মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৪:০৫ পিএম

স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে স্বামীর যাবজ্জীবন

রাজধানীর শ্যামপুরে যৌতুকের দাবিতে মারপিট ও শ্বাসরোধ করে স্ত্রীকে হত্যার ঘটনায় স্বামী মাসুদ আলমের মৃত্যুদণ্ডের সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন করেছেন হাইকোর্ট।

বৃহস্পতিবার(২৬ মে) এই মামলায় ডেথ রেফারেন্সের শুনানি শেষে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি আমির হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শহিদুল ইসলাম খান ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ এ কে এম মনিরুজ্জামান কবির। পরে মনিরুজ্জামান কবির বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার বিবরণীতে জানা গেছে, ২০০২ সালের ১৭ মে শ্যামপুরের ফারজানা আক্তার মিতুর সঙ্গে মাসুদ আলমের বিয়ে হয়। বিয়ের পর শ্বশুরবাড়িতেই থাকতেন স্বামী মাসুদ। তবে কোনো কর্ম না থাকায় তিনি স্ত্রীকে যৌতুকের জন্য সব সময় নির্যাতন করতেন। যে কারণে দাম্পত্য কলহ লেগে থাকত। সেই কলহের জেরে ২০০৬ সালের ২৫ মে নিজ গৃহে মিতুকে মারপিট করে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন।

ওই ঘটনায় একই দিনে নিহতের বাবা আজহার আলী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ১১ (ক) ধারায় একটি মামলা করেন। সেই মামলায় মাসুদসহ ৫ জনের নামে অভিযোগপত্র দাখিল করা হলেও শুধু মাসুদের নামেই অভিযোগ গঠন হয়। চার্জ গঠনের পর ২০১১ সালের ৩ মে মামলার ঢাকার নারী ও শিশু বিচার ট্রাইব্যুনাল মাসুদকে মৃত্যুদণ্ড দেন।

মামলাটি রায়ের পর ডেথ রেফারেন্স শুনানির জন্য একই বছরের ১৫ মে হাইকোর্টে আসে। বৃহস্পতিবার (২৬ মে) তা তালিকায় আসলে শুনানি শেষে হাইকোর্ট রায় দেন। রায়ে মাসুদের মৃত্যুদণ্ডের সাজা কমিয়ে দণ্ডবিধির ৩০২ ধারা অনুযায়ী যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন আদালত।


সোনালীনিউজ/ঢাকা/এমএইচএম

add-sm
Sonali Tissue
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২২ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩