সোমবার, ১৯ নভেম্বর, ২০১৮, ৫ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

সাফে বাংলাদেশ কেন বারবার চার দলের গ্রুপে?

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার ০৭:৫৭ পিএম

সাফে বাংলাদেশ কেন বারবার চার দলের গ্রুপে?

ছবি: বাফুফের সৌজন্যে

ঢাকা: এই মুহুর্তে সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ) সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশি। তাই সাফের বেশিরভাগ টুর্নামেন্টের ড্র অনুষ্ঠিত হয় ঢাকাতেই। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে হবে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ভারত এবং মালদ্বীপ।  

দুই গ্রুপে ৭টি দেশ নিয়ে গত ৪ সেপ্টেম্বর মাঠে গড়ায় সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ। স্বাগতিক বাংলাদেশ পড়ে ৪ দলের গ্রুপে। তিনটি দল সমান ৬ পয়েন্ট করে পায়। কিন্তু গোল ব্যবধানে বাংলাদেশকে পিছনে ফেলে সেমিফাইনালে উঠে পাকিস্তান। অথচ মাত্র ১ পয়েন্ট পেয়ে সেমি উঠে নেপালকে হারিয়ে ফাইনালে খেলছে মালদ্বীপ। প্রশ্ন এখানেই।  

আগামী ২৫ অক্টোবর থেকে নেপালে শুরু হতে যাচ্ছে ছেলেদের সাফ অনুর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপ। বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) বাফুফে ভবনে অনুষ্ঠিত হয় টুর্নামেন্টের গ্রুপিং ড্র। এই ড্রয়েও চার দলের গ্রুপে পড়েছে বাংলাদেশ। ‘এ’গ্রুপে লাল সবুজের দলের সঙ্গী হয়েছে নেপাল, মালদ্বীপ পাকিস্তান।

গ্রুপ ‘বি’তে রয়েছে তিন দল। ভারত, ভুটান ও শ্রীলঙ্কা। সিনিয়র সাফ টুর্নামেন্টের মতোই অনুর্ধ্ব-১৫ সাফে বালাদেশের গ্রুপটা কঠিন। অন্যদিকে সুবিধাজনক গ্রুপে আছে ভারত। তাদের গ্রুপে দলও একটি কম। বারবার চার দলের গ্রুপে পড়ে কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখোমুখি হতে হচ্ছে বাংলাদেশকে।  

এদিন অনুষ্ঠিত হয় সাফ নারী (সিনিয়র) চ্যাম্পিয়নশিপের ড্র। যেখানেও চার দলের গ্রুপে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ আছে গ্রুপ ‘এ’তে। অন্য দলগুলো হলো নেপাল, ভুটান, পাকিস্তান। গ্রুপ ‘বি’তে আছে ভারত, মালদ্বীপ, শ্রীলঙ্কা। যদিও প্রথমে ঠিক হয়েছিলো ১৪ ডিসেম্বর থেকে হবে টুর্নামেন্টটি।

সাউথ এশিয়ান ফুটবল ফেডারেশনের (সাফ)  সাধারন সাম্পাদক  আনোয়ারুল হক হেলাল বলেছেন, ‘অংশগ্রহণকারী দলগুলোর আপত্তি ছিলো। পূর্ব নির্ধারীত সময়ে তাদের অনেকেরই পরীক্ষা থাকায় আমরা আগামী ১৭-২৬ ডিসেম্বর টুর্নামেন্ট করছি।’

গ্রুপিং হলেও টুর্নামেন্টের ভেন্যু এখনো ঠিক হয়নি। এ প্রসঙ্গে হেলাল বলেছেন, ‘আমরা চাই বিভিন্ন দেশ টুর্নামেন্টটি করুক। এবার হোস্ট হিসেবে আমরা শ্রীলঙ্কাকে প্রথম পছন্দে রেখেছি। নেপালও আগ্রহী। শ্রীলঙ্কা না করলে নেপালে হবে টুর্নামেন্ট। এছাড়া ভারত,পাকিস্তানও আগামী বছর থেকে টুর্নামেন্ট করতে চাচ্ছে। বাংলাদেশও চেয়েছিলো এবার সাফ আয়োজন করতে। তবে বিভিন্ন টুর্নামেন্টের ব্যস্ততার কারণে সম্ভব হয়নি।আমরা এমাসের মধ্যে হোস্ট বাছাই করবো। হোস্ট দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করবো তাই ফিক্সচার এখনো করা হয়নি।’

সোনালীনিউজ/ঢাকা/জেডআই