রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

বেড়েছে চিনির দাম

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ১১:৩৯ এএম

বেড়েছে চিনির দাম

সোনালীনিউজ ডেস্ক:

আমদানি শুল্ক বাড়ানোর আগাম খবরে চিনির দাম হঠাৎ কেজিতে পাঁচ টাকা বেড়ে গিয়েছিল; ঘোষণার পর তার সঙ্গে যোগ হয়েছে আরও দুই টাকা। শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে খোলা চিনি ৪৫ থেকে ৪৭ টাকা দামে বিক্রি হতে দেখা গেছে, যা গত সপ্তাহে সর্বোচ্চ ৪৫ টাকা কেজি দরে মিলেছিল।

এর আগে ২৩ ডিসেম্বর জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চিনি আমদানিতে নতুন করে ১৫ শতাংশ মূল্য সংযোজন কর (মূসক) আরোপ করে। একইসঙ্গে পরিশোধিত ও অপরিশোধিত চিনির আমদানি মূল্যও টনপ্রতি ৩০ ডলার বাড়ানো হয়।

এর ফলে অপরিশোধিত চিনির আমদানিমূল্য প্রতি টন ৩২০ ডলার থেকে বেড়ে ৩৫০ ডলার, আর পরিশোধিত চিনির আমদানিমূল্য প্রতি টন ৪০০ থেকে বেড়ে ৪৩০ ডলার দাঁড়িয়েছে। সরকারি এই সিদ্ধান্তের প্রভাবে পাইকারি ও খুচরা বাজারে চিনির দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। যদিও বেসরকারি খাতের চিনি পরিশোধনকারিদের দাবি তারা এখনও দাম বাড়াননি।  

দেশের অন্যতম চিনি পরিশোধনকারী প্রতিষ্ঠান সিটি গ্রুপের মহাব্যবস্থাপক বিশ্বজিৎ সাহা বলেন, “সরকার চিনি আমদানিতে শুল্ক বাড়াবে এমন খবর প্রচারিত হওয়ার পর থেকে চিনির দাম বাড়ছে। তবে আমরা এখনও মিল গেটে দাম বাড়াইনি।”

অপরদিকে পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমদানি খরচ বেড়ে যাওয়া ও  মিল গেটে দাম বাড়ায় চিনির দাম বেড়েছে।

মৌলভীবাজারের ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ আলী ভুট্টো বলেন, “পাইকারি বাজারে চিনির দাম কেজিতে ২ টাকা বেড়েছে। তবে সরকার যে হারে শুল্ক বাড়িয়েছে সেই হিসেবে দাম এখনও কম। আগামীতে চিনির দাম আরেকটু বাড়বে।”

বৃহস্পতিবার মৌলভীবাজারে প্রতি মণ চিনি ১৫৮০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে, অর্থাৎ প্রতি কেজি চিনির পাইকারি দর ছিল ৪২ টাকা ৬৬ পয়সা। মিল মালিকরা একবারে না বাড়িয়ে ধাপে ধাপে দাম বাড়াচ্ছে বলে জানান তিনি।

সরকারি বাণিজ্যিক সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের তথ্য মতে, এক মাসের ব্যবধানে চিনির দাম প্রায় ১০ শতাংশ বেড়েছে।

সোনালীনিউজ/ঢাকা

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩