বুধবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৮, ৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

লাঙলকে ভোট দেন, একটা মানুষও মরবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার ০৭:১৩ পিএম

লাঙলকে ভোট দেন, একটা মানুষও মরবে না

ঢাকা : জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ বলেছেন, ‘এ দেশের সমাজব্যবস্থা পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে। প্রতিদিন কত মানুষ মারা যায়, খুন হয়, গুম হয়, তার হিসাব নেই। জীবনের নিশ্চয়তা নেই। ক্ষমতার পালাবদল হয়, কিন্তু মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হয় না। ক্ষমতার পালাবদল নয়, মানুষ পরিবর্তন চায়। মানুষ শান্তি চায়, জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দেখতে চায়।’

রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের সরকারি জুবিলি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত জেলা জাতীয় পার্টির দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক পীর ফজলুর রহমান মিসবাহর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ, যুগ্ম মহাসচিব সিলেট-২ আসনের সংসদ সদস্য ইয়াহহিয়া চৌধুরী এহিয়াসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

প্রখর তাপদাহের মধ্যে ঢোল বাদ্য বাজিয়ে শ্লোগানে শ্লোগানে সকাল থেকে হাজার হাজার মানুষ এসে যোগ দেয়। তুমুল করতালি আর শ্লোগানের মধ্যে এরশাদ বলেন, সুনামগঞ্জ সদর আসনে আপনাদের মিসবাহকে প্রার্থী ঘোষণা করে দিয়ে গেলাম। তাকে বিজয়ী করবেন।

মহাজোটে এ আসন আমি ছাড় দেবো না, মিসবাহই আমার প্রথম ঘোষিত প্রার্থী উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখনো আমি আমার এলাকায়ও প্রার্থী ঘোষণা করিনি।

জনজোয়ারে দাঁড়িয়ে পীর মিসবাহর সততা ও গণমুখী রাজনীতির কথা উল্লেখ করে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, এমন প্রার্থী বিজয়ী হয়ে সংসদে এলে মানুষ দেশ ও এলকার মানুষ উপকৃত হয়। তিনি পীর মিসবাহর হাত উচু করে বলেন, আমি পীর মিসবাহকে আজ নির্বাচনে বিজয়ী করতে আপনাদের হাতে তুলে দিয়ে গেলাম।

সাবেক এ রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, ২০০১ সালের নির্বাচনে জাতীয় পার্টি সিলেট বিভাগ থেকে আটটি আসনে জয়লাভ করেছিল। এবার আরও বেশি আসনে জয়লাভ করতে হবে।

তিনি বলেন, ‘আমি সারা জীবন মানুষের জন্য রাজনীতি করেছি। এখন আমার বয়স হয়েছে, কিন্তু মানুষ দেখলে আমার বয়স কমে যায়। প্রখর রোদের মধ্যে আপনারা ছুটে এসেছেন। মিসবাহ বলেছিল, সম্মেলনে ৫০ হাজার লোক হবে। এখন দেখছি, মানুষ আরও বেশি হয়েছে। আমি নিজের জন্য কিছু চাই না। মানুষের মুক্তি চাই, মানুষের অধিকার চাই।’

অাওয়ামী লীগ নেতা তোফায়েল আহমদের বক্তব্যের সমালোচনা করে এরশাদ বলেন, তিনি (তোফায়েল আহমেদ) আওয়ামী লীগ ভবিষ্যতে ক্ষমতায় না যেতে পারলে দেশে এক লাখ লোক মারা যাবে। আপনারা জাতীয় পার্টিকে ক্ষমতায় দিন। আমি বলছি, একজন লোকও মারা যাবে না। আমরা প্রতিহিংসার রাজনীতি করি না। আমরা পরিবর্তন চাই। এই পরিবর্তন জাতীয় পার্টি আনতে পারে।’

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে বিচার বিভাগ স্বাধীন হবে, দলীয়করণ হবে না, দেশে গুম-খুন থাকবে না। দেশের মানষ শান্তিতে থাকবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার বলেন, জাতীয় পার্টি যখন ক্ষমতায় ছিল, নানা সমালোচনা হয়েছে জাতীয় পার্টির বিরুদ্ধে। কিন্তু কাউকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়নি। দেশে অন্যায় অবিচার চলবে, কিন্তু প্রতিবাদ করা যাবে না; প্রতিবাদ করলেই মামলার ভয় দেখানো হয়।

আগামী নির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেওয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘কঠিন সময় চলছে, ইচ্ছে করলেই সবকিছু বলা যাবে না। সরকার আসে সরকার যায়, মানুষের ভাগ্যের কোনো পরিবর্তন হয় না। লাঙলে ভোট দিন, আমরা শান্তি দেব, শান্তির নীড় উপহার দেব।’

সভাপতির বক্তব্যে পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ বলেন, গত পাঁচ বছর সংসদ সদস্য হিসেবে আপনাদের সেবা করেছি, আপনাদের হাতে হাত রেখে চলেছি। যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তা সাধ্যমতো বাস্তবায়ন করেছি। আবার বিজয়ী হলে সুনামগঞ্জের চেহারা পাল্টে দেব।

সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue