শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের ৭২তম জন্মবার্ষিকী

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ১১:৩৯ এএম

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের ৭২তম জন্মবার্ষিকী

  নিজস্ব প্রতিবেদক, সোনালীনিউজ ডটকম

রাজনৈতিক সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বর্ণময় জীবনের বাহাত্তর বছর পার করলেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

১৯৪৪ সালের ১ জানুয়ারি আবদুল হামিদ কিশোরগঞ্জের মিঠামইন উপজেলার কামালপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় তার ৭২তম জন্মবার্ষিকীতে বঙ্গভবনের দরবার হলে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা রাষ্ট্রপতিকে শুভেচ্ছা জানান।

রাষ্ট্রপতি সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, “কোনো কিছু পাওয়ার মোহে রাজনীতি করিনি। সারা জীবন রাজনীতি করেছি জনগণের কল্যাণে। বাকি জীবন যাতে জনগণের কল্যাণে কাজ করতে পারি সেজন্য সকলের দোয়া কামনা করছি।”

পরে আবদুল হামিদের দীর্ঘায়ু এবং দেশ ও জাতির শান্তি-সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়, যাতে তার পরিবারের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

আবদুল হামিদের রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় ১৯৫৯ সাল, ছাত্রলীগে যোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে।

১৯৬১ সালে কলেজের ছাত্র থাকা অবস্থায় তিনি যোগ দেন আইয়ুববিরোধী আন্দোলনে। এক পর্যায়ে তাকে কারাগারেও যেতে হয়।

১৯৭০ সালের নির্বাচনে ময়মনসিংহ-১৮ আসন থেকে পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য নির্বাচিত হন আবদুল হামিদ। মুক্তিযুদ্ধে অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে চলতি বছর আব্দুল হামিদকে স্বাধীনতা পদকে ভূষিত করা হয়।

১৯৭৩ সালের ৭ মার্চ দেশের প্রথম সাধারণ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-৫ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আবদুল হামিদ। ১৯৮৬ সালের তৃতীয় সংসদ, ১৯৯১ সালের পঞ্চম সংসদ, ১৯৯৬ সালের সপ্তম সংসদ, ২০০১ সালের অষ্টম সংসদ এবং সর্বশেষ ২০০৮ সালের নির্বাচনেও তিনি সদস্য নির্বাচিত হন।

সপ্তম সংসদে ১৯৯৬ সালের ১৩ জুলাই থেকে ২০০১ সালের ১০ জুলাই পর্যন্ত ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালনের পর ২০০১ সালের ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত স্পিকার হিসাবে সংসদ পরিচালনা করেন আবদুল হামিদ।

আর নবম সংসদে নির্বাচিত হওয়ার পর দ্বিতীয়বারের মতো স্পিকার হন তিনি।

আবদুল হামিদ ২০১৩ সালের ২৪ এপ্রিল বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ নেন। 

তিন পুত্র ও এক কন্যা সন্তানের জনক তিনি।

add-sm
Sonali Tissue
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩