মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০১৭, ৬ ভাদ্র ১৪২৪

সম্পদ কম হলে আখিরাতে হিসাবও কম

প্রকাশিত: ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৭পিএম | আপডেট: ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৭পিএম

ধন-সম্পদ আল্লাহর নেয়ামত। মহান প্রভু এর দ্বারা মানুষকে পরীক্ষা করেন। কাউকে তিনি দুনিয়াতে সম্পদ দিয়ে পরীক্ষা করেন। আবার কাউকে ধন-দৌলত না দিয়ে পরীক্ষা করেন। তবে যাকে ধন-সম্পদ দান করা হয়েছে তার পরীক্ষা তুলনামূলক কঠিন। কারণ যার ধন-সম্পদ নেই তার হিসাব-নিকাশের ঝামেলা নেই। দুনিয়ার জীবন একভাবে না একভাবে কেটেই যাবে। সময় কারও জন্য বসে থাকবে না।

পিতা-মাতা অসন্তুষ্ট হলে, জাহান্নাম সুনিশ্চিত

প্রকাশিত: ০৮ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৩৪পিএম | আপডেট: ০৯ আগস্ট, ২০১৬ ১০:২৭এএম

ইসলামের দৃষ্টিতে পিতা-মাতাকে কষ্ট দেয়া কোনোভাবেই বৈধ নয়। সন্তান যদি একনিষ্ঠতার সঙ্গে আল্লাহ তাআলার ইবাদাত করার পাশাপাশি পিতা-মাতার সেবাযত্ন, খেদমত এবং উত্তম আচরণ করে; তবে সে দুনিয়া ও পরকালে মহাসফলতা লাভ করবে। আর যদি পিতা-মাতার সঙ্গে অসদাচরণ করে অথবা সন্তানের কোনো কাজের কারণে পিতা-মাতা অসন্তুষ্ট হন, তবে তার জন্য জাহান্নাম সুনিশ্চিত। পিতা-মাতার সঙ্গে উত্তম ব্যবহারের বিষয়ে কুরআন ও হাদিসের কথা সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো-

অর্থাভাবে মানুষ কুফরি করতেও দিধা করে না

প্রকাশিত: ০৬ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৮পিএম | আপডেট: ০৬ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৮পিএম

অভাব মানুষকে পাপের পথে পরিচালিত করে। শুধু তাই নয়, অর্থাভাবে মানুষ কুফরি করতেও দিধা করে না। সুতরাং সমাজ থেকে অভাব-অনটন তথা দারিদ্র্যতা বিমোচনের যথাযথ উপায় অবলম্বন করা জরুরি। দারিদ্রতা থেকে মুক্ত হতে অন্যায় পথে অর্থ উপার্জনের পদক্ষেপ গ্রহণ করা বৈধ নয়। তাই দারিদ্রতা বিমোচনের উপায় হিসেবে সঠিক পথে থেকে উপর্জন করার মাধ্যমে স্বচ্ছলতা লাভ করার কিছু ইসলামি নিয়ম-নীতি তুলে ধরা হলো-
 

মানুষের মৃত্যু-পরবর্তী জীবন হলো অনন্ত জীবন

প্রকাশিত: ০৫ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৪পিএম | আপডেট: ০৫ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৫৪পিএম

পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করা হয়েছে, ‘আল্লাহর সত্তা ব্যতীত সব কিছুই মরণশীল। কোনো জীবের পক্ষে মৃত্যুকে এড়ানো অসম্ভব। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার অনুসারীদের মৃত্যুর কথা বেশি বেশি স্মরণ করা এবং মৃত্যুর জন্য প্রস্তুতি গ্রহণের তাগিদ দিয়েছেন।

বিতরের নামাজ পড়া আবশ্যক

প্রকাশিত: ০৪ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:২৫পিএম | আপডেট: ০৪ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:২৫পিএম

বিতর (وتر) শব্দটি আরবি। অর্থ হচ্ছে বিজোড়। এ নামাজ তিন রাকাআত বিধায় এটিকে বিতর বলা হয়। কেউ কেউ বিতরের নামাজ এক রাকাআতও পড়ে থাকেন। ইশার নামাজের পরপরই এ নামাজ পড়া ওয়াজিব। আর রমজান মাসে তারাবিহ নামাজ পড়ার পর জামাআতবদ্ধভাবে ইমামের সঙ্গে বিতর নামাজ পড়া যায়। বিতরের নামাজ পড়ার ব্যাপারে রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিশেষ তাগিদ দিয়ে বলেন, বিতরের নামাজ পড়া আবশ্যক। যে ব্যক্তি বিতর আদায় করবে না, আমাদের জামাআতের সাথে তাঁর কোনো সম্পর্ক নেই। (আবু দাউদ)

হজে যাওয়ার আগে যা জেনে রাখা ভালো

প্রকাশিত: ০৩ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:৪৫পিএম | আপডেট: ০৩ আগস্ট, ২০১৬ ০৫:৪৫পিএম

হজ প্রত্যেক শারীরিক ও আর্থিক সামর্থবানদের ওপর ফরজ ইবাদাত। আর প্রত্যেক মুসলমানের জীবনের সর্বোচ্চ আশা-আকাংঙ্খার কেন্দ্রবিন্দুও হজ। তাই প্রত্যেক মুসলমান জীবনে একবার হলেও পবিত্র নগরী মক্কায় অবস্থিত বাইতুল্লাহ ও হৃদয়ের স্পন্দন নবির শহর মদিনায় যাওয়ার আশা পোষণ করে। হজের অফিসিয়াল কার্যক্রম সম্পন্ন করে যাদের হজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত তাদের আরো কিছু তথ্য দেশে থাকতেই জেনে নেয়া দরকার।

হজ কার্যক্রমের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৩ আগস্ট, ২০১৬ ১১:৪৭এএম | আপডেট: ০৩ আগস্ট, ২০১৬ ১১:৪৭এএম

চলতি বছরের হজ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানীর আশকোনায় হজ ক্যাম্পে বুধবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন প্রধানমন্ত্রী।

কুরআন অনুযায়ী জীবনযাপনে জান্নাতের সুখবর

প্রকাশিত: ০২ আগস্ট, ২০১৬ ০৬:১৭পিএম | আপডেট: ০২ আগস্ট, ২০১৬ ০৬:১৭পিএম

আল্লাহ তাআলা মানুষকে আশরাফুল মাখলুকাত হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। জীবন পরিচালনার জন্য গাইড স্বরূপ নাজিল করেছেন আল কুরআন। যারা কুরআন অনুযায়ী জীবনযাপন করবে। তাদের জন্য রয়েছে জান্নাতের সুখবর। আর যারা আল্লাহর বিধানে বিরোধিতা করবে। তাঁর হুকুম-আহকাম থেকে বিরত থাকবে তাদের জন্য রয়েছে জাহান্নামের কঠিন শাস্তি। সুতরাং জাহান্নামের কঠিন আজাব হতে মুক্তি লাভের প্রধান ঈমানের ছয়টি আরকানের ওপর বিশ্বাস স্থাপন করা এবং সৎকর্ম করা।
 

১১০০ হিজরির ক্ষুদ্র কুরআনের সন্ধান

প্রকাশিত: ০১ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম | আপডেট: ০১ আগস্ট, ২০১৬ ০৪:৩১পিএম

৩৩০ বছর পূর্বের ১১০০ হিজরি সালে হাতে লেখা সবচেয়ে ক্ষুদ্র দুর্লভ কুরআনুল কারিমের কপির সন্ধান পাওয়া গেছে। যার দৈর্ঘ ১.৪ সেন্টিমিটার। ইয়েমেনে প্রাপ্ত এই ক্ষুদ্রতম কুরআনের কপির পাতায় পাতায় রয়েছে অনন্য নকশা ও ক্যালিওগ্রাফি, যা প্রাকৃতিক উদ্ভিদের রঙ ব্যবহার করে করা হয়েছে।
 

স্ত্রীর কাজে সহযোগিতাই বিশ্বনবির আদর্শের অনুসরণ

প্রকাশিত: ৩০ জুলাই, ২০১৬ ০৪:৪৪পিএম | আপডেট: ৩০ জুলাই, ২০১৬ ০৪:৪৪পিএম

মানুষের পারিবারিক জীবনে সুখ-শান্তি তখনই বিরাজ করে, যখন কোনো পুরুষ তাঁর স্ত্রীর কাজকে সম্মান ও মর্যাদা দেয়। স্ত্রীর কাজের স্বীকৃতি দেয় এবং প্রশংসা করে। পাশাপাশি নিজ হাতে স্ত্রীদের কাজের সহযোগিতা করে। তাছাড়া স্ত্রীর সাংসারিক যাবতীয় কাজের মূল্যায়ন করার পাশাপাশি তাদের সহযোগিতাই হলো একজন স্বামীর বড় গুণ।