বৃহস্পতিবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫

মোদির ভারতে ‘মিস সোশ্যাল’

সুন্দরীদের খোঁজে বিজেপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১০ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার ১২:৫৮ পিএম

সুন্দরীদের খোঁজে বিজেপি

ঢাকা : ভারতে হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম তথা সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে ক্ষমতাসীন বিজেপিকে একের পর এক তীরে ঘায়েল করে চলেছে কংগ্রেস। ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে কংগ্রেসকে ধরাশায়ী করতে এবার বিজেপি নতুন অস্ত্র হিসেবে ‘মিস সোশ্যাল’ খুঁজছে। সুন্দরীর পাশাপাশি মেধাবী সন্ধানের এ প্রতিযোগিতারও আয়োজন করে ফেলেছে বিজেপি।

আপাতত মধ্যপ্রদেশেই এ প্রতিযোগিতার জন্য ফরম পূরণ চলছে। অন্য রাজ্যগুলোও একইভাবে ‘মিস সোশ্যাল’ সন্ধানে প্রতিযোগিতার আয়োজন করবে কিনা তা এখনও স্পষ্ট নয়। খবর টাইমস অব ইন্ডিয়ার।

‘মিস সোশ্যাল’ প্রতিযোগিতায় আবেদনের জন্য সুন্দরী হওয়ার পাশাপাশি দুটি শর্ত প্রয়োজন। এক, আবেদনকারীকে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে পারদর্শী হতে হবে। ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম ও হোয়াটসঅ্যাপে তার স্বচ্ছন্দ হওয়া জরুরি। দুই, রাজ্য ও কেন্দ্রের বিভিন্ন প্রকল্পগুলো সম্বন্ধে ভালোভাবে অবগত হতে হবে।

মধ্যপ্রদেশের বিজেপির নারী মোর্চার প্রধান লতা পোশাকি ভাষায় বিজেতাদের ‘বিউটি উইথ ব্রেন’ বলে সম্বোধন করছেন। তিনি বলেন, ‘নারীদের জন্য সোশ্যাল মিডিয়াকে অন্যভাবে কাজে লাগানোর প্রয়াস এটা। এতে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্প সম্পর্কে তারা অন্যকেও জানাতে পারবেন।

বিশেষ করে নারীদের জন্য যে সব প্রকল্প রয়েছে, তা অনেকেই জানেন না। প্রতিযোগিতায় বিজেতাদের কাজ হবে সেই প্রকল্পগুলো তাদের জানানো। আবেদনকারীদের হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম অ্যাকসেস থাকা বাধ্যতামূলক।’ তিনি আরও জানান, প্রতিযোগিতা সেই সব নারীর জন্যই, যারা সোশ্যাল প্লাটফর্মকে কাজে লাগিয়ে অন্যদের নানা বিষয় সম্বন্ধে শিক্ষিত করে তুলতে চান। ইচ্ছুক নারীরা আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে আবেদন করতে পারবেন।

তবে বিষয়টা শুধু ফরম পূরণ ও বাছাই পর্বেই স্থগিত থাকবে না। রীতিমতো পরীক্ষার মাধ্যমে বেছে নেয়া হবে ‘বিউটি উইথ ব্রেন’দের। তার জন্য থাকছে ৫০ নম্বরের প্রশ্নোত্তর পর্ব। বাকি ৫০ নম্বর থাকছে গত এক বছরে আবেদনকারীর সোশ্যাল মিডিয়ায় অংশগ্রহণের ওপর। ১৬ সেপ্টেম্বর প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

এর ১০ দিন পর অর্থাৎ ২৬ সেপ্টেম্বর ফল ঘোষণা। জেলা, বিভাগ ও রাজ্যস্তরে এই প্রতিযোগিতা হবে। বিজেতাদের জন্য অকর্ষণীয় পুরস্কারও রেখেছেন ওই রাজ্যের বিজেপি নেতৃত্ব। পুরস্কারের তালিকায় রয়েছে ল্যাপটপ, মোবাইল ফোন ও ট্যাব।

সোনালীনিউজ/এমটিআই