বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭, ৭ ভাদ্র ১৪২৪

মনের মধ্যে বসত করে কয়’জনা!

সোনালীনিউজ অনলাইন
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

মনের মধ্যে বসত করে কয়’জনা!

গতকাল যে মুখে একজনকে প্রেমের কথা জানালে সেই মুখে আজ আরেকজনকে ভালোবাসা বিলিয়ে দিচ্ছ অথচ তোমার বিবেক তোমাকে একটুও ধাক্কা দিলো না ? তোমার মনের বিবর্তনের গতি তো ডারউইনের সৃষ্টি প্রক্রিয়ার বিবর্তনের গতিকেও হার মানিয়েছে ! তোমার ভাগ্যভালো যে, তোমার জিহ্বা এবং ঠোঁট তোমার বিরোধিতা করতে জানে না। যদি জানত, তবে তোমার ভন্ডামীর মুখোশ উম্মোচন করে দিতো জনে জনে।

গতরাতে যার মনে তাকে নিয়ে সকালের সিগ্ধতা উদযাপনের স্বপ্ন এঁকেছিলে সেই তাকে ফাঁকি দিয়ে আজকে অন্যকাউকে নিয়ে উষা কিংবা গোধূলির সাথে চলার ক্ষমতা তোমার আছে, তবে সেটা কপটতা বটে। এটাকে ভালোবাসা বলে না যেটা ক্ষনে-ক্ষনে কিংবা কারণে অকারণে বদলায়। আজ যাকে ভালোবাসি বললে তার মুখ থেকে প্রবর্তিত ভালোবাসার বুলি শুনতে না পারা পর্যন্ত তোমার ভালোবাসার স্বার্থকতা কোথায় ? হাল ছেড়ে দেয়ার নামা মোটেও ভালোবাসা নয়। প্রেমিক/প্রেমিকার ডায়েরিতে ব্যর্থতা বলে কোন শব্দের জন্ম হওয়া একেবারেই অনুচিত। যদি মনকে স্থির রাখতে পারো।

সকালের ভালোবাসা যদি বিকালে বদলে যায় তবে ভেবো, ওটা মোটেও ভালোবাসা ছিল না বরং তোমার আবেগের ন্যাকামি ছিল মাত্র। ভালোবাসা এতদ্রুত বদলাতে পারে না এবং এটা ব্যক্তি, কাল কিংবা অবস্থানভেদে একেবারেই বদলানোর নয়। তোমার বয়সের বিভিন্নি সিঁড়িতে যদি ভালোবাসা বদলে যায় তবে যেনো, ওটা তোমার ভালোবাসা ছিলোই না। ভালোবাসা যে মূলত কি তা তুমি উপলব্ধি করতে পারোনি মোটে। তুমি চেয়েছিলে তোমার স্বার্থ হাসিল করতে আর ভালোবাসা তার স্বার্থ হাসিল করে তোমাকে পথে ফেলে একাই চলে গেল অন্য বাঁকে।

দ্বী-চারি কিংবা বহুগামীদের মনের তৃপ্তি কোনদিন আসবে না। সল্পে তুষ্ট না হতে পারলে সুখী হওয়ার ণূন্যতম সম্ভাবনা নেই। ভালোবাসতে শিখো ভালোবাসার মত করে। অন্ধ কিংবা আবেগের ভালোবাসায় সব খুইয়ে প্রকৃত ভালোবাসার কাছে দেউলিয়াত্ব প্রকাশ করো না যেন। যে কোন স্তরের প্রকৃত ভালোবাসা জীবনে বারবার আসে না বরং ওটা একবারেই আসে। মরীচিকার পিছনে না দৌড়ে সত্যকে বুঝতে শেখো, শেখো উপলব্ধি করতে। ক্ষণের মোহে অন্ধ হয়ে স্থায়ী সুখের আবাস ভেঙ্গে ফেলে বোকার। নিশ্চয়ই তুমি বোকাদের দলভূক্ত হওয়ার মত বোকামী করতে চাইবে না।  

সোনালীনিউজ/ঢাকা/আকন