বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

শচীন-পুত্রকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবেই এমন বিতর্ক!

স্পোর্টস ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

শচীন-পুত্রকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবেই এমন বিতর্ক!

ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার পুত্র অর্জুন। ক্রিকেট মাঠে তার ভূমিকা একজন অলরাউন্ডার হিসেবে। ব্যাটে-বলে দারুণ পারফর্ম করে থাকেন ১৫ বছর বয়সী এই উঠতি অলরাউন্ডার। অপরদিকে, চলতি বছরের জানুয়ারিতে ৩২৩ বলে ১০০৯* রান করে বিশ্বরেকর্ড গড়া প্রণব ধানওয়াড়ের ভূমিকা একজন উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান।

সম্প্রতি ভারতের পশ্চিমাঞ্চল অনূর্ধ্ব-১৬ স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন অর্জুন টেন্ডুলকার। ওই দলে জায়গা হয়নি প্রণবের। এতে গোটা ভারত জুড়ে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। আবেগপ্রবণ ক্রিকেটপ্রেমীদের দাবি, অর্জুনের বাবা একজন ক্রিকেট মহাতারকা, আর প্রণবের বাবা অটোরিকশা চালক। নইলে কি আর এমনটা ঘটবে?

অথচ দলে দু’জনের ভূমিকা দুই জায়গায়। অর্জুনের তুলনা হবে মূলত একজন অলরাউন্ডারের সঙ্গে, কোনো উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যানের জন্য নয়। তা ছাড়া হাজার রান করে বিশ্বরেকর্ড গড়ার পর ক্রিকেটে ধারাবাহিক ছিলেন না প্রণব। দশম শ্রেণির পরীক্ষা নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন তিনি। মাঠে ফিরলেও তার ব্যাট ততটা হাসেনি। তাহলে পরিকল্পিতভাবেই শচীন-পুত্রকে নিয়ে এমন বিতর্ক!

ভারতের ক্রিকেটপ্রেমীর এমন বিতর্কে হতাশ ভারতের পশ্চিমাঞ্চল অনূর্ধ্ব-১৬ দলের কোচ মুবিন শেখ। বলেন, ‘আমি শুনেছি, প্রণবকে দলে না নেয়ায় বেশ সমালোচনা হচ্ছে। এর জন্য আমরা হতাশ। এমনটা চিন্তাই করিনি। এমন কিছু কথা বলা উচিত নয় যা আমাদের নিয়ন্ত্রণের বাইরে।’
   
মুবিন শেখ আরো বলেন, ‘এক হাজার রানের অনন্য কীর্তি গড়ার পর খেলা নিয়ে কাজ করার যথেষ্ট সময় পায়নি প্রণব। কারণ দশম শ্রেণির পরীক্ষা নিয়ে ব্যস্ত ছিল সে। তার হাতে সময় আছে। এমন বিতর্ক ছড়িয়ে তাকে চাপে ফেলা উচিত হবে না। খেলাটাকে উপভোগ করার সুযোগ দিতে হবে প্রণবকে। আশা করছি, সে দ্রুতই রানে ফিরবে। কারণ প্রণব একজন মেধাবী উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান।’

এই ইস্যু নিয়ে শচীন টেন্ডুলকারের মান ক্ষুণ্ণ হোক এমন কথা থেকে ভারতের জনতাকে বিরত থাকতে আহ্বান জানান ভারতের পশ্চিমাঞ্চল অনূর্ধ্ব-১৬ দলের কোচ মুবিন শেখ। বলেন, ‘অর্জন-প্রণবকে নিয়ে এমন কা- ঠিক নয়। তারা দুজন ভালো বন্ধু। তারা এক সঙ্গে খেলেছে। অর্জুন ভালো ক্রিকেটার। এটা শুনে মর্মাহত হয়েছি যে তার বাবার কারণে দলে নেয়া হয়েছে। এটা আমাদের মনে রাখা ভালো যে অনেক সময় টেন্ডুলকার এ দেশের সম্মান বয়ে এনেছেন। তার মান ক্ষুণ্ণ হোক এমন কথা থেকে বিরত থাকাই ভালো।’

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই

add-sm
Sonali Tissue
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩