বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭, ৮ ভাদ্র ১৪২৪

জেনে নিন কিয়ামাতের কয়েকটি লক্ষন

প্রকাশিত: ০১ অক্টোবর, ২০১৬ ০৫:৪২পিএম | আপডেট: ০১ অক্টোবর, ২০১৬ ০৫:৪২পিএম

কিয়ামাত বা মহাপ্রলয় অবধারিত। যা আল্লাহ তাআলা কর্তৃক নির্ধারিত। তবে কখন এ মহাপ্রলয় সংঘটিত হবে সে সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট দিন-তারিখের কোনো বর্ণনা নেই। কুরআনুল কারিমের অনেক সুরায় কিয়ামাত বা মহাপ্রলয় সম্পর্কিত অসংখ্য বর্ণনা রয়েছে।
 

রাত ৯টার মধ্যে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের আহ্বান  

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:৩১পিএম | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১০:৩১পিএম

হিন্দুদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান দুর্গাপূজায় বিজয়ার শোভাযাত্রা সন্ধ্যার মধ্যে শেষ করে রাত ৯টার মধ্যে প্রতিমা বিসর্জনের আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ। শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) ঢাকেশ্বরী মন্দিরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে পূজা উদযাপনের পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তাপস কুমার পাল এ আহ্বান জানান।

জেনে নিন মানুষ অভিশপ্ত যে কারণে

প্রকাশিত: ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪১পিএম | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪১পিএম

আল্লাহ তাআলা মানুষকে অনেক ভালোবেসে তাঁর ইবাদাত করার জন্য তৈরি করেছেন। তিনি চান না যে, তাঁর বান্দা অভিশপ্ত জীবন যাপন করুন। আবার মুসলমান যত বড় পাপীই হোক না কেন, তাকে অভিশাপ দেয়া জায়েজ নেই। হতে পারে মৃত্যুর পূর্বে সে নিষ্ঠার সঙ্গে তাওবা করে নিয়েছে। আল্লাহ তাআলা তার অন্যান্য নেক আমলের কারণে তার পাপগুলো ক্ষমা করে দিয়েছেন। যা মানুষের জানা সম্ভব নয়।

অভাব দূর করার জিকির

প্রকাশিত: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:১৯পিএম | আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:১৯পিএম

আল্লাহ তাআলা বান্দাকে তাঁর সুন্দর সুন্দর নামের জিকির বা আমল করার কথা বলেছেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসে আলাদা আলাদাভাবে এ নামের জিকিরের আমল ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের মধ্যে (اَلْغَفَّارُ) ‘আল-গাফ্‌ফারু’ একটি। যার অর্থ হলো ‘বান্দার পাপসমূহ ক্ষমাকারী; দোষ ত্রুটি আবৃতকারী।’
 

ক্ষমা চাইলে আল্লাহ ক্ষমা করতে ভালোবাসেন

প্রকাশিত: ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:৩৬পিএম | আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:৩৬পিএম

আল্লাহ তাআলা ক্ষমাশীল। তিনি বান্দাকে ক্ষমা করতে ভালোবাসেন। এ জন্য তিনি কুরআনের অসংখ্য স্থানে বান্দাকে তাঁর নিকট গোনা থেকে পরিত্রাণ লাভে তাওবা করে ক্ষমা প্রার্থনার নির্দেশ দিয়েছেন। তাওবার নির্দেশ করে তিনি সঙ্গে সঙ্গে এ কথাও বলেছেন যে, তিনি অত্যন্ত ক্ষমা প্রিয়; বান্দা ক্ষমা চাইলে ক্ষমা করতে ভালোবাসেন। তাই সত্য গোপনকারীসহ সকল অন্যায়কারীকে ক্ষমা লাভে তাওবার নির্দেশ দিয়েছেন। তাওবাকারীদের জন্য সুসংবাদস্বরূপ এ আয়াতে আল্লাহ তাআলা বলেন-

হজে এ পর্যন্ত ৬৪ বাংলাদেশির মৃত্যু

প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪৯পিএম | আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪৯পিএম

এ বছর সৌদি আরবে পবিত্র হজ পালন করতে গিয়ে ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৬৪ বাংলাদেশি মারা গেছেন। এর মধ্যে ৪৮ জন পুরুষ ও ১৬ জন মহিলা। এর মধ্যে মক্কায় ৫০, মদিনায় ৮, জেদ্দায় এক ও মিনায় ৫ জন মারা যান। ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ বুলেটিনে সর্বশেষ এ তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে।

এবার সারাদেশে দুর্গাপূজার মন্ডপ ২৯ হাজার ৩৯৫টি

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৯:০৯পিএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৯:৪১পিএম

সারাদেশে এবার ২৯ হাজার ৩৯৫টি মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। গত বছর ২৯ হাজার ৭১টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হয়। এবার তা বেড়ে ৩২৪টি বেশি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শুক্রবার ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের বর্ধিত সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

রাতে নামাজ আদায় গুরুত্বপূর্ণ ইবাদাত

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪৯পিএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৪৯পিএম

ইসলামের প্রাথমিক যুগে তাহাজ্জুদ নামাজ ফরজ ছিল। উম্মতের ওপর কষ্টকর বিধায় তাহাজ্জুদের ফরজিয়াত রহিত হয়ে যায়। তারপরও রাতের বেলায় নামাজের ব্যাপারে বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতদেরকে উৎসাহ প্রদান করেছেন। যদিও তাহাজ্জুদ নামাজ রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের জন্য আবশ্যক করণীয় ছিল।
 

আমাকে আমলের ওয়াদা দাও, আমি জান্নাতের ওয়াদা দেব

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম

দুনিয়া আখিরাতের শষ্যক্ষেত্র। আল্লাহ তাআলা মানুষকে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন তাঁর দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য। মানুষ আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠা করবে, আর আল্লাহ তাআলা মানুষকে পরকালীন জীবনে সফলতা দান করবেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতদের লক্ষ্য করে বলেছেন, ‘আমাকে ৬টি আমলের ওয়াদা দাও; আমি তোমাদেরকে জান্নাতের ওয়াদা দেব।’ঘোষিত আমলসমূহ তুলে ধরা হলো-
 

‘আল-বারিয়ু’ জিকিরে সফল হবে চিকিৎসকরা

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:১৩পিএম | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:১৩পিএম

আল্লাহ তাআলা বান্দাকে তাঁর সুন্দর সুন্দর নামের জিকির বা আমল করার কথা বলেছেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসে আলাদা আলাদাভাবে এ নামের জিকিরের আমল ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের মধ্যে (اَلْبَارِيُ) ‘আল-বারিয়ু’ একটি। যার অর্থ হলো ‘ত্রুটি-বিচ্যুতিহীন সৃষ্টিকারী।’ সংক্ষেপে এ গুণবাচক নাম (اَلْبَارِيُ) আল-বারিয়ু-এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হলো-