বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩

৩ কিশোরীকে বছরের পর বছর আটকে রেখে দেহব্যবসা

আপডেট: ১৬ জুন ২০১৬, বৃহস্পতিবার ০৩:৫৬ পিএম

৩ কিশোরীকে বছরের পর বছর আটকে রেখে দেহব্যবসা

সোনালীনিউজ ডেস্ক

বন্দর নগরী চট্টগ্রামে তিন কিশোরীকে তিন থেকে পাঁচ বছর পর্যন্ত আটকে রেখে অমানুষিক নির্যাতন চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এমনকি দালালদের কাছ থেকে কিনে নেওয়ার পর তাদেরকে অনৈতিক কাজ করতেও বাধ্য করা হয়।

বুধবার রাতে তিন কিশোরীকে উদ্ধারের পর বেরে হয়ে এসেছে এর রহস্য। কিশোরীদের আটকে রাখার ঘটনায় পুলিশ তিন জনকে আটক করেছে।

উদ্ধারকৃত কিশোরীরা এমনই প্রতারণার শিকার। ভালোবেসে তারা প্রেমিকের হাত ধরে ঘর ছেড়েছিল কয়েক বছর আগে। কিন্তু প্রতারক প্রেমিকরা তাদের শহরে এনে বিক্রি করে দেয় দালালদের কাছে। আর অপর একজন সৎ মায়ের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে শহরে এসে পড়েছিলো দালালদের খপ্পরে।

এ তিনজনকেই দালালদের কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা করে কিনে নেয় নাসির উদ্দিন এবং কুলসুমা বেগম দম্পতি। এরপর তাদের আটকে রেখে চালানো হয় অমানুষিক নির্যাতন।

নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে তাদের একজন বহুতল ভবনের সানসেড বেয়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন।

পুলিশ জানিয়েছে, নগরীতে এ ধরনের কমপক্ষে ২০টি চক্র রয়েছে যারা নারী বেচা-কেনা এবং দেহব্যবসার সঙ্গে জড়িত।

সোনালীনিউজ/আমা

add-sm
Sonali Tissue
বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, ২৩ অগ্রাহায়ণ ১৪২৩