রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রীর বাজেট পেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রীর বাজেট পেশ

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় জাতীয় সংসদে ১৯১৬-১৯১৭ সালের (আর্থিক বছর-‘১৭) জাতীয় বাজেট পেশ করবেন।
এটি হবে দেশের ৪৫তম, আওয়ামী লীগ সরকারের ১৭তম ও বর্তমান অর্থমন্ত্রীর ১০ম বাজেট।
দেশের ২০১৫-১৬ সালের (আর্থিক বছর-২০১৬) বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী মুহিত অর্থনৈতিক লক্ষ্য অর্জনে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার উপর গুরুত্বারোপ করে ধ্বংসাত্মক ও রাষ্ট্র বিরোধী কর্মকান্ড হতে বিরত থেকে সরকারের উন্নয়নমূলক পদক্ষেপে সমর্থন জানাতে বিরোধী দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
প্রায় সমাপ্য চলতি অর্থ বছর কোনরকম রাজনৈতিক বৈরী পরিস্থিতির মুখে পড়েনি। এ সময়ে বেকর্ড পরিমাণ রিজার্ভ, লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশী জিডিপি অর্জন ও মুদ্রা স্ফিতির নিম্ন হারের মাধ্যমে অর্থনীতি শক্তিশালী হয়েছে।
অর্থমন্ত্রী ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে তার বাজেট বক্তৃতায় বলেছিলেন যে ২০১৯-২০২০ সালের মধ্যে জিডিপি প্রবৃদ্ধি পর্যায়ক্রমে ৮ শতাংশে উন্নীত হবে। অবশ্য তিনি একথাও বলেছিলেন যে ৬ষ্ঠ পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার কিছু অসমাপ্য লক্ষ্যগুলোর প্রতি অধিকতর নজর দেয়া প্রয়োজন।
এই প্রেক্ষাপটে মুহিত অধিক জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জনে পরবর্তী বাজেট বক্তৃতায় একটি রোড ম্যাপ উপস্থাপন করবেন।
তিনি ইতোমধ্যে আভাষ দিয়েছেন যে আগামী বাজেটের আকার হবে ৩ লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকা। এতে কিছু মেগা প্রকল্পে অর্থায়নের বিধান এবং উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য বর্ধিত বরাদ্দ থাকবে।
পরবর্তী বাজেটে দেশকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যের অনুসরণে অন্যান্য বিশেষ দিকও অন্তর্ভুক্ত থাকবে।
আসন্ন বাজেটে দেশে রাজস্ব ব্যবস্থার সংস্কারের প্রস্তাব থাকবে। এ বাজেটে সরকার যাতে অধিক আভ্যন্তরীন রাজস্ব সংগ্রহ করতে পারে এবং বাজেট ঘাটতি ৫ শতাংশের বেশী না হয় সে জন্য নতুন মূল্য সংযোজন আইন ও কাস্টম আইন চালু এবং রাজস্ব বোর্ডের প্রধান প্রধান কর্মকান্ড অটোমেশনের প্রস্তাব থাকবে।
এতে সম্ভব্য করদাতাদের করের আওতায় এনে কর পরিধি বাড়ানোর কৌশল থাকবে। বর্তমানে ১৭ টিআইএনধারীর মধ্যে প্রায় ১২ লাখ আয়কর বিবরণী দাখিল করেন। আগামী ৪ বছরে সক্রিয় এ করদাতা ৩০ লাখে উন্নীতের পরিকল্পনা রয়েছে।
পূর্ববর্তী বছরের মতো এবারও বাজেট পাওয়ার পয়েন্টে মাধ্যমে উপস্থাপিত হবে এবং তা অর্থ বিভাগেরwww.mof.gov.bd. www.mof.gov.bd. ওয়েব সাইটে পাওয়া যাবে।
এ ছাড়া পূর্ণাঙ্গ বাজেট বক্তৃতা www.bangladesh.gov.bd, www.nbr-bd.org, www.plancomm.gov.bd, www.imed.gov.bd, www.bdpressinform.org and www.pmo.gov.bd and at the BSS website www.bssnews.net. পাওয়া যাবে।
অর্থমন্ত্রী ৩ জুন শুক্রবার ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বাজেট পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করবেন।

সোনালীনিউজ/এইচএআর

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩