বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭, ৭ ভাদ্র ১৪২৪

মানিকগঞ্জে নিজ ঘরে মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষিত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

মানিকগঞ্জে নিজ ঘরে মাদ্রাসাছাত্রী ধর্ষিত

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলায় নিজ ঘরে ধর্ষণের শিকার হয়েছে অষ্টম শ্রেণির এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থী। অসুস্থ অবস্থায় দুদিন ধরে সে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রতিবেশী মিল্টন হাজারী (২২) ঘরে ঢুকে মেয়েটিকে ধর্ষণ করেন বলে ভুক্তভোগীর বাবা অভিযোগ করেছেন। মিল্টন ঝিটকা ভিলেজ লাইন বাসের সুপারভাইজার। মাদ্রাসার ওই ছাত্রী দিনমজুরের মেয়ে। মেয়েটির বাবা জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে মেয়েকে একা বাড়ি রেখে তাঁর স্ত্রী পাশের ক্ষেতে মরিচ তুলতে যান। এ সময় প্রতিবেশী মিল্টন ঘরে ঢুকে দরজা আটকে ওড়না দিয়ে মেয়ের হাত-পা ও মুখ বেঁধে ধর্ষণ করেন। কিছুক্ষণ পরে মেয়ের মা বাড়ি এলে ঘরের দরজা খুলে দ্রুত সটকে পড়েন মিল্টন। তা দেখে দ্রুত ঘরে ঢুকে মেয়েকে বিবস্ত্র, হাত-পা ও মুখ বাঁধা থেকে মুক্ত করেন তিনি।

এ সময় মেয়েটি মায়ের কাছে ধর্ষণের ঘটনা জানালে তাকে মানিকগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আত্মীয়স্বজনদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে এ ঘটনায় মামলা করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে বলে জানান মেয়েটির বাবা। মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) লুৎফর রহমান সাংবাদিকদের জানান, মেয়েটিকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। মেয়েটির শরীর থেকে ধর্ষণের আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। পুলিশি কাগজপত্র এলে মেয়েটার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে।
হরিরামপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম গতকাল শনিবার জানান, বিষয়টি নিয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ দেননি। বিষয়টি খোঁজ নিতে হাসপাতালে ও ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হচ্ছে। ধর্ষণের ব্যাপারে মিল্টনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তাঁর বাবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই