বুধবার, ২২ নভেম্বর, ২০১৭, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

স্ত্রীকে বাঁচাতে প্রাণ গেল যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ওয়া

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৮ পিএম

স্ত্রীকে বাঁচাতে প্রাণ গেল যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী ওয়া

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

দুর্বৃত্তের কবল থেকে স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী এক বাংলাদেশি; তার স্ত্রীও হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। নিহত ওয়াসি আহমেদের বাড়ি বাংলাদেশের ময়মনসিংহে। লসঅ্যাঞ্জেলেস সিটি সংলগ্ন সান ফারনান্দো ভ্যালির লরেল ক্যানিয়ন ও শ্যান্ডলার বুলোভার্ডে ‘সেভেন-ইলেভেন’ স্টোরে গত ৮ বছর ধরে কাজ করছিলেন তিনি।

গত শুক্রবার সকালে ওই দোকানেই এক দুর্বৃত্তের হামলায় ওয়াসি নিহত হন বলে স্থানীয় পুলিশের তথ্য। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বাংলাদেশি স্ত্রীর সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর গত বছর ওই দোকানের কর্মী ল্যাগরিমা পাওলিনা লোপেজকে বিয়ে করেন ওয়াসি। শুক্রবার সকালেও একসঙ্গে তারা ওই দোকানে কাজ করছিলেন।  

লসঅ্যাঞ্জেলেস পুলিশের লেফট্যানেন্ট জন জেনাল জানান, সকাল সোয়া ৯টার দিকে ৪০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি দোকানে ঢুকে এক বোতল বিয়ার ও একটি হটডগ নিয়ে বেরিয়ে যায়। দাম না দেওয়ায় তাকে ডাকতে ডাকতে পার্কিং লটে যান লোপেজ। এক পর্যায়ে সেই দুর্বৃত্ত ছুরি হাতে লোপেজের ওপর চড়াও হয়। চিৎকার শুনে ওয়াসি বেরিয়ে আসেন এবং স্ত্রীকে বাঁচাতে গিয়ে নিজেও হামলার শিকার হন।

খবর পেয়ে পুলিশ এসে স্বামী-স্ত্রীকে হাসপাতালে পাঠালে সেখানে ওয়াসির মৃত্যু হয়। পরে দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে খুনিকেও গ্রেপ্তার করা হয় বলে লেফট্যানেন্ট জন জেনাল জানান। এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রতিবেশীরা বলেছেন, ওয়াসি আহমেদকে তারা ঘনিষ্ঠ বন্ধু হিসেবে পেয়েছিলেন। যে কোনো প্রয়োজনে তাকে তারা পাশে পেয়েছেন।

২০১৪ সালের এপ্রিলে ওই এলাকায় আরেকটি খুনের ঘটনা ঘটেছিল বলে এলাকাবাসী জানান। স্থানীয় টিভি চ্যানেল কেটিএলএ, লসঅ্যাঞ্জেলেস টাইমসসহ মূল ধারার পত্রিকাগুলো এ হত্যাকাণ্ডের খবর গুরুত্বের সঙ্গে প্রকাশ করেছে। লসঅ্যাঞ্জেলেসে বাংলাদেশি কম্যুনিটির নেতা মোমিনুল হক বাচ্চু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ওয়াসি আহমেদের প্রথম পক্ষের ছেলে যুক্তরাষ্ট্রেই থাকেন। বাবার মৃত্যুর খবর পেয়ে তিনি নিউ ইয়র্ক থেকে লসঅ্যাঞ্জেলেসে এসেছেন।


সোনালীনিউজ/এমটিআই

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

Get it on google play Get it on apple store
Sonali Tissue