মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮, ১০ মাঘ ১৪২৪

হাসলেন পুলিশ-সাংবাদিক, হাসলেন খালেদা জিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদক | সোনালীনিউজ ডটকম
আপডেট: ১১ জানুয়ারি ২০১৮, বৃহস্পতিবার ০৮:৩২ পিএম

হাসলেন পুলিশ-সাংবাদিক, হাসলেন খালেদা জিয়া

ঢাকা: ‘নোয়াখালীর মানুষদের কখনো অবহেলা করবেন না। সাবেক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নোয়াখালীর লোকদের ছাড়া চলতে পারে না।’

বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) রাজধানীর বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামানের আদালতে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে (জোকস করে) এভাবে যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ।

এসময় আদালত কক্ষে মুচকি হাসতে থাকেন খালেদা জিয়া। খালেদা জিয়া ছাড়াও আদালতে থাকা আইনজীবী, পুলিশ ও সাংবাদিকরাও হাসতে থাকেন।

সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী মওদুদ আহমেদ বিচারককে উদ্দেশ্য করে (জোকস করে) বলেন, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন আহম্মেদ নোয়াখালীর কথা শুনে ঠাট্টা করেছেন। আমি নোয়াখালীর লোক দেখে আপনি অবহেলা করবেন না। বর্তমান সেনা প্রধান (জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক) আমার নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কবির হাটের ছেলে। সাবেক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নোয়াখালী থেকে সেনাপ্রধান বানিয়েছিলেন।

এরপর মওদুদ আহমেদ ৯ম দিনের মতো জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদার পক্ষে মুল যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন। 

এদিন বেলা ১১টা ৫ মিনিটে আদালতে উপস্থিত হন খালেদা জিয়া। জিয়া অরফানেজ ও চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় হাজিরা দেন তিনি।

এরপর বেলা ১১টা ১০ মিনিটে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় তার পক্ষে নবম দিনের মতো যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন তার আইনজীবী ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার।

জমির উদ্দিনের যুক্তি উপস্থাপন শেষে আদালত ১৫ মিনিটের বিরতি দেন। বিরতির পর বেলা ১টার দিকে ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন।

সোনালীনিউজ/জেএ