান ও জুহি চাওলা ‘ফ্রেশ লুক’ ও সাবলীল অভিনয়ের মাধ্যমে সবার হৃদয়ে ঠাঁই করে নেন।

দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে
১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত আদিত্য চোপড়া পরিচালিত এ ছবিতে শাহরুখ খান ও কাজলের মিষ্টি প্রেমের অভিনয় ছবিটিকে চিরঅমর করে রেখেছে। এ ছবির শেষ দৃশ্যে রেলস্টেশনে ট্রেন ছেড়ে যাওয়ার সময় কাজল আর শাহরুখের দৃশ্যটিকে বিবেচনা করা হয় বলিউডের সর্বকালের অন্যতম সেরা রোমান্টিক দৃশ্য হিসেবে।

কুছ কুছ হোতা হ্যায়
১৯৯৮ সালে মুক্তি পায় ছবিটি। ত্রিভুজ প্রেমের কাহিনি নিয়ে নির্মিত ছবিটিতে শাহরুখ খান ছাড়াও অভিনয় করেছেন কাজল ও রানি মুখার্জি। ছোট্ট একটি চরিত্রে ছিলেন সালমান খান। ছবিটি পরিচালনা করেন করন জোহর।

রোমান হলিডে
রাজকুমারী অ্যান বেরিয়েছেন ইউরোপ ভ্রমণে। এক রাতে হোটেল ছেড়ে পালিয়ে যায় সে। তার সঙ্গে দেখা হয় রোমে অ্যাসাইনমেন্ট নিয়ে আসা মার্কিন সাংবাদিক জোয়ের। দুজনের মনের কোণে উঁকি দিল প্রেমসূর্য। ১৯৫৩ সালে মুক্তি পাওয়া ছবিটি পরিচালনা করেছেন উইলিয়াম ওয়াইলার।

রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট
উইলিয়াম শেকসপিয়রের বিখ্যাত উপন্যাস অবলম্বনে ১৯৬৮ সালে মুক্তি পায় ‘রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট’ ছবিটি। এটি পরিচালনা করেছেন ফ্রাঙ্কো জেফ্রিলি। এতে অভিনয় করেছেন লিওনার্দ হুইটনিং ও অলিভিয়া হাসি। ১৯৯৬ সালে মুক্তি পায় বাজ ল্যুরম্যানের ‘রোমিও প্লাস জুলিয়েট’। এতে অভিনয় করেন লিওনাদো ডি ক্যাপ্রিও ও কাইরি ডেনস।

টাইটানিক
১৯৯৭ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ডিজাস্টার রোমান্টিক চলচ্চিত্র এটি। এই ছবির পরিচালক, লেখক ও সহ-প্রযোজক জেমস ক্যামেরন। মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন লিওনার্ডো ডি ক্যাপ্রিও (জ্যাক ডসন) ও কেট উইন্সলেট (রোজ ডিউইট বিউকেটার)। উচ্চবিত্ত সমাজের মেয়ে রোজের সঙ্গে টাইটানিক জাহাজে নিম্নবিত্ত সমাজের প্রতিভূ জ্যাকের প্রেম হয়। ১৯১২ সালে টাইটানিকের পরিণতির পটভূমিতে তাদের এ ট্র্যাজেডিই ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ছবিতে।

অ্যা ওয়াক টু রিমেম্বার
সদ্যপ্রাপ্ত বয়স্ক দুই ছেলে-মেয়ের ঘটনা নিয়ে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। এখানে ছেলেটি ভুল করে শাস্তি পায়। ওই শাস্তির মাধ্যমেই জীবনকে অন্য রকমভাবে দেখতে শিখে সে। এরপর আস্তে আস্তে প্রেম। অ্যাডাম শ্যাঙ্কমেন পরিচালিত এ ছবিতে অভিনয় করেছেন শেন ওয়েস্ট ও মেন্ডি মুর। এটি মুক্তি পায় ২০০২ সালে।

সোনালীনিউজ/আমা

add-sm
Sonali Tissue
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩