শনিবার, ২২ জুলাই, ২০১৭, ৭ শ্রাবণ ১৪২৪

আমাকে আমলের ওয়াদা দাও, আমি জান্নাতের ওয়াদা দেব

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম

দুনিয়া আখিরাতের শষ্যক্ষেত্র। আল্লাহ তাআলা মানুষকে দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন তাঁর দ্বীন প্রতিষ্ঠার জন্য। মানুষ আল্লাহর দ্বীন প্রতিষ্ঠা করবে, আর আল্লাহ তাআলা মানুষকে পরকালীন জীবনে সফলতা দান করবেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাঁর উম্মতদের লক্ষ্য করে বলেছেন, ‘আমাকে ৬টি আমলের ওয়াদা দাও; আমি তোমাদেরকে জান্নাতের ওয়াদা দেব।’ঘোষিত আমলসমূহ তুলে ধরা হলো-
 

‘আল-বারিয়ু’ জিকিরে সফল হবে চিকিৎসকরা

প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:১৩পিএম | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:১৩পিএম

আল্লাহ তাআলা বান্দাকে তাঁর সুন্দর সুন্দর নামের জিকির বা আমল করার কথা বলেছেন। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসে আলাদা আলাদাভাবে এ নামের জিকিরের আমল ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের মধ্যে (اَلْبَارِيُ) ‘আল-বারিয়ু’ একটি। যার অর্থ হলো ‘ত্রুটি-বিচ্যুতিহীন সৃষ্টিকারী।’ সংক্ষেপে এ গুণবাচক নাম (اَلْبَارِيُ) আল-বারিয়ু-এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হলো-

ক্ষমা ও উদারতা মুসলমানের অন্যতম বৈশিষ্ট্য

প্রকাশিত: ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৭:৫০পিএম | আপডেট: ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৭:৫০পিএম

দয়ামায়া, ক্ষমা ও উদারতা মহান আল্লাহ তাআলার অন্যতম গুণ। এ কারণে মুসলমানের অন্যতম চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হলো ক্ষমা ও উদারতা প্রদর্শন করা। যারা ধর্মীয় ভাবধারায় লালিত-পালিত হন বা নিজেকে তৈরি করে তোলার ইচ্ছা প্রকাশ করেন, তারা সাধারণত নিজে সুযোগ-সুবিধা না নিয়ে অন্যের কল্যাণে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে থাকেন।

অমুসলিমের ওপর জাকাত ফরজ নয়

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:৪৮পিএম | আপডেট: ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:৪৮পিএম

জাকাত নামাজের মতোই ফরজ ইবাদাত। এ ইবাদাত নির্দিষ্ট পরিমাণ সম্পদের মালিকের ওপর আদায় করা ফরজ। জাকাতের বিধান মক্কায় ফরজ হলেও এর নিসাব, আদায়ের খাত ইত্যাদি বিধিবদ্ধ হয় দ্বিতীয় হিজরিতে মদিনা মুনাওয়ারায়।
 

যে সব উপদেশে ফিরে থাকা যায় অন্যায় থেকে

প্রকাশিত: ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:১২পিএম | আপডেট: ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:১৩পিএম

উপদেশ প্রদানের মূল উদ্দেশ্য হলো মানুষের জীবনকে সুন্দরভাবে পরিচালনা করা। সব সময় কল্যাণে সঙ্গে থাকা। অন্যায় ও অকল্যাণ থেকে ফিরে থাকা। উপদেশ থেকে মানুষ অন্যায় ও অকল্যাণ থেকে ফিরে থাকার অনুপ্রেরণা পেয়ে থাকে। তাই মুসলিম উম্মাহর দুনিয়া ও পরকালীন জীবনের কল্যাণে কিছু গুরুত্বপূর্ণ উপদেশ তুলে ধরা হলো। যা মানুষকে উভয় জাহানের সম্মান ও মর্যাদার আসনে সমাসীন করবে।

ত্যাগ ও উৎসর্গের ঈদ ‘কুরবানি’

প্রকাশিত: ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:৩৮এএম | আপডেট: ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৬:৩৮এএম

আজ ঈদ। খুশির ঈদ। ঈদের আনন্দ সবার ঘরে ঘরে। ধনী-গরিব, উচু-নিচু সবাই আজ এক কাতারে। কি আনন্দ! ইসলামের সুশোভিত সুন্দর শুধু মুসলমানকেই আকৃষ্ট করেনি। সমগ্র বিশ্ব মানবতাকে করেছে অলংকৃত।

কাবার নতুন গিলাফে ১৫০ কেজি স্বর্ণ

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:৫৯পিএম | আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:৫৯পিএম

আজ ৯ জিলহজ। শুরু হয়েছে মুসলিম বিশ্বের সর্ববৃহৎ মিলনমেলা পবিত্র হজ পালন। নিয়ম অনুযায়ী প্রতি বছরের ন্যায় এবছরও পবিত্র কাবা শরিফের গায়ে পরানো হয়েছে নতুন গিলাফ। যাতে ব্যবহার করা হয়েছে ১৫০ কেজি স্বর্ণ।

মুত্যুর পরও যে আমলের পাওয়া যায়

প্রকাশিত: ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৭:১৪পিএম | আপডেট: ০৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৭:১৪পিএম

পৃথিবীতে কেউ চিরস্থায়ী নয়। সবাইকে চলে যেতে হয়। যাওয়ার সময় কেউ সঙ্গে যাবে না। যাবে শুধু নিজের কৃত আমল। কিয়ামতের দিন কঠিন সময়ে তারাই মুক্তি ও সফলকাম হবে যাদের সৎ আমলের পাল্লা ভারি হবে। আর মৃত্যুর পরও সৎ আমলের পাল্লা ভারি হতে পারে একমাত্র সদকায়ে জারিয়ার মাধ্যমে।

চেহারা উজ্জ্বল করতে জিকির করুন ‘আল-খালিক্বু’

প্রকাশিত: ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৫৪পিএম | আপডেট: ০৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৪:৫৪পিএম

আল্লাহ তাআলা সুন্দর সুন্দর গুণবাচক নাম রয়েছে। তাঁকে এ সুন্দর নামে ডাকার তথা তাঁর জিকির করার কথা তিনি কুরআনে বলেছেন। প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম হাদিসে আলাদা আলাদাভাবে এ নামের জিকিরের আমল ঘোষণা করেছেন। আল্লাহ তাআলার গুণবাচক নামসমূহের মধ্যে (اَلْخَالِقُ) ‘আল-খালিক্বু’ একটি। যার অর্থ সকল কিছুর সৃষ্টিকারী। সংক্ষেপে এ গুণবাচক নাম (اَلْخَالِقُ) ‘আল-খালিক্বু’-এর জিকিরের আমল ও ফজিলত তুলে ধরা হলো-

যে পশু দিয়ে কুরবানি হবে না

প্রকাশিত: ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:১৬পিএম | আপডেট: ০৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৫:১৬পিএম

কুরবানি আল্লাহ তাআলার নৈকট্য অর্জনের ইবাদাতসমূহের মধ্যে একটি। আল্লাহ তাআলা হজরত ইবরাহিম আলাইহিস সালামকে কুরবানির নির্দেশ দিয়েছিলেন। যে কুরবানির আদায়ের মাধ্যমে তিনি আল্লাহর নৈকট্য অর্জন করেছিলেন। সুতরাং কুরবানি হতে হবে শুধুমাত্র আল্লাহ তাআলার জন্য; লোক দেখানো বা সুনাম কামানোর জন্য নয়।