রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩

রাজধানীর আয়তন দ্বিগুণ

সেবার মান বৃদ্ধিতেও পদক্ষেপ নিন

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০১ পিএম

সেবার মান বৃদ্ধিতেও পদক্ষেপ নিন

সম্প্রতি বৃদ্ধি পেয়েছে রাজধানী ঢাকা শহরের আয়তন। স্বাভাবিকভাবেই আয়তন বৃদ্ধির সঙ্গে সম্পর্কিত প্রতিটি বিষয়ের দিকে সরকার আরো বেশি মনোযোগী হবে, এমনটি প্রত্যাশিত। বিশেষ করে সেবার মান বৃদ্ধি এবং উন্নয়নের যাত্রা আরো গতিশীল করতে হবে জনসাধারণের স্বার্থেই। পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত খবরের মাধ্যমে জানা যায়, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে নতুন করে মোট ১৬টি ইউনিয়ন যুক্ত করেছে সরকার। আর এর মধ্য দিয়ে দুই সিটির মিলিত আয়তন বেড়ে হয়েছে দ্বিগুণের বেশি। গত সোমবার সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে প্রশাসনিক পুনর্বিন্যাসসংক্রান্ত জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির (নিকার) সভায় এ প্রস্তাব অনুমোদন পায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরের ৭ অক্টোবর সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে ৭টি ইউনিয়নকে সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্তির সুপারিশ করা হয়েছিল। আর প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন অনুযায়ী স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে ঢাকা জেলা প্রশাসন ১৬টি ইউনিয়নকে সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্তির আনুষঙ্গিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।

আমরা বলতে চাই, যখন আয়তন বৃদ্ধি হলো, তখন সরকার ঢাকা শহরের সামগ্রিক বিষয়ের সঙ্গে সঙ্গে নতুন যুক্ত হওয়া ১৬টি ইউনিয়নকে আমলে নিয়ে সমস্যা শনাক্ত করবে এবং জনসাধারণের সুবিধা নিশ্চিতে কার্যকর উদ্যোগ নেবে। মনে রাখা দরকার, ২০১১ সালের হিসাব অনুযায়ী নতুন যুক্ত হওয়া ১৬টি ইউনিয়নের জনসংখ্যা ১০ লাখের মতো। আর বর্তমানে আরো বেশি মানুষ সেসব এলাকায় বসবাস করে। ২০১১ সালের হিসাব ধরলেই নতুন আয়তনে ঢাকা উত্তরের জনসংখ্যা বেড়ে হবে ১ কোটি ৬ লাখ ২৬ হাজার ১৭ আর দক্ষিণে ৭৫ লাখ ৫৮ হাজার ২৫ জন। অর্থাৎ, দুই সিটির মিলিত জনসংখ্যা হবে প্রায় ১ কোটি ৮২ লাখ, যদিও বাস্তবে এ সংখ্যা আরো অনেক বেশি। স্বাভাবিকভাবেই এ বিপুল জনগোষ্ঠীর সুযোগ-সুবিধা বা জীবনযাপনের মান উন্নয়ন করা একটি বড় রকমের চ্যালেঞ্জ। ফলে আয়তন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ঢাকা সিটিতে বসবাসরত মানুষের সংকটগুলো সমাধানেরও ব্যাপক উদ্যোগ নেয়া হবে, এমনটি কাম্য।তথ্যমতে জানা যায়, ঢাকা মহানগরীর চারপাশের ১৬টি ইউনিয়নকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সঙ্গে মার্জ করে দেয়া হয়েছে, যা উত্তরে ৮টি, দক্ষিণে ৮টি। ঢাকা উত্তরে যুক্ত হওয়া ৮ ইউনিয়ন হলোথ বেরাইদ, বাড্ডা, ভাটারা, সাতারকুল, হরিরামপুর, উত্তরখান, দক্ষিণখান ও ডুমনি (খিলক্ষেত) এবং ঢাকা দক্ষিণে যুক্ত হওয়া ইউনিয়নথ শ্যামপুর, দনিয়া, মাতুয়াইল, সারুলিয়া, ডেমরা, মান্ডা, দক্ষিণগাঁও ও নাসিরাবাদ। এখন নতুন করে ১৬টি ইউনিয়ন যুক্ত হওয়ার ফলে ঢাকা সিটি করপোরেশনের আয়তন ১২৯ বর্গকিলোমিটার থেকে বেড়ে ২৭০ বর্গকিলোমিটার হবে। সংগত কারণেই আয়তন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে জনসংখ্যার বিষয়টিও সামনে আসছে, ফলে সেবার মান বৃদ্ধির বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। যা অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে আমলে নিয়ে যথার্থ উদ্যোগ নিশ্চিত করা জরুরি।

মনে রাখা প্রয়োজন, একটু বৃষ্টি হলেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ঢাকা সিটির মানুষের নৈমিত্তিক জীবন। কাজকর্ম থেকে শুরু করে প্রতিটি ক্ষেত্রেই নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। ড্রেনেজব্যবস্থা যথোপযুক্ত নয়। এ ছাড়া ঝুঁকিপূর্ণ ভবন, ভয়াবহ যানজট, যত্রতত্র পার্কিংসহ দখলদারিত্বের অভিযোগও নতুন নয়। ফলে ঢাকা সিটির আয়তন বৃদ্ধি হবে কিন্তু মানুষের জীবনকে সহজ ও গতিশীল করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে না, এমনটি হতে পারে না। আমরা চাই, সামগ্রিকভাবে বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে সরকার দ্রত বিদ্যমান সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে দীর্ঘমেয়াদি পদক্ষেপ নিশ্চিত করবে। আয়তনের দিক থেকে শহর বড় হলেও, যদি সে অনুযায়ী সেবার মান এগিয়ে না যায় তবে তা হবে অত্যন্ত দুঃখজনক; যা কোনোভাবেই কাম্য হতে পারে না।

সর্বোপরি, নতুন করে যুক্ত হওয়া ইউনিয়নগুলোর ওয়ার্ড পুনর্বিন্যাস করে সেখানে নির্বাচন দেয়া হবে, এমনটি জানা গেছে। ফলে যুক্ত হওয়া ইউনিয়নগুলোতেও যেন মানুষের জীবনের মান উন্নয়ন হয়, এমন পদক্ষেপই প্রত্যাশিত। পাশাপাশি এও মনে রাখতে হবে, রাজধানী ঢাকা বসবাসের জন্য মোটেও যথাযোগ্য স্থান নয়থ এমন অভিযোগও পুরনো। ফলে আমরা প্রত্যাশা করি, সরকার ব্যাপক পর্যবেক্ষণসাপেক্ষে উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডের পাশাপাশি সেবার মান বৃদ্ধিতেও কোনো আপস করবে না।

সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমটিআই

add-sm
Sonali Tissue
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩