বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

সুপার লিগে ভিক্টোরিয়ার খেলা নিশ্চিত

ক্রীড়া প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

সুপার লিগে ভিক্টোরিয়ার খেলা নিশ্চিত

প্রাইম দোলেশ্বরের পর ওয়ালটন ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেটের সুপার লিগে খেলা নিশ্চিত করেছিল লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ। এবার তৃতীয় দল হিসেবে সুপার সিক্সে নাম লেখালো ভিক্টোরিয়া স্পোর্টিং ক্লাব। শনিবার মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলায় আব্দুল মজিদের সেঞ্চুরিতে ভিক্টোরিয়া ১১২ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে।

এদিনের জয়ের ফলে দশ খেলায় ১৩ পয়েন্ট নিয়ে সুপার লিগে খেলা নিশ্চিত করেছে ভিক্টোরিয়া। অপর দিকে সমান সংখ্যক খেলা থেকে ৮ পয়েন্ট পাওয়ার আর সেরা ছয়ে খেলা হলো না ব্রাদার্সের। উল্টো দলটিকে এবার রেলিগেশনে খেলার শঙ্কা জেগেছে। শনিবার আগে ব্যাট করতে নেমে আব্দুল মজিদের সেঞ্চুরিতে ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ৩০২ রানের বিশাল স্কোর গড়ে ভিক্টোরিয়া। জবাবে ৪৫.৩ ওভারে ১৯০ রানে অলআউট হয়ে যায় ব্রাদার্স।

উভয় দলের এদিন ছিল লিগের দশম ম্যাচ। দশ খেলা থেকে ১৩ পয়েন্ট পাওয়ায় সুপার সিক্সে খেলার পাশাপাশি পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে ভিক্টোরিয়া। অপর দিকে দশ খেলা থেকে মাত্র ৮ পয়েন্ট পাওয়ায় তালিকার দশম স্থানে আছে ব্রাদার্স। এর আগে শনিবার সকালে ভিক্টোরিয়ার অধিনায়ক নাদীফ চৌধুরী  টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে দুই ওপেনার ফজলে মাহমুদ ও আব্দুল মজিদের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে দারুণ সূচনা পায় তারা। উদ্বোধনী জুটিতে দলের পক্ষে ১৭০ রান সংগ্রহ এনে দেন এ দুই ওপেনার। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকলেও নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ৩০২ রানের লড়াকু স্কোর গড়ে ভিক্টোরিয়া।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১১৮ রান করেন মজিদ। ১১৭ বলে ১১টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে এ স্কোর করেন তিনি। ৯৮ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৭১ রান করেন ফজলে মাহমুদ। এছাড়া আল-আমিন ৩৩ রান করেন। ব্রাদার্সের পক্ষে ৫০ রানে ৪টি উইকেট পান নাবিল সামাদ। এছাড়া ইফতেখার সাজ্জাদ ও আসিফ হাসান ২টি করে উইকেট পান।

৩০৩ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুতেই বড় ব্যাটিং বিপর্যয়ে পরে ব্রাদার্স। দলীয় ৪৬ রানেই প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বড় হারের শঙ্কায় পড়ে দলটি। তবে ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে রুমান আহমেদকে নিয়ে দলের হাল ধরার চেষ্টা করেন দলনায় তুষার ইমরান। তবে দলীয় ৯১ রানে রুমান ফিরে গেলে আবারো বড় ব্যবধানে হারার শঙ্কায় পড়ে ব্রাদার্স।
তবে দলীয় ৯১ রানে মাথায় রুমানের বিদায়ের পর আসিফ হোসেনকে নিয়ে আবারো ইনিংস মেরামতে মনোযোগী হন অধিনায়ক। যদিও তারা ৯৭ রানের দারুণ এক জুটি গড়লেও দলের জয়ের জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। শুধু পরাজয়ের ব্যবধানটই কমিয়েছে। তবে এক প্রান্তে দারুণ ব্যাটিং করে শেষ পযন্ত লড়াই চালিয়ে গেছেন তুষার।

এমনকি শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে দলীয় ১৯০ রানে আউট হন তিনি। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১২৬ বলে ১১টি চারের সাহায্যে ৯৩ রান করেন তুষার ইমরান। ভিক্টোরিয়ার হয়ে ৩৩ রানে ৩টি উইকেট পান মাহবুবুল আলম রবিন। এছাড়া আল-আমিন ও কামরুল ইসলাম রাব্বি তুলে নেন ২টি করে উইকেট। অনবদ্য ১১৮ রান করায় ম্যাচসেরা হয়েছেন ভিক্টোরিয়ার ওপেনার আব্দুল মজিদ।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই

add-sm
Sonali Tissue
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩