বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

ব্যবসায়ী হয়েও দেশসেবার স্বপ্ন অপূর্ণ থাকেনি

বিশেষ প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০১৭, মঙ্গলবার ০৩:৫৭ পিএম

ব্যবসায়ী হয়েও দেশসেবার স্বপ্ন অপূর্ণ থাকেনি

ঢাকা: ছোটবেলায় স্বপ্ন ছিল রাজনীতিবিদ হয়ে দেশসেবা করব, কিন্তু কিভাবে যে জীবনের মোড় ঘুরে পুরোদস্তুর ব্যবসায়ী হয়ে উঠলাম, টেরই পেলাম না। তবে একটা জিনিস এখনও অমলিন, আর তা হচ্ছে দেশসেবা। সেটা এখনও করে যাচ্ছি। করে যাব আজীবন। ব্যবসায়ী হয়েও আমার দেশসেবার স্বপ্ন অপূরণ থাকেনি।

শুক্রবার (৬ মে)  সন্ধ্যা ৭ টায় রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭ নম্বরে একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের উদ্দেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলছিলেন ইউনুছ গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও নব্য প্রতিষ্ঠিত ওয়ার্ডব্রিজ (ইংরেজি মাধ্যম) স্কুলের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি ও ওয়ার্ডব্রিজ স্কুলের প্রধান উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর হোসেন, আরও উপস্থিত ছিলেন স্কুলের ভাইস প্রিন্সিপাল চামেলী সাত্তার,  ম্যানেজিং পার্টনার ও গণিতের শিক্ষক দেবাশীষ সাহা, ম্যানেজিং পার্টনার ও হিসাববিজ্ঞানের শিক্ষক মহিতুর রহমান ও স্কুলের প্রশাসনিক কর্মকর্তা জান্নাতুল ফেরদৌস।

ওয়ার্ডব্রিজ স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ বলেন, জীবনের লক্ষ্য ঠিক থাকলে সাফল্য আসবেই। শিক্ষার্থীদের তার লক্ষ্যে পৌছানোর সিঁড়ি তৈরি করে দিতে চায় ওয়ার্ডব্রিজ স্কুল। দেশ সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবে গড়ে উঠবে ওয়ার্ডব্রিজ। শিক্ষার্থীদের সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলাই হবে এ স্কুলের প্রধান লক্ষ্য। ওয়ার্ডব্রিজ চেয়ারম্যান বলেন, এ দেশে অনেক স্কুল আছে, তার পরও আরও ভালো স্কুল প্রতিষ্ঠা করা জরুরি। আমরা সেটাই করছি। সৎ, দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক নিয়োগে কোনো কম্প্রোমাইজ হবে না। এই স্কুলে সন্তানকে পাঠিয়ে আপনি নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন। কারণ শিক্ষার্থী স্কুলে ঢোকার পর আপনি মুঠোফোনে একটি বার্তা পাবেন, বের হবার সময়ও একইভাবে আপনাকে জানানো হবে। বিশ্বমানের স্কুলিং ব্যবস্থাপনা পাবেন ঘরে বসেই।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এখন শিক্ষার্থীরা কোচিং নির্ভর হয়ে উঠেছে। আমাদের সময়ে কোচিং ছিল না, তখনও শিক্ষার্থীরা ভালো রেজাল্ট করত। ওয়ার্ডব্রিজ স্কুল ম্যানেজমেন্ট শিক্ষার্থীদের কোচিং নির্ভরতা কমিয়ে আনবে শুনে ভালো লাগছে। কমিটমেন্টের বাস্তবরূপ দেখতে চাই। আশা করছি, প্রতিটি শিক্ষার্থীকেই দেশের একজন সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তুলবে ওয়ার্ডব্রিজ।

স্কুলের জনপ্রিয় গণিত শিক্ষক দেবাশীষ সাহা তার বক্তব্যে বলেন, এখনকার শিক্ষার্থীরা সিলেবাসনির্ভর। এর বাইরে যেন তাদের আর কিছু জানার নেই। এ মানসিকতার পরিবর্তন আনতে হবে, আর সেটা সম্ভবও। ওয়ার্ডব্রিজ দায়িত্ব নিয়ে এসব কাজ করে যাবে। আমাদের স্কুল লিডারশিপ তৈরি করতে চায়। সে লক্ষ্যেই এগিয়ে চলেছে ওয়ার্ডব্রিজ।

অনুষ্ঠান শেষে অভিভাবকরা অনেক কিছুই জানতে চান স্কুল সম্পর্কে। এক অভিভাবক বলেন, অনেক ইংরেজি মাধ্যমের শিক্ষক সপ্তাহ পার আগেই পরিবর্তন হয়ে যায়, এতে সমস্যা তৈরি হয়। এসব সমস্যা কিভাবে মোকাবেলা করবে ওয়ার্ডব্রিজ ম্যানেজমেন্ট। উত্তরে দেবাশীষ সাহা বলেন, এ ধরনের কোনো সমস্যা ওয়ার্ডব্রিজে নেই, ভবিষ্যতেও থাকবে না। আপনাদের পরামর্শ নিয়েই এগিয়ে যেতে চায় ওয়ার্ডব্রিজ স্কুল।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/জেডআরসি/এটিআই