শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসী শ্রমিকদের নিবন্ধন চলবে ১৫

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৪ পিএম

মালয়েশিয়ায় অবৈধ প্রবাসী শ্রমিকদের নিবন্ধন চলবে ১৫

সোনালীনিউজ ডেস্ক

মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত অবৈধ বাংলাদেশী প্রবাসী শ্রমিকদের নিবন্ধন প্রক্রিয়া চলবে আগামী ১৫ মে পর্যন্ত। মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মালয়েশিয়ায় বর্তমানে ২০ লাখের বেশি অবৈধ শ্রমিক অবস্থান করছেন। এর মধ্যে প্রায় ৩ লাখ বাংলাদেশি শ্রমিক। চলতি বছর অবৈধদের বৈধকরণে নিবন্ধনের উদ্যোগ নেয় মালয়েশিয়ার সরকার। এরই অংশ হিসেবে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রক্রিয়াটি শুরু হয়।

বাংলাদেশসহ ১৫টি সোর্স কান্ট্রিকে একটি গ্রুপে এবং ইন্দোনেশিয়া ও মিয়ানমারকে আলাদা গ্রুপের অন্তর্ভূক্ত করে এ নিবন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পাঁচটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ যে গ্রুপে পড়েছে, সে গ্রুপের দেশগুলোর শ্রমিকদের নিবন্ধনের দায়িত্ব পেয়েছে মাইইজির নেতৃত্বে পিএমএফ কনসোর্টিয়াম।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের শ্রম বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশি শ্রমিকদের নিবন্ধনের জন্য দু’টি সেক্টরে ভাগ করা হয়েছে। এর একটি এমপ্লয়মেন্ট, অপরটি ট্যুরিস্ট বা সোশ্যাল ভিজিট। এমপ্লয়মেন্ট সেক্টরটি শ্রমিকদের জন্য।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, ক্যাটাগরি-এ'র অধীনে যেসব বাংলাদেশি শ্রমিক কোনো প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে মালয়েশিয়ায় গেছেন এবং এখনও সে প্রতিষ্ঠানেই কাজ করছেন কিন্তু ছয় মাসের বেশি সময় ধরে ওয়ার্ক পারমিট ছাড়া অবস্থান করছেন, তারা নিবন্ধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে তারা ওই প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের মালিকের মাধ্যমে নিবন্ধন করে পাঁচ বছর পর্যন্ত ভিসা নবায়ন করতে পারবেন।

অপরদিকে, যেসব শ্রমিক মালয়েশিয়ায় যাওয়ার পর প্রতিষ্ঠান পরিবর্তন করেছেন এবং ছয়মাসের বেশি সময় ধরে ওয়ার্ক পারমিট ছাড়া অবস্থান করছেন, তারাও নিবন্ধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে তারা বর্তমান প্রতিষ্ঠান বা অন্য কোনো প্রতিষ্ঠানের মালিকের মাধ্যমে নিবন্ধন করে তিন বছর পর্যন্ত ভিসা নবায়ন করতে পারবেন।

ক্যাটাগরি-বি'র অধীনে পড়বেন স্যোশাল ভিজিট বা ট্যুরিস্ট ভিসায় মালয়েশিয়ায় গিয়ে যারা থেকে গেছেন। যদি ২০১৫ সালের আগস্ট মাস থেকে তাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে থাকে, তাহলে যে কোনো প্রতিষ্ঠানের মালিকের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে পারবেন তারা। এক্ষেত্রে ভিসার মেয়াদ কতদিন পর্যন্ত হবে, তা নিবন্ধনকারী প্রতিষ্ঠানই ঠিক করবে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নৌপথে অথবা থাইল্যান্ড বা ইন্দোনেশিয়া কিংবা সিঙ্গাপুরের সীমান্ত দিয়ে মালয়েশিয়ায় যারা প্রবেশ করেছেন, তারাও নিবন্ধন করতে পারবেন। স্টুডেন্ট ভিসায় প্রবেশ করে থাকলেও নিবন্ধনের সুযোগ পাওয়া যাবে। এছাড়া ২০১১ সালের ১৫ জুন থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত মালয়েশিয়ার সরকারের ৬-পি কমূর্সচির আওতায় নিবন্ধিত শ্রমিকরাও পুনঃনিবন্ধন করতে পারবেন। সেই সঙ্গে কোনো প্রতিষ্ঠান কর্তৃক কালো তালিকাভুক্ত হয়ে থাকলে, প্রফেশনাল ভিসায় অবস্থানের পর অবৈধ হয়ে গেলেও নিবন্ধনের সুযোগ থাকছে।

 

সোানলীনিউজ/ঢাকা/মে


 

 

add-sm
Sonali Tissue
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩