বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে গণধর্ষণ

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

বিয়ের প্রলোভনে কিশোরীকে গণধর্ষণ

কুড়্রিগামের ভুরুঙ্গামারীতে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক কিশোরীকে গণধর্ষণ করেছে ওই কিশোরীর প্রেমিক ও তার বন্ধুরা।

জানা গেছে, ভুরুঙ্গামারী উপজেলার জয়মনিরহাট ইউনিয়নের ওসমান আলীর বিবাহিত ছেলে জুয়েল মিয়ার সঙ্গে একই ইউপির আইকুমারীভাতী গ্রামের এক কিশোরীর (১৬) প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ১ জুন মেয়েটিকে বিয়ের কথা বলে মোবাইল ফোনে ডেকে অটোবাইকে তুলে নিয়ে পার্শ্ববর্তী নাগেশ্বরী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে রাত ৯টার সময় জয়মনিরহাট লেফটেন্যান্ট শহীদ সামাদ টেকনিক্যাল কলেজের একটি নির্জন কক্ষে নিয়ে যায় জুয়েল। সেখানে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রথমে জুয়েল ধর্ষণ করে। পরে মেয়েটিকে তার বন্ধুদের কাছে রেখে চলে যায় সে। পরে গ্রামপুলিশ শাহজাহান আলী, বাবুল বাদশাহ (২০), আবু হানিফ (৩৫), আব্দুর রহিম (২৮), খাইরুল হক (২৬), সুজন মিয়া (২২), হাবিজুল (৩০) ও নওসের আলী (২৮) পালাক্রমে ধর্ষণ করে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় ফেলে পালিয়ে যায়।

পরদিন ২ জুন সকালে মেয়েটির পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়।৪ জুন শনিবার ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে ভুরুঙ্গামারী থানায় মামলা করেন।

এ ব্যাপারে ভুরুঙ্গামারী থানার ওসি জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, মেয়েটি গণধর্ষণ হয়নি। শুধু জুয়েল ধর্ষণ করেছে। বিয়ের কথা হওয়ায় ৩ জুন বাদী মামলা করেনি। বিষয়টির সমাধান না হওয়ায় শনিবার বিকেলে মামলা হয়েছে। ধর্ষিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য রোববার কুড়িগ্রাম সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমএইচএম

add-sm
Sonali Tissue
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩