রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০১৭, ১১ চৈত্র ১৪২৩

ইউপি নির্বাচন

শেষ ধাপে গেল ৩ প্রাণ

সোনালীনিউজ ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

শেষ ধাপে গেল ৩ প্রাণ

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের শেষ ধাপে ৭১০ ইউপিতে ভোটগ্রহণ শেষে এখন চলছে গণনা।এদিকে শেষ ধাপেও কেন্দ্র দখল ও প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ময়মনসিংহ, ফেনী ও নোয়াখালীতে তিনজন নিহত, আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫০ জন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এসময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী গুলিবর্ষণ ও লাঠিচার্জ করে।

দেশের ৪৬ জেলার ৯২ উপজেলায় শনিবার (৪ জুন) সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়, চলে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।মোট ৭১০ ইউপির সাড়ে ছয় হাজার কেন্দ্রে ১ কোটি ১০ লাখের বেশি ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন।

বিভিন্ন স্থান থেকে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

ময়মনসিংহ : বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে জেলার গফুরগাঁও উপজেলার সালতিয়া ইউনিয়নের পুকুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল নিয়ে সদস্য প্রার্থী মোশারফ হোসেন ও আব্দুল করিমের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এসময় পুলিশ ও বিজিবি লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষণ করে। এ সময় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় পড়ে সদস্য প্রার্থী মোশারফ হোসেনের বড় ভাই শাহজাহান মিয়া (৫২) নিহত হন।

ময়মনসিংহ পুলিশ সুপার (এসপি) মঈনুল হক জানান, কেন্দ্র দখলকে কেন্দ্র করে দুই সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এসময় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় একজন নিহত হয়েছেন।

তিনি আরও জানান, পরিস্থিতি শান্ত করবে পুলিম ও বিজিবি লাঠিচার্জ এবং গুলিবর্ষণ করে।

ফেনী : ফেনীর সোনাগাজীতে কেন্দ্র দখল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সমর্থকদের সংঘর্ষে মো. সুমন (৩০) নামে যুবক নিহত হয়েছেন। উপজেলার চরচান্দিয়া ইউনিয়নের চর ভৈরব হাজী তোফায়েল আহমেদ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে শনিবার সকাল ১০টার দিকে ভোট চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।

কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার জয়নাল আবদীন জানান, ভোট চলাকালে কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোশারফ হোসেন মিলন ও বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুদ্দিন খোকনের সমর্থকদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এ সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে মো. সুমন নিহত এবং আরও ৮ জন আহত হন।

তাদের সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার পর ওই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।

নিহত সুমনকে নিজের কর্মী বলে দাবি করেছেন বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুদ্দিন খোকন।

নোয়াখালী : নোয়াখালীর সদর উপজেলার নেয়াজপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে দুই সদস্য প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে গুলিবিদ্ধ হয়ে আরাফাত (২৩) নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী নিহত হয়েছেন।

শনিবার (৪ জুন) সকালে ইউনিয়নের ভেলা নগর মোহাম্মদিয়া ইবতেদিয়া মাদ্রাসা ভোট কেন্দ্রে এ সংঘর্ষ হয়। এসময় আরাফাত গুলিবিদ্ধ হন। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা নেওয়ার পথে দুপুরে তিনি মারা যান।

সুধারাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমএইচএম

 

Sonali Bazar

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ২৬ মার্চ, ২০১৭, ১১ চৈত্র ১৪২৩