বৃহস্পতিবার, ২৫ মে, ২০১৭, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪

বাংলাদেশি গৃহকর্মী নিয়োগের ফি বৃদ্ধি সৌদিতে

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৮ পিএম

বাংলাদেশি গৃহকর্মী নিয়োগের ফি বৃদ্ধি সৌদিতে

সোনালীনিউজ রিপোর্ট

সৌদি আরবে গৃহকর্মী নিয়োগ প্রক্রিয়ার ক্ষেত্রে সৃষ্টি হয়েছে কালোবাজার। আর এতে বেড়েছে নিয়োগ প্রশ্নে খরচ। কালোবাজারির বাংলাদেশি গৃহকর্মী নেয়ায় রিক্রটমেন্ট ফি অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন এই ফি ১২ হাজার থেকে ১৪ হাজার রিয়াল। এর আগে গত বছরেরর একই সময়ে একধাপে বেড়েছিল গৃহকর্মী নিয়োগ ফি। তখন সাড়ে ৩ হাজার সৌদি রিয়াল থেকে বেড়ে এই ফি ১৩ হাজার সৌদি রিয়াল হয়ে গিয়েছিল।

সম্প্রতি অনলাইন সৌদি গেজেটের একটি সূত্রে জানা গেছে, গৃহকর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে শুধু ভিসা ফি দুই হাজার রিয়াল। এছাড়া আনুষঙ্গিক খরচ বৃদ্ধি পেয়েছে শতকরা ৫০ থেকে ৭০ ভাগ।

সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে রিপোর্টে বলা হয়েছে, এখন বৃদ্ধি পেয়েছে কমপক্ষে ৭ হাজার রিয়াল। বাংলাদেশি গৃহকর্মীর চাহিদা কালোবাজারে বা অবৈধ ভাবে পূরণের ক্ষেত্রে এই বর্ধিত ফি নেয়া হচ্ছে। ঢাকার রিক্রুটমেন্ট অফিসের চাহিদা পূরণ করার জন্য শুধু তা হচ্ছে। রিক্রুটমেন্ট ফি বাবদ সৌদি আরবের শ্রম মন্ত্রণালয় সরকারিভাবে চার্জ বা ফি বেঁধে দিয়েছে ৫ শত রিয়াল।

সূত্র বলেছে, এই চার্জ পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য যথেষ্ট নয়। তাই অনেক রিক্রুটমেন্ট অফিস এ সিস্টেমের সঙ্গে প্রতারণা করছে। ওই সূত্র আরও বলেন, বিদেশীদের রিক্রুট করার জন্য ৬০ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে শ্রম মন্ত্রণালয়। এ সময়ের মধ্যে যদি রিক্রুটমেন্ট অফিস বিদেশিদের নিয়োগ দিতে না পারে তাহলে তাদেরকে জরিমানা করা হবে। এর জবাবে অনেক অফিস আগেভাগেই ভিসার কাগজপত্র তৈরির কাজ শুরু করে দেয়। কিন্তু তারা কাজের নিয়োগ সংক্রান্ত চুক্তিপত্রে শ্রমিকের সঙ্গে চুক্তি করে শেষের কয়েক দিনে। 

বিলম্বে রিক্রুট করার ক্ষেত্রে যে জরিমানা রয়েছে সে জন্য অনেক রিক্রুটিং অফিস কম করে আবেদন জমা নিয়েছে। ওই সূত্র বলেছেন, গড়ে রিক্রুটিং অফিসগুলো মাসে ২০০ থেকে ৩০০ আবেদন জমা নিয়েছে। এখন তারা মাসে জমা নিচ্ছে ৪০ থেকে ৫০টি আবেদন। জুনের মধ্যে এসব অফিসকে সব কাগজপত্র জমা দিতে চাপ দেয়া হচ্ছে।

আরও অনেক দেশে, বিশেষ করে আফ্রিকার দেশগুলোতে রিক্রুটমেন্ট অফিস খোলার দাবি রয়েছে। এক্ষেত্রে সৌদি আরব আবার যোগাযোগ করছে নাইজার, ইরিত্রিয়া ও কেনিয়ার সঙ্গে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রাজধানী ঢাকার একটি জনশক্তি রপ্তানি প্রতিষ্ঠানের মালিক জানান, সৌদি আরবে গৃহকর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়ায় একটি দালাল চক্র সুযোগ নেবার চেষ্টা করছে এবং তারাই কালোবাজারির মাধ্যমে গৃহকর্মী পাঠাচ্ছে। ফলে রিক্রুটমেন্ট চার্জ বেড়ে গেছে।

এদিকে সৌদি আরবে একটি রিক্রুটমেন্ট ফার্মের মালিক আবু ফয়সাল বলেন, বাংলাদেশ থেকে নিয়োগে দালালদের আবির্ভাব হয়েছে। ফলে সৌদি শ্রম মন্ত্রণালয় নির্ধারিত নিয়োগ সংক্রান্ত ব্যয় বেড়ে গেছে।

সোনালীনিউজ/আমা

Sonali Bazar

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue
বৃহস্পতিবার, ২৫ মে, ২০১৭, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪